default-image

বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে ক্রিকেটাররা আতশি কাঁচের নিচে থাকেন, ক্রিকেট কর্মকর্তারাও কম নজরে থাকেন না। বরং দেশটির নাম যখন পাকিস্তান, নজরদারি বেশি থাকাই যেন স্বাভাবিক! অক্রিকেটীয় ‘পারফরম্যান্স’ তো আর কম নেই দলটির! এবার ‘পারফরমার’দের খাতায় নাম লেখালেন খোদ প্রধান নির্বাচক মঈন খান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১৫০ রানের লজ্জাজনক পরাজয়ের কয়েক ঘণ্টা আগে পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচক মঈন খানকে নাকি দেখা গিয়েছিল ক্রাইস্টচার্চের এক জুয়ার আখড়ায় (ক্যাসিনো)! মঈন খানও বিষয়টি অস্বীকার করেননি, বরং দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
মাঠ ও মাঠের বাইরে—দুই জায়গাতেই বিপর্যস্ত পাকিস্তান ক্রিকেট। বিশ্বকাপের প্রথম দুটি ম্যাচে ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে গো-হারা হার তো রয়েছেই, মাঠের বাইরের নানা ঘটনাও যেন শনির দশা হয়ে আঘাত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেটকে। একের পর এক ঘটনায় পাকিস্তান ক্রিকেট টালমাটাল। স্বাভাবিকভাবেই মঈন অনুতপ্ত, ‘আমি আমার পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে ক্রাইস্টচার্চের এক ক্যাসিনোতে ডিনার করতে গিয়েছিলাম। কোনো সন্দেহ নেই, খাবারের জায়গাটা নির্ধারণে ভুল করেছি আমি। এটা পাকিস্তানের জনসাধারণকে ক্ষুব্ধ করেছে।’

এ ঘটনার পর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান মঈন খানকে দেশে ডেকে পাঠিয়েছেন। পিসিবি চেয়ারম্যানের দেশে ফেরার ডাকে সাড়াও দিয়েছেন মঈন, ‘আমি ইতিমধ্যেই পিসিবি চেয়ারম্যানের কাছে আমার অবস্থান পরিষ্কার করেছি এবং তাঁর কাছে ক্ষমা চেয়েছি। তিনি আমাকে দেশে ফিরে সামনাসামনি এ নিয়ে কথা বলতে বলেছেন। সঙ্গে সঙ্গেই তা মেনে নিয়েছি আমি।’ কাল পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার কথা মঈনের। শুক্রবার লাহোরে পিসিবি প্রধানের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন তিনি।
প্রধান নির্বাচকের মতো স্পর্শকাতর পদে থেকে এমন অবিবেচকের মতো কাজ, পাকিস্তান ক্রিকেটে বোধ হয় সবই সম্ভব! তথ্যসূত্র: এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন