বিজ্ঞাপন

উরুগুয়ের ফুটবল ফেডারেশন দলের খেলোয়াড়দের ঠিকভাবে সামলাতে পারেনি বলেই মনে করেন সেরেজো। স্পেনের রেডিও কাদেনা সেরকে আতলেতিকোর সভাপতি বলেছেন, ‘খেলোয়াড়দের কোনো পরীক্ষাই করা হয়নি।’ সুয়ারেজ আর সেরেজোর আগেও আতলেতিকো দলে উরুগুয়ের ফুটবলাররা খেলেছেন। তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য দিয়েগো ফোরলান ও দিয়েগো গোদিন। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই হয়তো সেরেজো জানেন, দেশটির ফুটবলারদের সামলানো কত কঠিন। উরুগুয়ের ফুটবলারদের সামলানোর গল্প বলতে গিয়ে সেরেজো যোগ করেছেন, ‘(উরুগুয়ের) খেলোয়াড়েরা গোসল করে না। আমরা তাদের ম্যাচ ও অনুশীলনের আগে ও পরে নজরদারিতে রাখি।’

একসঙ্গে এতজন খেলোয়াড় করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় মন খারাপ উরুগুয়ের সহকারী কোচ সেলসো ওতেরোর। তবে তিনি হতাশ দায় চাপানোর জন্য কাউকে খোঁজা হচ্ছে দেখে, ‘আমার দুঃখ হচ্ছে যে বলির পাঠা খুঁজছি আমরা। আমরা সতর্কই ছিলাম। কিন্তু আমরা তো ধরাছোঁয়ার (ভাইরাসের) বাইরে নই।’ ওতেরোর এই যুক্তি ধোপে টিকছে না উরুগুয়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রী দানিয়েল সালিনাস টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করায়। ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, নয়জন খেলোয়াড় মিলে বারবিকিউ পার্টি করছেন। তাঁদের মধ্যে পাঁচজনই এখন করোনায় আক্রান্ত!

default-image

সালিনাস দুঃখের সঙ্গে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘নিশ্চিত করেই সতর্কতার অভাব ছিল।’ কলম্বিয়ার বিপক্ষে উরুগুয়ের ৩-০ গোলের জেতা ম্যাচের পর সবার আগে করোনা ধরা পড়ে ডিফেন্ডার মাতিয়াস ভিনার। তিনি ব্রাজিলের ক্লাব পালমেইরাসে খেলেছেন। ওই ক্লাবে সম্প্রতি ১৭ জন খেলোয়াড় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন