পানেনকা পেনাল্টি নিচ্ছেন অ্যাডেমোলা লুকম্যান।
পানেনকা পেনাল্টি নিচ্ছেন অ্যাডেমোলা লুকম্যান। ছবি: রয়টার্স

ফুলহাম তখন ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে ১-০ গোলে পিছিয়ে। তাও আবার ৯১ মিনিটের গোলে। রেফারি বারবার ঘড়ির দিকে তাকাচ্ছেন। যার মানে শেষ বাঁশি বাজতে বেশি সময় আর বাকি নেই। এমন সময়ে ফুলহামের জন্য আশার আলো হয়ে এল ভিএআরের একটি সিদ্ধান্ত। ওয়েস্ট হামের বক্সের মধ্যে ফাউল পায় ফুলহাম। যার মানে দাঁড়ায় পেনাল্টি থেকে গোল করে ড্র করে ম্যাচ শেষ করার সম্ভাবনা।

কিন্তু বিধি বাম, পেনাল্টি থেকে গোল হলে তো! পেনাল্টিটি নিতে এগিয়ে যান ফুলহামের ধারের খেলোয়াড় অ্যাডেমোলা লুকম্যান। লাইপজিগ থেকে আসা লুকম্যান পেনাল্টি থেকে গোল করতে চেয়েছিলেন একটু কায়দা করে। ‘পানেনকা’ স্টাইলে! কিন্তু সবাই কি আর পানেনকা পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারে? লুকম্যান তো আর আন্দ্রেয়া পিরলো বা সের্হিও রামোস নন যে পানেনকা পেনাল্টি নিয়ে গোলকিপারকে সহজেই বোকা বানিয়ে গোল করে ফেলবেন!

default-image
বিজ্ঞাপন

লুকম্যানের পানেনকা পেনাল্টি সোজা চলে যায় ওয়েস্ট হামের গোলকিপার ফাবনস্কির কোলে। শটটি নিয়েই গোল উদ্‌যাপনের জন্য দৌড় দিতে চলেছিলেন লুকম্যান। কিন্তু সহজ পেনাল্টিটি ফাবনস্কি ধরে ফেলার পর হতাশায় প্রথমে মাথায় হাত দেন লুকম্যান। এরপর মুখ ঢেকে ফেলেন। লুকম্যানের এই কাণ্ডে হতাশ ফুলহামের কোচ স্কট পার্কারও। ফুলহাম কোচ রীতিমতো ক্ষুব্ধও, ‘আমি হতাশ ও ক্ষুব্ধ। আপনি এভাবে পেনাল্টি নিতে পারেন না।’

ফুলহামের ইংলিশ উইঙ্গারের বয়স মাত্র ২৩ বছর। এখনো তরুণ বলে এই ভুলকে মাফ করে দেওয়ার কথাও বলেছেন পার্কার, ‘সে তরুণ একজন খেলোয়াড়, এখনো অনেক কিছু শিখছে।’ তবে একটা লুকম্যানকে একটা পরামর্শও দিয়েছেন তিনি, ‘সবার বুঝতে হবে যে ও একটা ভুল করেছে। তবে তরুণদের খুব দ্রুতই বিষয়গুলো শিখতে হবে। সে নিজেও এটা নিয়ে হতাশ। আর এটা ফুটবলেরই অংশ।’

default-image

এমন একটি বুলের পরও অবশ্য লুকম্যান কোচ পার্কার আর তাঁর সতীর্থদের পাশেই পাচ্ছেন। পার্কার বলেছেন, ‘অ্যাডে এখানে আসার পর থেকেই ভালো খেলছে। বয়সটা একটু কম হলে ভুল তো কেউ করতেই পারে।’ ফুলহামের মিডফিল্ডার টম কেয়ারনি লুকম্যানের প্রতি সমর্থন জানিয়ে বলেছেন, ‘অ্যাডেমোলা ভেঙে পড়েছে। ও সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছে। সে এখনো বয়সে তরুণ। এখানে শুরুটা ভালোই করেছে এবং আমাদের দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এক খেলোয়াড়। আমরা তার পাশেই থাকছি। ওর মানসিকতা ঠিক রাখতে সাহায্য করব।’

কেয়ারনি অবশ্য পয়েন্ট হারানোর বেদনা ভুলতে পারেননি, ‘সে আমাদের একটি পয়েন্ট এনে দিতে পারত।’ চলতি মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগে ৬ ম্যাচ খেলে একটি গোল করা লুকম্যানের পাশে দাঁড়িয়েছেন ফুলহামের আরেক মিডফিল্ডার হ্যারিসন, ‘ও ক্ষমা চেয়েছে। তাই আমরাও এটা ভুলে গিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই। সে লজ্জিত, আমরা সবাই আসলে হতাশ।’

default-image
বিজ্ঞাপন

সতীর্থরা বিষয়টি নিয়ে লুকম্যানের পাশে থাকলেও লুকম্যানকে ধুয়ে দিয়েছেন প্রিমিয়ার লিগের কিংবদন্তি ইয়ান রাইট, ‘এমন অপেশাদার কাজ আমি অনেক দিন পর দেখলাম। আমি জানি না সে কী ভাবছে। এটা খুব বাজে ব্যাপার হয়েছে এবং অপেশাদার কাজ। এই পেনাল্টি থেকে গোল করা উচিত ছিল। গোলকিপার যদি কষ্ট করে সেভ করত, তাহলে অন্য কথা ছিল!’

মন্তব্য পড়ুন 0