সর্বশেষ এএফসি কাপ বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংসের জন্য এখনো এক আক্ষেপের নাম। এএফসি কাপের ইতিহাসে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঢাকায় মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের লিগ চ্যাম্পিয়নরা। গত বছর মার্চে অনুষ্ঠিত সে ম্যাচে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার হার্নান বার্কোস, আনিসুর রহমানদের দাপট দেখে অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন ‘ই’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরবর্তী রাউন্ডে পা রাখতে যাচ্ছে বসুন্ধরা।

কিন্তু এরপরই করোনাভাইরাসের কারণে প্রথমে টুর্নামেন্টটি স্থগিত ও পরে বাতিল হয়ে যায়। এমন দাপুটে শুরুর পর টুর্নামেন্টটি বাতিল হয়ে যাওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েন দলের খেলোয়াড়, কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সমর্থকেরাও। সেই আক্ষেপ ঘুঁচতে পারে এবার। এএফসি কাপের এ মৌসুমের আসরে গ্রুপিংয়ের সঙ্গে চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে ম্যাচের সূচিও।

গত বুধবার চূড়ান্ত হয়েছে এএফসি কাপের গ্রুপিং। গ্রুপ ‘ডি’তে চার দলের তিনটি বাংলাদেশের বসুন্ধরা, ভারতের এটিকে মোহনবাগান ও মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস। চতুর্থ দলটিকে খেলে আসতে হবে বাছাইপর্ব। গ্রুপিং চূড়ান্ত হওয়ার পর থেকেই দর্শকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে দুই বাংলার বসুন্ধরা ও মোহনবাগান ক্লাবের ম্যাচটি। দুই দল একে অপরের বিপক্ষে তাদের শেষ ম্যাচটি খেলবে ২০ মে। এর আগে ১৪ মে বসুন্ধরার প্রথম ম্যাচটি মাজিয়ার বিপক্ষে আর ১৭ মে তাদের প্রতিপক্ষ বাছাইপর্ব পেরিয়ে আসা চতুর্থ দলটি। এখান থেকে কেবল চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলটিই পাবে পরবর্তী রাউন্ডের টিকিট।

বিজ্ঞাপন

চতুর্থ দল হিসেবে খেলার সুযোগ খোলা থাকছে বাংলাদেশের আবাহনী লিমিটেডেরও। সঙ্গে ভারত, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, মালদ্বীপ ও নেপালের একটি করে ক্লাবেরও এ সুযোগ থাকছে। এ জন্য আবাহনীকে পাড়ি দিতে হবে দুটি ধাপ। এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ দলের টিকিট পাওয়ার লড়াই। বাছাইপর্বে আবাহনীর প্রথম ম্যাচ ১৪ এপ্রিল। তাদের প্রতিপক্ষ ভুটানের থিম্পু সিটি ও মালদ্বীপের ইগলসের ম্যাচের বিজয়ী দল। একই দিনে নেপাল আর্মি ক্লাব ও শ্রীলঙ্কা পুলিশের মধ্যকার ম্যাচের জয়ী দলের বিপক্ষে খেলবে ভারতের বেঙ্গালুরু এফসি। এরপর গ্রুপ পর্বে ওঠার লড়াইয়ে ওই দুই পর্বের বিজয়ী দুই দল মাঠে নামবে ২১ এপ্রিল। তাদের মধ্যকার জয়ী দলটি হবে গ্রুপের চতুর্থ দল।

কিন্তু গ্রুপিং ও সূচি চূড়ান্ত হলেও এখনো ভেন্যু ঠিক হয়নি। আগেই জানা গিয়েছিল আগের মতো হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে নয়, করোনার কারণে নির্দিষ্ট একটি ভেন্যুতে খেলাগুলো হবে। আয়োজক হওয়ার সুযোগ থাকছে তিনটি ক্লাবেরই। এরই মধ্যে ক্লাবগুলোর আগ্রহের কথা জানাতে চেয়ে চিঠি পাঠিয়েছে এএফসি। বসুন্ধরা ক্লাব সূত্রে জানা গিয়েছে, দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজনে আগ্রহী নয় তারা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন