default-image
>

কাল বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অবিশ্বাস্য এক ক্যাচ নিয়েছেন বেন স্টোকস। সতীর্থ থেকে সাবেকদের প্রশংসায় ভেসে যাচ্ছেন এ ইংলিশ অলরাউন্ডার।

বেশ জোরেই সুইপ করেছিলেন আন্দিলে ফিকোয়াও। বলটা শূন্যে প্রায় আড়াআড়িভাবে ছুটে যাচ্ছিল বুলেটের গতিতে। মিড উইকেট অঞ্চলে সীমানা থেকে বেশ সামনে থাকা বেন স্টোকস বিপদটা বুঝতে পেরেছিলেন। বল তাঁর মাথার ওপর দিয়ে চলে যাবে। ইংলিশ অলরাউন্ডার করলেন কি, স্প্রিংয়ের মতো শূন্যে লাফিয়ে অভিকর্ষ বলকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বলটা ডান হাতে লুফে নিলেন! চোখ কচলে আবার, বারবার দেখার মতো ক্যাচ। ধারাভাষ্যকক্ষ থেকে নাসের হুসেইন ক্যাচটির প্রাপ্য প্রতিদানই দিলেন, ‘এটা হতেই পারে না, বেন স্টোকস...এটা সর্বকালের সেরা ক্যাচগুলোর একটি।’

কাল ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ শুরু দিনটা নিজের করে নিয়েছেন স্টোকস। ব্যাটে ৮৯ রান, বল হাতে ২ উইকেট, একটি রান আউট আর ওই ক্যাচ। তার আগে জেপি ডুমিনির ক্যাচও নিয়েছেন। কিন্তু ওই ক্যাচ ছাপিয়ে গেছে ব্যাট-বলে স্টোকসের ওস্তাদি। বিশ্বকাপে এর আগে কোনো ম্যাচে ন্যূনতম ৮০ রান, ২ উইকেট আর ২টি ক্যাচ নেওয়ার একমাত্র নজির ছিল অরবিন্দ ডি সিলভার। সেটি ১৯৯৬ ক্রিকেট বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে। স্টোকস কাল সেই নজির ফিরিয়ে আনলেন এবারের বিশ্বকাপের শুরুতে।

আর স্টোকসের এই দুর্দান্ত শুরুর চুম্বক অংশ হয়ে থাকল অবিশ্বাস্য ক্যাচটি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তো ঝড় উঠে গিয়েছিল। বেশির ভাগেরই মতামত, সর্বকালের সেরা ক্যাচগুলোর একটি। শ্রীলঙ্কার সাবেক ব্যাটসম্যান রাসেল আর্নল্ডের টুইট, ‘এসব অনুশীলন করে ধরা যায় না। সর্বকালের অন্যতম সেরা ক্যাচ।’ ইংল্যান্ডের সাবেক স্পিনার গ্রায়েম সোয়ান অবশ্য এক কাঠি সরেস। তাঁর কাছে ‘স্টোকসের ক্যাচটি রক্তমাংসের মানুষের ধরা সেরা।’

এদিকে স্টোকসের পা কিন্তু মাটিতেই আছে। তিনি জানেন, একটা ভুল করে বসেছিলেন। তা শোধরানোর ফসল দুর্দান্ত ওই ক্যাচ। ইংলিশ অলরাউন্ডারের ব্যাখ্যা, ‘আমি ভুল জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিলাম। বেশ সহজ একটা ক্যাচকে কঠিন করে নিয়েছি। ঠিক জায়গায় থাকলে এটা আর দশটা সহজ ক্যাচের মতোই হতো।’ ২০১৫ অ্যাশেজেও অবিশ্বাস্য একটি ক্যাচ ধরেছিলেন স্টোকস। সেই ক্যাচ আর কালকের ক্যাচটির মধ্যে কোনটি সেরা? ইংলিশ ক্রিকেটের ভক্ত হলে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন স্টোকসের কাছে কোন ক্যাচটি সেরা। অবশ্যই অ্যাশেজের ক্যাচটি, প্রতিপক্ষ যে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়া!

ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়োন মরগান জানিয়েছেন, দলীয় অনুশীলনে স্টোকস নাকি এসব ক্যাচ ধরার চেষ্টা করেন। মরগানও মনে করেন, ‘ভুল জায়গায় থাকায় শুরুতে সে বলের ফ্লাইট বুঝতে পারেনি। কিন্তু লাফটা দেওয়ার পর...অবিশ্বাস্য। এর আগে বেঙ্গালুরুতে শুধু ডি ভিলিয়ার্সকেই এমন ক্যাচ নিতে দেখেছি।’ ওদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসির মতে, ক্যাচটি ‘যতটা ভালো হওয়া সম্ভব, ঠিক ততটাই।’

স্টোকসের অবিশ্বাস্য ক্যাচের ভিডিও লিংক: 

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন