'তাসকিন ইজ আ লাভলি বয়'

বিজ্ঞাপন
>
default-image

তাসকিন আহমেদ ফিরেছেন টেস্ট দলে। তাঁর লক্ষ্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে ভালো করে দলে জায়গাটা পোক্ত করা

সকালে খুলনা থেকে বিসিবির হাই পারফরম্যান্স (টিম) দলের কোচ সাইমন হেলমট ফোন দিয়েছেন নির্বাচক হাবিবুল বাশারকে। মিরপুরে প্রস্তুতি ম্যাচে কে কেমন করেছেন সেটি জানতে চাইলেন হেলমট। কে কত উইকেট নিয়েছেন, সে হিসাব মনে না থাকলেও হাবিবুল বেশ প্রশংসা করলেন তাসকিন আহমেদকে নিয়ে, ‘ও দারুণ বোলিং করেছে...।’

নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে খেলা এই প্রস্তুতি ম্যাচে ১২.১ ওভার বোলিং করে ৪৫ রান দিয়ে তাসকিন পেয়েছেন ৪ উইকেট। বিকেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোরও স্তুতি তাসকিনকে নিয়ে, ‘তাসকিন ইজ আ লাভলি বয়। আজ সে খুব ভালো বোলিং করেছে। ইবাদত হোসেনও (৩ উইকেট পেয়েছেন) ভালো করেছে।’

কোচ-নির্বাচকদের মুখে যখন এই প্রশংসা, তাসকিন দলে না থেকে পারেন! তবুও তাঁর সংশয় যেন দূর হচ্ছিল না। ডিপ মিডউইকেটে ফিল্ডিং করার সময় রসিকতা করে বলছিলেন, ‘প্রশংসা করছে বুঝলাম। কিন্তু টেস্ট দলে কি আমাকে রাখবে?’ খানিক পরে ডিপ মিড উইকেটে ফিল্ডিং করতে করতেই যখন শুনলেন আবারও ফিরেছেন টেস্ট দলে, সকালের সূর্যের মতো হাসি ফুটল তাঁর মুখে।

তাসকিনের ফেরা নিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুলের ব্যাখ্যাটা হচ্ছে, ‘সে গত নিউজিল্যান্ড সফরের দলে ছিল। বিপিএলে চোটে পড়ায় শেষ মুহূর্তে বাদ পড়ে। চোট থেকে ফিরেছে। বিসিবি একাদশের হয়ে ভারত সফরে গেছে। বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে যথেষ্ট ভালো করেছে বেঙ্গালুরুতে। চোট নিয়ে ওর আপাতত সমস্যা নেই। ওকে তাই দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

চোট কাটিয়ে দলে তিনি ফিরেছিলেন গত আয়ারল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা সফরেও। স্কোয়াডে ফিরলেও একাদশে ঠাঁই মেলেনি। তাসকিনের লক্ষ্য তাই আন্তর্জাতিক ম্যাচে ফেরা। শুধু টেস্ট নয়, বাকি সংস্করণেও তিনি ফিরতে উন্মুখ, ‘এখন লক্ষ্য থাকবে আরও বেশি কষ্ট করা, নিজেকে ফিট রেখে জায়গাটা ধরে রাখা। সামনে টেস্ট ছাড়াও আরও যত সংস্করণের খেলা আছে সেখানে যেন সুযোগ পাই। আমার যদি সুযোগ আসে শতভাগ দিয়ে সেটি কাজে লাগানোর চেষ্টা করব। দোয়া করবেন যেন সুস্থ থাকি এবং নিজের সেরাটা দিয়ে দেশকে ভালো কিছু দিতে পারি।’

চোটে পড়ে নিউজিল্যান্ড সফর, পরে বিশ্বকাপের দলে সুযোগ না পাওয়ার যাতনা এখনো ভুলতে পারেন না তাসকিন। এই ধাক্কা থেকে তিনি অনেক কিছু শিখেছেন। ক্যারিয়ার নিয়ে কিছু উপলব্ধিও হয়েছে তাঁর, ‘অনেক খারাপ লেগেছিল। তবে খারাপ লাগার পর মেনে নিয়েছি যে এটি জীবনের অংশ। ফাস্ট বোলারদের চোট...আর ওই চোট ছিল দুর্ঘটনার মতো। সব সময় এটি বিশ্বাস করি যে পরিস্থিতি যেমনই আসুক, ভালো কিংবা খারাপ, যদি কষ্ট করি এবং নিজের কাছে সৎ থাকি তাহলে আল্লাহ যে প্রতিভা দিয়েছে সেটি কাজে লাগাতে পারব।’

দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যাওয়া মানুষ যেমন নতুন করে স্বপ্ন দেখে জেগে ওঠার, তাসকিনের মনে একই তাড়না। তিনি তৈরি হচ্ছেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত কিছু করতে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন