বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সেই দাবি মেটাতে গিয়েই সম্প্রতি সমালোচনার শিকার হয়েছেন এই সেন্টারব্যাক। গতকাল রোববার দলের সঙ্গে অনুশীলন শেষ করে সমর্থকদের অটোগ্রাফের আবদার মেটাচ্ছিলেন।

নিজের গাড়িতেই বসেছিলেন উমতিতি। স্বচ্ছ কাচে নিজেকে ঘিরে রেখেছিলেন, যাতে সমর্থকদের সংস্পর্শে না আসতে হয়। বেশ হাসিখুশিই দেখাচ্ছিল তাঁকে। বিপত্তিটা ঘটে এর পরেই, বার্সেলোনার হোম জার্সি পরা এক শিশু উমতিতির অটোগ্রাফ পাওয়ার জন্য উমতিতির গাড়ির কাঁচে শব্দ করতে থাকে সমানে। উমতিতি প্রথমে অত পাত্তা দেননি। অন্য অটোগ্রাফশিকারিদের দাবি-দাওয়া মেটাচ্ছিলেন হাসিমুখে।

কিন্তু সেই শিশু থামছিল না। থামছিল না দেখেই কিনা, ক্রমাগত গাড়ির কাচের শব্দ শুনে একটু বিরক্তই হলেন এই সেন্টারব্যাক। কাচে এতবার হাত দিচ্ছে, সেটা দেখেও হয়তো মনঃক্ষুণ্নই হলেন। হুট করে বলে বসলেন, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি তোমাকে। তোমার গাড়ি স্পর্শ করতে হবে না।’

ব্যস, আর যায় কোথায়! ছোট মানুষ, প্রিয় তারকাকে সামনে দেখে হয়তো একটু বেশিই উত্তেজিত হয়ে পড়েছিল। অটোগ্রাফ নেওয়ার জন্য তর সইছিল না তার। কিন্তু সে পরিস্থিতি ঠান্ডা মাথায় না সামলে রূঢ় প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন উমতিতি, যা সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। এক টুইটার যেমন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘উমতিতি, তোমার পক্ষে কি একটা কাজও ভালোভাবে করা সম্ভব নয়?’

default-image

এই মৌসুমের শুরুতেই উমতিতিকে ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে বার্সেলোনা। কেউ তাঁকে কিনতে যায়নি, বেতন বেশি বলে কেউ ধারেও নিতে রাজি হয়নি। এই জানুয়ারিতেও উমতিতিকে ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছিল বার্সেলোনা। কিন্তু অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই বার্সেলোনা ঘোষণা দেয়, অপাঙ্‌ক্তেয় হয়ে ওঠা উমতিতির চুক্তির মেয়াদ উল্টো বাড়ানো হয়েছে। উমতিতির পারিশ্রমিক কমিয়ে তাঁর সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেছে।

এতে লা লিগার বেঁধে দেওয়া সীমার মধ্যে নিজেদের বেতন খরচ কমিয়ে আনতে সমর্থ হয়েছে বার্সেলোনা। যে কারণে ফেরান তোরেসের মতো খেলোয়াড়দের নিবন্ধন করাতে সক্ষম হয়েছিল কাতালানরা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন