দুয়ারে কড়া নাড়ছে আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট। ঢাকায় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ও সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে ১৬ জানুয়ারি শুরু হবে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম প্রস্তুত করার কাজ শুরু হলেও সিলেট স্টেডিয়াম নিয়ে অন্ধকারে বাফুফে।
প্রাথমিক পর্বের চার ম্যাচের সঙ্গে একটি সেমিফাইনালও হওয়ার কথা সিলেটে। বিকেল ৫টায় শুরু হতে যাওয়া ম্যাচগুলো সরাসরি সম্প্রচার করবে চ্যানেল নাইন। কিন্তু সম্প্রচার-সুবিধার জন্য পর্যাপ্ত আলো জরুরি। সিলেট স্টেডিয়ামের ফ্লাডলাইটের যে আলো তা পর্যাপ্ত নয়, ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচারের অনুপযোগী। মাত্র ৭০০ লাক্স আলো সরবরাহ করতে পারে এই ফ্লাডলাইট। কিন্তু একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য প্রয়োজন ১২০০ লাক্স আলো। ওখানে ডিজিটাল স্কোরবোর্ড নেই। নেই ম্যাচের সময় নির্ধারণের ঘড়ি। ভিআইপি গ্যালারির জায়গা ছোট। ড্রেসিংরুম মোটেও আন্তর্জাতিক মানের নয়। প্রেসবক্সেরও একই অবস্থা।
গত আগস্টে নেপালের সঙ্গে জাতীয় দলের প্রীতি ম্যাচে ধারণক্ষমতার চেয়েও বেশি টিকিট ছাড়ায় দর্শক বাঁধভাঙা স্রোতের মতো গেট ভেঙে ঢুকে পড়েছিল মাঠে। সেই ভাঙা গেটও সংস্কারের প্রয়োজন। সব মিলিয়ে এত বড় মাপের টুর্নামেন্টের জন্য একেবারেই প্রস্তুত নয় সিলেট ভেন্যু। বাফুফে অবশ্য বঙ্গবন্ধু ও সিলেটের মাঠ তৈরির কাজ শুরু করে দিয়েছে। তবে বাকি কাজগুলো করতে হবে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদকেই (এনএসসি)। এনএসসির সচিব শিবনাথ রায় কাল অবশ্য দ্রুত কাজ শুরু করার আশ্বাস দিলেন, ‘এনএসসির পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মহোদয় সম্প্রতি সেখানে সরেজমিনে দেখে এসেছেন সবকিছু। স্টেডিয়ামের সংস্কার, ফ্লাডলাইটসহ অন্যান্য সুবিধা দিতে এ জন্য ১ কোটি ৭০ লাখ টাকার বাজেট করা হয়েছে। এই টাকা অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পেলেই কাজ শুরু করতে পারব। তা না হলে এনএসসির তহবিলের ৫০ লাখ টাকা দিয়েই সংস্কার করতে হবে। যদিও খেলা শুরু হতে বাকি আছে অনেক দিন। আশা করি, মন্ত্রী অনুমোদন দিলে সবকিছু দ্রুত শেষ করতে পারব।’

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন