গত মার্চে রিয়ালের মাঠে সর্বশেষ এল ক্লাসিকোর একটি চিত্র। এই ম্যাচটি অবশ্য জিতেছিল রিয়াল।
গত মার্চে রিয়ালের মাঠে সর্বশেষ এল ক্লাসিকোর একটি চিত্র। এই ম্যাচটি অবশ্য জিতেছিল রিয়াল।রয়টার্স ফাইল ছবি

যে যা-ই করুক না কেন, বাংলাদেশ সময় আজ রাত আটটায় ফুটবলপ্রেমী প্রায় সবার চোখই আটকে থাকবে টিভি পর্দায়। দুঃখিত, ফেসবুকে। স্প্যানিশ লিগ তো এখন আর উপমহাদেশে টিভিতে দেখা যায় না!

তা কেন ফুটবলপ্রেমীরা এভাবে ফেসবুকে বুঁদ হয়ে থাকবেন? আজ যে ‘এল ক্লাসিকো!’ইতিহাসের শ্রেষ্ঠতম দুই দল গোটা নব্বই মিনিট মাঠে লড়বে, ফুটবলমোদীদের মনোযোগ অন্য জায়গায় কীভাবে থাকে?

দুই দলের কাছেই ম্যাচটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। লিগ লড়াইয়ে এগিয়ে যাওয়ার জন্য মৌসুম শেষে এই ক্লাসিকোই অধিকাংশ সময়ে হয়ে ওঠে নিয়ামক। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচের আগে ফুটবল বিশ্লেষকেরা এমন এক তথ্য বের করেছেন, যা হয়তো রিয়াল সমর্থকদের কাছে খারাপই লাগবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

স্প্যানিশ লিগে গত সপ্তাহটা একটু বিচিত্রই ছিল। একই সপ্তাহে রিয়াল-বার্সা দুই দলই হেরেছে, এমন উদাহরণ কবারই বা দেখা যায়? কিন্তু ক্লাসিকোর ঠিক আগের সপ্তাহে এবার দুই দলই নিজ নিজ ম্যাচ হেরে বসে—রিয়াল মাদ্রিদ নিজেদের মাঠে ১-০ গোলে হেরেছে কাদিজের বিপক্ষে, বার্সেলোনা একই ব্যবধানে হেরেছে হেতাফের মাঠে। ক্লাসিকো-প্রস্তুতিতে আসে বিশাল ধাক্কা।

ক্লাসিকোর ঠিক আগের ম্যাচ ডে’তে দুই দল একই সঙ্গে হেরেছে, লা লিগার নব্বই বছরের ইতিহাসে এমন কবার হয়েছে? পরিসংখ্যান ঘেঁটে জানা গেল, এমনটা হয়েছে সাত বার। যে সাত ম্যাচের মধ্যে আবার তিনটা করে ম্যাচ জিতে সমতায় আছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব। বাকি ম্যাচটা হয়েছে ড্র।

সর্বশেষ ক্লাসিকোর আগে দুই দলই নিজ নিজ লিগ ম্যাচ হেরেছিল সেই ২০০২-০৩ মৌসুমে। বার্সেলোনা ৪-২ গোলে হেরে বসে দেপোর্তিভো লা করুনিয়ার বিপক্ষে, ওদিকে রিয়ালের হারটা ছিল রিয়াল সোসিয়েদাদের বিরুদ্ধে—কাকতালীয়ভাবে স্কোরলাইন ছিল একই। পরের সপ্তাহের ক্লাসিকোটা ড্র হয় ১-১ গোলে। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে গোল করেন ব্রাজিল তারকা রোনালদো, বার্সার গোলটা সাবেক কোচ লুইস এনরিকের।

এতটুকু পর্যন্ত পড়ে মনে হতেই পারে, তাহলে রিয়াল মাদ্রিদ পিছিয়ে থাকল কোথায়? দুই দলই একেবারে সমানে-সমান! আসলে তা নয়। সাত ম্যাচের মধ্যে তিনবার করে দুই দল জিতলেও, প্রত্যেকেই জিতেছে নিজের মাঠে। আর আজকের ম্যাচটা হতে যাচ্ছে বার্সার মাঠ ক্যাম্প ন্যু-তে।

বিজ্ঞাপন

তাই খেলোয়াড়ি চিন্তা কিছুক্ষণের জন্য মাথা থেকে বাদ দিয়ে সংখ্যাতত্ত্বের ওপর বিশ্বাস করলে বার্সেলোনাকেই এগিয়ে রাখতে হবে হয়তো!

কিন্তু দিন শেষে খেলাটা মাঠের মধ্যেই হয়, যেখানে সংখ্যাতত্ত্বের ভূমিকা থাকে সামান্যই। মাঠের নব্বই মিনিটে কে নিজেদের সামনে আসা সুযোগগুলো ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারল, তাতেই নির্ধারিত হয় ম্যাচের জয়-পরাজয়। রিয়ালের আশা ভরসাও থাকবে তাতেই!

মন্তব্য পড়ুন 0