default-image
>মাঝপথে লিগ শেষ করে দিলে চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা মিলবে না বলে দিয়েছে উয়েফা

করোনাভাইরাসের কারণে থমকে গেছে ইউরোপিয়ান ফুটবল। লিগগুলো সব বন্ধ হয়ে গেছে। এই মৌসুমে আর মাঠে গড়াবে কি না নিশ্চয়তা নেই মোটেই। এরইমধ্যে গত পরশু বেলজিয়ান প্রো লিগে ক্লাব ব্রুগাকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষনা করেছে দেশটির ফুটবল কর্তৃপক্ষ। সেই হিসেবে আগামী মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে সরাসরি খেলার কথা দলটির।

তবে কাল ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা ও মহাদেশটির শীর্ষ ক্লাবগুলোর সংগঠন ইসিএ লিখিতভাবেই জানিয়ে দিয়েছে আজ হোক, কাল হোক লিগ ও অন্যান্য টুর্নামেন্ট শেষ করতেই হবে। নইলে এভাবে মাঝপথে লিগ বা টুর্নামেন্ট শেষ করে দিলে ২০২০-২১ মৌসুমে ইউরোপিয়ান টুর্নামেন্টে জায়গা পাবে না ওই সব দেশের ক্লাবগুলো।

পরশু রাতে উয়েফা, ইসিএ ও লিগগুলোর সংগঠন যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে জুলাই কিংবা আগস্টে হলেও তারা লিগগুলো শেষ করতে চান। কীভাবে তা করা যাবে তা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সংস্থাগুলো। চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ইউরোপা লিগও শেষ করতে চায় উয়েফা, ‘একান্ত বাধ্য না হলে টুর্নামেন্টগুলো বাতিল করা হবে না। যদি দেখা যায় ক্যালেন্ডারে মৌসুম শেষ করার মতো আর সময় নেই তবেই তা করা হতে পারে।’

কেন টুর্নামেন্ট শেষ করার ওপর গুরুত্ব দেওয়া সেটিরও ব্যাখ্যা আছে যৌথ বিবৃতিতে, ‘এই মহামারির সময়ে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি টুর্নামেন্টগুলো মাঠে শেষ করার। আমরা চাই বিধি মেনেই ফলাফলের ভিত্তিতে শিরোপা নিষ্পত্তি হোক।’

শিগগিরই ফুটবল আবার মাঠে ফিরবে বলেই বিশ্বাস করছেন ইউরোপিয়ান ফুটবলের কর্তারা, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে সরকারের কাছ থেকে সবুজসংকেত পেলে সামনের মাসগুলোতে ফুটবল আবার শুরু হতে পারে। আমরা এটিও বিশ্বাস করি যে এই মুহূর্তে ঘরোয়া প্রতিযোগিতাগুলো বন্ধ করে দিলে তা অপরিপক্ব সিদ্ধান্ত হবে এবং তা অবিচারও হবে।’

অবিচার কেন হবে সেটির ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, ‘যেহেতু ঘরোয়া মৌসুম শেষে ফলের ভিত্তিতেই নির্ধারিত হয় উয়েফার ক্লাব প্রতিযোগিতায় কারা অংশ নেবে, তাই লিগ হঠাৎ শেষ করে দিলে ওই শর্তগুলো পূরণ হয় না।’

প্রচ্ছন্ন এক হুমকি দিয়েই বিবৃতিটা শেষ হয়েছে, ‘২০২০-২১ মৌসুমে কারা কারা উয়েফার ক্লাব প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে সেটি বিচারের দায়িত্ব শুধুমাত্র উয়েফার।’

করোনাভাইরাস মহামারি যে সংকট তৈরি করেছে তা থেকে কীভাবে বেরোনো যায় তার উপায় খুঁজতে দুটি কমিটি গঠন করেছে উয়েফা। এর একটি কাজ করবে আইনি ও আর্থিক ব্যাপারগুলো নিয়ে। অন্যটি কাজ করবে নতুন ফুটবল সূচি তৈরিতে। দুটি কাজের জন্যই আগামী মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত সময় নিয়েছে উয়েফা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0