জোড়া পেনাল্টি মিস রামোসের!
জোড়া পেনাল্টি মিস রামোসের!ছবি: রয়টার্স

হালে সবচেয়ে দারুণ পেনাল্টি নেন কে? উত্তরে অধিকাংশ মানুষই সের্হিও রামোসের নাম বলবেন। আর বলবেন না-ই বা কেন? গত রাতের আগে ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে টানা ২৫টি স্পটকিক থেকে গোল করেছেন তিনি। সেই রামোসই কাল পেনাল্টি মিস করলেন! সে না হয় একটি ম্যাচে হতেই পারে, কিন্তু তাই বলে এক ম্যাচে দুটি! স্প্যানিশ তারকা যেন পেনাল্টি থেকে গোল করতেই ভুলে গেলেন। রামোসকে এই ভুলে যাওয়া স্বাদ উপহার দিয়েছেন সুইজারল্যান্ডের গোলরক্ষক ইয়ান সোমের। ইউরোপীয় নেশনস লিগে স্পেন-সুইজারল্যান্ডের মধ্যে ১-১ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচে সবচেয়ে বড় আলোচনার বিষয় তাই রামোসের জোড়া পেনাল্টি মিস।

রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েই গতকাল খেলতে নেমেছিলেন রিয়াল মাদ্রিদের অধিনায়ক। স্পেনের জার্সি গায়ে ১৭৭তম ম্যাচ খেলতে নেমে গতকাল ভেঙেছেন ইতালির সাবেক তারকা গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনের রেকর্ড। আর কোনো ইউরোপীয় খেলোয়াড় রামোসের চেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেননি।

default-image
বিজ্ঞাপন

সবশেষ কবে পেনাল্টি মিস করেছিলেন রামোস? গবেষণার বিষয় হতে পারে। পরিসংখ্যান ঘেঁটে জানা গেল, ২০১৮ সালের ৯ মে, সেভিয়ার বিপক্ষে পেনাল্টি মিস করার পর গত প্রায় আড়াই বছর ধরে স্পটকিকে রামোসকে কোনো গোলরক্ষক আটকাতে পারেননি। অথচ কালকেই সোমেরই আটকালেন দুবার। আতালান্তার মিডফিল্ডার রেমো ফ্রয়লারের গোলে সুইসরাই তখন এগিয়ে, ম্যাচে সমতা ফেরানোর জন্য মরিয়া স্পেন। সমতার প্রথম সুযোগ এল ৫৫ মিনিটে। কর্নার থেকে উড়ে আসা এক বল হেড করতে চেয়েছিলেন রামোস। কিন্তু বল গোলমুখে না গিয়ে আঘাত হানল এসি মিলানের সাবেক সুইস লেফটব্যাক রিকার্দো রদ্রিগেজের হাতে। পেনাল্টি পেল স্পেন। গোলরক্ষকের ডান দিকে একটু নিচ করে শটটা মেরেছিলেন রামোস। ডান দিকে দুর্দান্তভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেই শট আটকান সোমের।

দ্বিতীয় সুযোগটা আসে ৮০ মিনিটে। জুভেন্টাসের স্ট্রাইকার আলভারো মোরাতাকে ডি-বক্সের মধ্যে বাজেভাবে ফেলে দেন বরুসিয়া ম’গ্লাডবাখের ডিফেন্ডার নিকো এলভেদি। এলভেদি পান লাল কার্ড, পেনাল্টি নিতে এগিয়ে আসেন রামোস। যদিও পেনাল্টি নেওয়ার আগে কোচ লুইস এনরিকের সঙ্গে সাইডলাইনে পরামর্শ করেছিলেন এই তারকা। খবরে প্রকাশ, তখনই নাকি এনরিকে দ্বিতীয় পেনাল্টিটি মোরাতা যেন নেন, সেই পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু রামোস মানেননি। দ্বিতীয় পেনাল্টিটা ছিল প্রথমটার চেয়েও দুর্বল। পানেনকা কিক মারতে চেয়েছিলেন, ঠিকঠাক পারেননি। একদম শেষ মুহূর্তে রামোসের মনোভাব বুঝতে পেরে দ্বিতীয়বারের মতো পেনাল্টি আটকে দেন সোমের। টানা ২৫ পেনাল্টি থেকে গোল করার পর রামোস মিস করলেন টানা দুই পেনাল্টি।

শেষমেশ গোল করে স্পেনকে বাঁচিয়েছেন ভিয়ারিয়ালের স্ট্রাইকার জেরার্দো মোরেনো। লেফট উইং থেকে টটেনহামের লেফটব্যাক সের্হিও রেগিলনের মাটিঘেঁষা এক ক্রসে পা ঠেকিয়ে ৮৮ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান এই স্ট্রাইকার। নেশনস লিগের আরেক ম্যাচে ক্রোয়েশিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছে সুইডেন।

বরুসিয়া ম’গ্লাডবাখের সোমেরের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বেও আরেকটি ম্যাচ খেলতে হবে রামোসের রিয়াল মাদ্রিদকে। সে ম্যাচে রিয়াল কোনো পেনাল্টি পেলে রামোস নিতে আসেন কি না, দেখার বিষয়!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0