মেসিকে ছাড়াই কিয়েভ যাচ্ছে বার্সেলোনা।
মেসিকে ছাড়াই কিয়েভ যাচ্ছে বার্সেলোনা। ছবি: রয়টার্স

ফর্মের কারণে লিওনেল মেসি ক্যারিয়ারে কখনো বাদ পড়েছেন—এমনটা সম্ভবত কখনো হয়নি। ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে এখন বার্সেলোনার ৩৩ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের ফর্মে একটু মরচে ধরেছে বটে, কিন্তু সেটিও একেবারে তাঁকে দল থেকে বাদ দেওয়ার মতো নয়।

ফর্মের কারণে নয়, তবে মেসিকে ঠিকই দল থেকে বাইরে রাখছে বার্সেলোনা। আগামীকাল বাংলাদেশ সময় রাত দুইটায় চ্যাম্পিয়নস লিগে দিনামো কিয়েভের মাঠে খেলতে নামবে বার্সা, সে ম্যাচের জন্য আজ ১৯ জনের দল ঘোষণা করেছেন বার্সা কোচ রোনাল্ড কোমান। দলে রাখা হয়নি মেসিকে। নেই মিডফিল্ডার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংও।

দুজনকে কেন রাখেননি, সেই ব্যাখ্যাও আজ সংবাদ সম্মেলনে দিয়েছেন কোমান, ‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, মেসি ও ডি ইয়ং (দলের সঙ্গে কিয়েভে) যাবে না। কারণ, চ্যাম্পিয়নস লিগে পয়েন্টের দিক থেকে আমরা একটু সুবিধাজনক অবস্থানে আছি। আর এই দুজনেরই বিশ্রামের দরকার। ওরা অনেক ম্যাচ খেলেছে।’

বিজ্ঞাপন

কোমানের দাবি অবশ্য ঠিকই। এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচ খেলেছে বার্সেলোনা, তিনটিতেই জিতেছে। গোল করেছে ৯টি, খেয়েছে দুটি। ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে বার্সা, ৬ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাস। তিনে থাকা দিনামো কিয়েভ ও চারে থাকা ফেরেনৎসভারোসের পয়েন্ট ১, গোল ব্যবধানে এগিয়ে তিনে কিয়েভ। কাল জিতলেই শেষ ষোলোতে যাওয়া নিশ্চিত হয়ে যাবে বার্সেলোনার। প্রতিপক্ষ যখন কিয়েভ, এমন ম্যাচে মেসিকে বিশ্রাম তো দিতেই পারেন বার্সা কোচ!

মৌসুমে এখন পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে ১১টি ও আর্জেন্টিনার জার্সিতে ৪টি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। এর মধ্যে গত এক মাসে ধকলটা একটু বেশিই গেছে তাঁর ওপর। এই বার্সার জার্সিতে খেলছেন, তো দক্ষিণ আমেরিকা উড়ে গিয়ে আর্জেন্টিনার জার্সিতে পুরো ৯০ মিনিট খেলছেন। এর মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সাড়ে তিন হাজার মিটার উচ্চতার বলিভিয়ার মাঠে আর্জেন্টিনার হয়ে ৯০ মিনিট খেলার তিন দিন পরই আবার বার্সার জার্সিতে হেতাফের মাঠে পুরো ৯০ মিনিট খেলেছিলেন। সে সময় মেসিকে পুরো ম্যাচ খেলানোয় কোমানের বেশ সমালোচনা হয়েছিল।

default-image

এর আগেও অবশ্য মেসিকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন কোমান। এবারের আন্তর্জাতিক বিরতির আগে ক্লাবের হয়ে শেষ ম্যাচে লিগে বেতিসের বিপক্ষে একাদশে মেসিকে রাখেননি বার্সা কোচ। সেদিন বার্সার ৫-২ গোলে জয়ের পথে বিরতির পর নেমে জোড়া গোল করেছিলেন মেসি। এর মধ্যে দ্বিতীয় গোলটি তাঁর মৌসুমে ‘ওপেন প্লে’ বা দলের সরাসরি আক্রমণ থেকে পাওয়া মেসির একমাত্র গোল।

ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং তো মেসির চেয়েও বেশি খেলেছেন। বার্সার হয়ে ১১ ম্যাচ, নেদারল্যান্ডসের জার্সিতে ৭ ম্যাচ। অবশ্য তাঁর বয়স ২৩, সে ক্ষেত্রে ৩৩ বছর বয়সী মেসির চেয়ে বেশি ধকল নিতে পারারই কথা। তবু বিশ্রাম তো দরকার হয়ই!
ডি ইয়ং অবশ্য খুব একটা আলো না ছড়াতে পারলেও একেবারে খারাপ খেলছেন না। তবে মেসিকে নিয়ে কদিন ধরেই প্রশ্ন উঠছে বারবার। বিশেষ করে গত পরশু লিগে

আতলেতিকো মাদ্রিদের মাঠে বার্সার ১-০ গোলে হারের পর প্রশ্নগুলো যেন ডানা মেলেছে। মেসি ম্যাচটাতে ছিলেন অচেনা, বার্সাও ধুঁকেছে। এই ম্যাচে জিতে আতলেতিকো যেখানে মৌসুমের শুরুতেই শিরোপার দাবি জানিয়ে রেখেছে অনুচ্চারে, বার্সার লিগ শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা যেন এই এক ম্যাচেই অনেকটা কমে গেছে।

মৌসুমে এখন পর্যন্ত লিগ ও চ্যাম্পিয়নস লিগ মিলিয়ে ১১ ম্যাচে মেসির গোল ৬টি, করিয়েছেন দুটি। এর মধ্যে চ্যাম্পিয়নস লিগে অবশ্য ভালোই খেলেছেন, ৩ ম্যাচে ৩ গোল করেছেন, ২টি করিয়েছেন। কিন্তু সরাসরি আক্রমণ থেকে গোল না পাওয়া, দলের পারফরম্যান্সে আগের মতো ছাপ রাখতে না পারা—সব মিলিয়ে মেসিকে নিয়ে প্রশ্ন উঠছেই। আজও যেমন কোমানের সংবাদ সম্মেলনে মেসির ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বার্সা কোচ তাতে বিরক্ত হয়েই উত্তর দিয়েছেন, ‘আমরা (সংবাদ সম্মেলনে) মেসিকে নিয়ে একটু বেশিই কথা বলছি! এই ক্লাবের পারফরম্যান্সে ওর খেলার প্রভাব সব সময়ই অনেক বেশি ছিল, এখনো সেটা দেওয়ার ক্ষমতা ওর আছে। আমি এ ব্যাপারে নিশ্চিত, আমাদের ওকেই দরকার।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন