এই দুই লাইনের বেশি কিছু লেখেনি সিটি। তবে ওই দুই লাইনই যে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সিটি সমর্থকদের মনে আনন্দের বন্যা বইয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট, তা আর না বলে দিলেও চলছে!

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফের সাংবাদিক জেমস ডাকার অবশ্য দলবদল ফি-র খুঁটিনাটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়েছেন। আগে শোনা যাচ্ছিল, ডর্টমুন্ড থেকে হরলান্ডকে কেনার জন্য আগ্রহী ক্লাবকে সাড়ে সাত কোটি ইউরো দিতে হবে। কিন্তু ডাকারসহ বিভিন্ন নির্ভরযোগ্য সাংবাদিকদের তথ্যমতে, অত দিতে হচ্ছে না সিটিকে। ছয় কোটি ইউরোতেই রফা হয়েছে। ব্রিটিশ মুদ্রার হিসেবে পাঁচ কোটি দশ লাখ পাউন্ডের বিনিময়ে ইতিহাদে আসছেন এই ২১ বছর বয়সী স্ট্রাইকার।

২০২৭ সাল পর্যন্ত হরলান্ডের সঙ্গে চুক্তি করছে সিটি। তবে দলবদল ফি কম হলেও, এজেন্ট ফি, পাঁচ বছরে হরলান্ডের বেতন, অন্যান্য বোনাস মিলিয়ে হরলান্ডের পেছনে ২০২৭ সাল পর্যন্ত প্রায় ২১ কোটি ৩০ লাখ পাউন্ড খরচ হবে সিটির। এদিকে হরলান্ডের সাপ্তাহিক বেতন কতো হতে পারে, সে ব্যাপারেও একটা ইঙ্গিত দিয়েছেন দলবদল বিষয়ক নির্ভরযোগ্য সাংবাদিক ফাব্রিজিও রোমানো। জানিয়েছেন, ক্লাবের সর্বোচ্চ বেতনভোগী খেলোয়াড় কেভিন ডি ব্রুইনার সমান বেতনই পাচ্ছেন হরলান্ড, সপ্তাহে প্রায় পৌনে চার লাখ পাউন্ডের মতো।

২০০০ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত সিটিতেই খেলেছেন হরলান্ডের বাবা আলফ ইঙ্গ হরলান্ড। বাবার ক্লাব মাতাতে এবার আসছেন সন্তান। স্ট্রাইকার নেই স্ট্রাইকার নেই করে বছরখানেক সময় ধরে চিন্তায় থাকা পেপ গার্দিওলার সমস্যা কী দুর্দান্তভাবেই না সমাধান করল সিটি!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন