বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

২০২৪ সালের সংস্করণ থেকে দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশনের (কনমেবল) ১০টি সদস্যদেশ এ টুর্নামেন্টে অংশ নেবে। অর্থাৎ, শুধু ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা নয়, উরুগুয়ে, কলম্বিয়া, চিলি, প্যারাগুয়ের মতো দলগুলোও ইউরোপের দলগুলোর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে নেশনস লিগে।

পোল্যান্ডের খেলাধুলাবিষয়ক অনলাইন সংবাদমাধ্যম মেকজিকিকে বনিয়েক বলেন, ‘২০২৪ থেকে কনমেবল নেশনস লিগের সঙ্গে যোগ দেবে। তবে আমরা এখনো সূত্রটা জানি না। টুর্নামেন্টটি কীভাবে হবে, সেটাও অজানা। আমরা উয়েফা ও কনমেবল একে অন্যকে সহযোগিতার স্বার্থে পারস্পরিক সমঝোতার চুক্তি সই করেছি। ২০২৪ সাল থেকে এই দলগুলো নেশনস লিগে খেলবে।’

বনিয়েক জানান, দক্ষিণ আমেরিকার ৬টি দল লিগ এ-তে যোগ দেবে। বাকি ৪ দল যোগ দেবে লিগ বি-তে। খেলাগুলো ইউরোপেই হওয়ার কথা।

তবে নেশনস লিগে লাতিন দলগুলোর খেলার সম্ভাবনা নিয়ে সংবাদ সংস্থা এএফপিকে উয়েফার এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘কনমেবলের সঙ্গে উয়েফা বেশ কিছু বিষয়ে কাজ করছে। যৌথভাবে নেশনস লিগেও খেলার সম্ভাবনা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তবে এখনো কোনো কিছু চূড়ান্ত হয়নি, কোনো সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়নি।’

নেশনস লিগে দক্ষিণ আমেরিকার দলগুলো চলে এলে উয়েফা ও কনমেবলের মধ্যে যে হৃদ্যতা বাড়বে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। দুই পক্ষ গত সপ্তাহে একটি পারস্পরিক বোঝাপড়া চুক্তি সই করে, যেখানে ‘নিজেদের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানো’ এবং ‘নিজেদের ভৌগোলিক সীমারেখার বাইরে’ও ফুটবলের উন্নয়ন করাই লক্ষ্য।

default-image

সে লক্ষ্যেই কোপা আমেরিকা ও ইউরো চ্যাম্পিয়ন দলের মধ্যে ম্যাচ আয়োজন। ২০২২ সালের জুনে সেটির প্রথম সংস্করণে মুখোমুখি হবে বর্তমান কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা ও ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালি। ম্যাচটি হবে লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে।

উয়েফা ও কনমেবল বেশ আগেই থেকেই ফিফার দুই বছর পরপর বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রচারণার বিপক্ষে। আগামী সোমবার ফুটবলের ভবিষ্যৎ নিয়ে বৈশ্বিকভাবে বৈঠকে বসবে ফিফা। সেখানে দুই বছর পরপর বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হবে।

তার আগে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা-উরুগুয়েসহ লাতিন দলগুলোর নেশনস লিগে যোগ দেওয়ার খবর ফিফাকে ভাবাবে বৈকি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন