সালাহর এ গোলের পর বাতিল হয়েছে মানের গোলও।
সালাহর এ গোলের পর বাতিল হয়েছে মানের গোলও।ছবি: রয়টার্স

এ মৌসুমটা একদম ভালো যাচ্ছে না লিভারপুলের। একের পর এক চোট হানা দিচ্ছে ক্লাবে। করোনা সংক্রমণ তো আছেই। সে সঙ্গে যোগ হয়েছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর)। এ মৌসুমে বেশ কয়েকবার লিভারপুলের পথের কাঁটা হয়েছে ভার (ভিএআর)। আজও ব্রাইটনের বিপক্ষে লিভারপুলের বড় প্রতিপক্ষ হয়ে উঠল প্রযুক্তি। দুটি গোল বাতিল করেছে। প্রতিপক্ষকে উপহার দিয়েছে পেনাল্টি। আর তাতে আরও একবার পয়েন্ট খুইয়ে মাঠ ছেড়েছে লিভারপুল।

যোগ করা সময়ে অ্যান্ডি রবার্টসনের বুট ছুঁয়েছিল ব্রাইটনের ড্যানি ওয়েলবেকের পা। প্রথমে সেটা এড়িয়ে গিয়েছিল রেফারি স্টুয়ার্ট অ্যাটওয়েলের চোখ। কিন্তু ভিএআর তাঁকে আরেকবার ভেবে দেখতে বলে। মাঠের পাশে থাকা স্ক্রিনে ঘটনাটি দেখে পেনাল্টির বাঁশি বাজান। পেনাল্টি থেকে আলিসন বেকারকে উল্টো দিকে পাঠান পাসকাল গ্রস। শেষ মুহূর্তের এ গোলে ২ পয়েন্ট হারিয়েছে লিভারপুল। লিগ শীর্ষস্থান ধরে রাখলেও সেটা টটেনহাম-চেলসি ম্যাচের পরই হারিয়ে ফেলবে অল রেডরা।

বিজ্ঞাপন
default-image

ম্যাচের শুরু থেকেই ভিএআর লিভারপুলের পথের কাঁটা হয়েছিল। ৩৪ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন মোহামেদ সালাহ। কিন্তু ভিএআর ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ব্যবধানে এগিয়ে থাকতে দেখেছে সালাহকে। ফলে বাতিল হয়েছে সে গোল। ৬০ মিনিটে দিয়োগো জোতার গোলে এগিয়ে যাওয়া লিভারপুলকে জয় নিশ্চিত করে দিয়েছিলেন মানে। বদলি নামা মানে ৮৪ মিনিটে হেডে গোল করেছিলেন। সেটাও বাতিল করে দিয়েছে ভিএআর। এরপর তো গ্রসের সেই পেনাল্টি গোল।

লিভারপুল অবশ্য এ ম্যাচে এর আগেও পেনাল্টি উপহার দিয়েছিল। আগের দুই মৌসুমে মাত্র দুই পেনাল্টি উপহার দেওয়া লিভারপুল আজ ৯০ মিনিটেই সে কাজ করেছে। নেকো উইলিয়ামস ফাউল করেছিলেন কনোলিকে। পেনাল্টি নেওয়ার দায়িত্ব পেয়েছিল নিল মপে। আলিসন ভুল দিকে ঝাঁপালেও সেখান থেকে গোল করতে পারেননি। মপের ভুলটা কাজে লাগিয়ে এগিয়ে গিয়েও লাভ হয়নি। শেষ পর্যন্ত পয়েন্ট হারিয়ে বসতে হয়েছে চ্যাম্পিয়নদের। এ মৌসুমে এ নিয়ে চার ম্যাচে আগে এগিয়ে গিয়েও জয় পায়নি লিভারপুল, হারিয়েছে ৬ পয়েন্ট। অথচ গত মৌসুমে এগিয়ে গিয়ে মাত্র ৫ পয়েন্ট হারিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

default-image

ম্যাচের শেষ দিকে দাপট ছিল ব্রাইটনের। শেষ ২০ মিনিটে কোনো শট ছিল না লিভারপুলের। ওদিকে ব্রাইটন নিয়েছে পাঁচটি শট। ম্যাচেও শট নেওয়ায় এগিয়ে ছিল তারা। তবে ম্যাচে সমতা ফেরাতে ভাগ্যের সহায়তা লেগেছে। ভিএআর সাহায্য না করলে আজ নিজেদের মাঠে হারতে হতো লিগের ১৭তম দলটিকে।

পয়েন্ট হারিয়ে ক্ষুব্ধ লিভারপুল অধিনায়ক হেন্ডারসন রেফারিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘আমি রিপ্লে দেখেছি। কে খুশি হবে? এটা পেনাল্টি না। মনে হচ্ছে প্রতি সপ্তাহে এখানে দাঁড়িয়ে আমরা বিভিন্ন ঘটনা (রেফারিং) নিয়ে কথা বলছি। আমি বিপদে পড়তে চাই না, কিন্তু এটা পেনাল্টি না। ড্যানি ওয়েলবেক বলেছে, এটা পেনাল্টি না। ওদের চার–পাঁচজনের মনে হয়েছে এটা পেনাল্টি না। মাঠের সিদ্ধান্ত বদলাতে হলে বিষয়টা নিশ্চিত হতে হয়। এটা কি নিশ্চিত পেনাল্টি ছিল যে স্ক্রিন দেখে সিদ্ধান্ত বদলাতে হবে?’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন