বিজ্ঞাপন

ক্রিকেটাররা কেন করোনার টিকা নিতে চাননি, সে ব্যাপারে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার অজুহাতের বিষয়টি সামনে এসেছে। টুর্নামেন্ট শুরুর ঠিক আগে দিয়ে ক্রিকেটাররা নাকি শঙ্কিত ছিলেন, টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় তাঁরা আবার অসুস্থ না হয়ে পড়েন। করোনার যেকোনো টিকার ক্ষেত্রেই একেকজনের একেক রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। কেউ কেউ জ্বরেও আক্রান্ত হন। কারও শরীরে ব্যথা থাকে, শারীরিক দুর্বলতাও করোনা টিকার সাধারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। ক্রিকেটাররা মনে করেছেন এমন গুরুত্বপূর্ণ একটা টুর্নামেন্টের আগে টিকা নিয়ে যদি তাঁরা শারীরিকভাবে কোনো সমস্যায় পড়েন! তাঁরা যদি খেলতে না পারেন! সে কারণেই তাঁরা টিকার চেয়ে জৈব সুরক্ষা বলয়কেই আগ্রাধিকার দিয়েছেন। মনে করেছেন, বলয়ের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাই তাঁদের নিরাপদে রাখবে।

ক্রিকেটাররা এ ক্ষেত্রে অসচেতনতার পরিচয় দিয়েছিলেন। ভারতীয় বোর্ডও এ নিয়ে তাঁদের ঠিকমতো বোঝাতে পারেনি। টাইমস অব ইন্ডিয়াকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘প্রথমে ক্রিকেটারদের টিকা নিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে টিকা নিয়ে তো কাউকে জোর করা যায় না। এ ব্যাপারে ক্রিকেটারদের অসচেতনতাই ছিল প্রধান সমস্যা। ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও ক্রিকেটারদের সঠিকভাবে বোঝাতে পারেনি। সবচেয়ে দুঃখজনক ব্যাপার ছিল টিকার ব্যাপারে বোর্ডের অনুরোধ পত্রপাঠ ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন