default-image

অনেকে বলেন, ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসল মজা-রোমাঞ্চ নাকি নকআউট পর্বে। এ পর্বটাও আবার এই শুরু এই শেষ! সংক্ষিপ্ত রোমাঞ্চকর সেই নকআউট পর্বের শুরু আগামীকাল। তবে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখা বাংলাদেশের খেলা পরশু। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে বাংলাদেশের হারানোর কিছু নেই; বরং ভয়-ডরহীন ক্রিকেট খেলার কথাই বললেন সাকিব আল হাসান।

বাংলাদেশের সামনে আট বছর আগের স্মৃতি। ২০০৭ বিশ্বকাপে এ দিনে পোর্ট অব স্পেনে ভারতের বিপক্ষে এসেছিল সেই দারুণ জয়। সেই ম্যাচে ৫৩ রান করা সাকিব আজ সংবাদ সম্মেলনে বললেন, ‘আমার মনে হয় সেদিন (আট বছর আগে) আমরা ভয়হীন ক্রিকেট খেলেছিলাম। সেদিন যেমনটা খেলেছিলাম, তেমনটাই খেলতে চাই। এ বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত মনে হয় সেটি করতে পেরেছি। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যেমন খেলেছি, তেমনটা খেললে আশা করি ম্যাচটা দারুণই হবে। এটি আসলে ওই দিনের ওপর নির্ভর করছে। এ জন্য আমাদের শুরুটা ভালো করা প্রয়োজন। আমরা যদি ছন্দ ধরে রাখতে পারি, তাহলে যেকোনো কিছুই সম্ভব।’

এ বিশ্বকাপে দারুণ ফর্মে রয়েছে ভারত। ছয়ে-ছয় নিয়েই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে তারা। দলে রয়েছে ভীতিজাগানিয়া কয়েকটি নাম—মহেন্দ্র সিং ধোনি, বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান। সাকিবও মানছেন তা। তবে নিজেদের সেরা দিনে কোনো বড় নামে কাজ হয় না, সেটিও মনে করিয়ে দিলেন বাংলাদেশ-সেরা অলরাউন্ডার, ‘ভারত খুবই ভালো দল। তারা বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। তাদের দলে বেশ কয়েকজন বিশ্বমানের খেলোয়াড় রয়েছে। তবে আমরাও কিন্তু এ বিশ্বকাপে ভালো খেলছি। আমাদের আত্মবিশ্বাসও তুঙ্গে। এ ম্যাচের জন্য আমরা প্রস্তুত। অবশ্যই কাগজে-কলমে বাংলাদেশের চেয়ে ভারত এগিয়ে। এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। তবে এটি এক ম্যাচের খেলা। যদি দিনটা আমাদের হয় আর তাদের খারাপ হয়, তবে কেউ জানে না কী হবে।’

বাংলাদেশের দলীয় লক্ষ্য ছিল কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা। সেটি পূরণ হয়েছে। কাজেই ভারতের বিপক্ষে হারানোর কিছু নেই বললেন সাকিব, ‘দর্শকেরা দলের কাছে সব সময় অনেক কিছু প্রত্যাশা করে। তাদের প্রত্যাশামতো আমরা বেশ ভালো খেলেছি। আমাদের এখন প্রয়োজন খেলায় মনোযোগ দেওয়া এবং খেলায় কীভাবে ভালো করতে হয় , সেটিই মূল বিষয়। যদি সেটা ঠিকঠাক করতে পারি, আশা করি ফলই সব বলে দেবে। জয়-পরাজয় ব্যাপার নয়। যদি নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারি, সেটিই হবে মূল বিষয়।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন