default-image
>সাবেক আর্সেনাল কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারের মতে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের সবচেয়ে বড় দুই ফেবারিট ম্যানচেস্টার সিটি ও পিএসজি।

ইউরোপের ঘরোয়া লিগগুলো শেষ। এরই মধ্যে স্কটল্যান্ডে নতুন মৌসুমের লিগও শুরু হয়ে গেছে। তবে এই মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউট পর্বের অনেকটাই এখনো বাকি। করোনা-বিরতি কাটিয়ে সেই চ্যাম্পিয়নস লিগ আবার ফিরছে ৭ আগস্ট শুক্রবার থেকে। তো কোন দলটা হবে এবার ইউরোপ সেরা? সমর্থকেরা তো নিজের মতো করে অনুমান বা ভবিষ্যদ্বাণী করছেনই। কিন্তু এই প্রশ্নটাই যদি আর্সেন ওয়েঙ্গারের মতো বোদ্ধাকে করা হয়, তাহলে কী উত্তর আসবে? হ্যাঁ, কিংবদন্তি ফরাসি কোচও তাঁর অনুমানটা বলে দিয়েছেন। সাবেক আর্সেনাল কোচের মতে, এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের সবচেয়ে বড় দুই ফেবারিট ম্যানচেস্টার সিটি ও পিএসজি।

আর্সেনালকে দীর্ঘ ২২ বছর কোচিং করানো ওয়েঙ্গার ২০১৮ সালে এমিরেটসের দায়িত্ব ছাড়ার পর কিছুদিনের বিশ্রামে ছিলেন। এর পরে দায়িত্ব নেন ফিফার ফুটবল ডেভেলপমেন্ট বিভাগের প্রধান হিসেবে। ফরাসি একটি রেডিও স্টেশনের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে তিনি বেছে নিয়েছেন এই মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের জন্য তাঁর দুই ফেবারিট।

এরই মধ্যে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে পিএসজি, আতালান্তা, লাইপজিগ ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। শেষ আটে ফরাসি চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে খেলবে আতালান্তা, অ্যাটলেটিকো খেলবে লাইপজিগের বিপক্ষে। শেষ ষোলোর ফিরতি লেগের ম্যাচগুলোতে খেলবে ম্যানচেস্টার সিটি-রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ-চেলসি, জুভেন্টাস-লিঁও ও বার্সেলোনা-নাপোলি। প্রথম লেগে সিটি রিয়ালের মাঠ থেকে জিতে এসেছে ২-১ গোলে, বায়ার্ন চেলসির মাঠে জিতেছে ৩-০ গোলে, লিঁও নিজের মাঠে জুভেন্টাসকে হারিয়েছে ১-০ গোলে, নেপলসে ১-১ ড্র হয়েছে নাপোলি-বার্সেলোনা ম্যাচ।

ফিরতি লেগে তাই সিটি আর বায়ার্নকে এগিয়ে রাখছেন অনেকেই। রিয়ালকে পেরিয়ে যেতে পারলে শেষ আটে সিটির সামনে পড়বে লিঁও-জুভেন্টাস ম্যাচে দুই লেগ মিলিয়ে জয়ী দলটা। তবে এবার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে শুরু করে বাকি সব ম্যাচ হবে এক লেগের এবং সব ম্যাচই হবে পর্তুগালের লিসবনে। সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে এর আগে কখনো চ্যাম্পিয়নস লিগ না জেতা দুই দলকেই ফেবারিট মনে হচ্ছে ওয়েঙ্গারের। তাঁর কথা, ‘আপনি যখন আতালান্তা বা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মতো দলের বিপক্ষে খেলবেন, যেকোনো কিছুই হতে পারে। তবে আমার মনে হচ্ছে, সামর্থ্য অনুযায়ী এবার ম্যানচেস্টার সিটি ও পিএসজি শিরোপার বড় দুই দাবিদার।’

মধ্যপ্রাচ্যের দুই শেখের মালিকানায় থাকা দুটি ক্লাবই ইউরোপ সেরা হওয়ার জন্য অনেক বছর ধরে বড় বিনিয়োগ করে আসছে। কিন্তু সিটি সর্বোচ্চ একবার সেমিফাইনাল খেলেছে ২০১৫-১৬ মৌসুমে। ১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে সেমিফাইনাল খেলেছে পিএসজি। তবে এবার যেহেতু কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে এক লেগের হয়ে যাচ্ছে টুর্নামেন্ট, চমক দেখা যেতেই পারে।

ওয়েঙ্গার অবশ্য মনে করেন, পিএসজির এই দলটার চেয়ে কয়েক বছর আগের দলটা আরও ভালো ছিল। তারপরেও কেন এত দিন ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা ইউরোপ সেরা হতে পারেননি, এ নিয়ে নানা মত আছে। তবে আগে জিততে পারেনি বলে এবারও পারবে না, এমন তত্ত্বে বিশ্বাসী নন ওয়েঙ্গার, ‘পিএসজি আগে কেন পারেনি, এসব ফালতু কারণ খুঁজে লাভ নেই আসলে। এমনকি রিয়াল মাদ্রিদও ১০-১৫ বছর জিততে পারেনি, তারপর আবার টানা তিনবার জিতেছে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0