বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

খেলা তো হচ্ছে না। সময় কাটে কীভাবে?

বিশাল পাঁচ তারকা হোটেল শুয়েবসে সময় কাটাই। পরিবারের সঙ্গে কথা বলি। সিনেমা দেখি...এই আরকি! তবে এই মুহূর্তে অনুশীলনে যাচ্ছি, টিম বাসে আছি। হোটেল থেকে অনুশীলন মাঠ ৩০–৩৫ মিনিটের পথ।

default-image

দুই দিন পিছিয়ে কাল (আজ) তৃতীয় দিনেও বাংলাদেশ–সেশেলস ম্যাচ হবে মনে হয়?

হবে কি না, জানি না। এখানে এখন বৃষ্টির মৌসুম। ফলে আকাশের কান্নাই শুনতে হচ্ছে বেশি। আজ সকালেই নাশতার পর জানলাম, টানা দ্বিতীয় দিনের মতো আমাদের ম্যাচটা হবে না। আগামীকাল (আজ) ম্যাচটা হবে বলা হচ্ছে, কিন্তু নিশ্চিত হতে পারছি না।

default-image

শ্রীলঙ্কা ফুটবল ফেডারেশন আগে অনুমান করতে পারেনি যে এমন অবস্থা হবে? আপনার কী মনে হয়?

সম্ভবত তারাও বুঝতে পারেনি। নইলে এই সময়ে এমন টুর্নামেন্টের উদ্যোগ কেন! ৫ নভেম্বর আমরা কলম্বো আসার পর থেকেই দেখছি টানা বৃষ্টি। ২ ঘণ্টা বৃষ্টি হলো, এরপর হয়তো ২ ঘণ্টা নেই। আবার শুরু হলো। আবার বৃষ্টি, আবার থামল। বৃষ্টিতে এভাবে কোনো ফুটবল টুর্নামেন্ট বিঘ্নিত হতে পারে আমার জানা ছিল না। অবশ্য এটাই আমার প্রথম শ্রীলঙ্কা সফর। এখানে এসে এমন বৃষ্টির চক্করে পড়ব, ভাবিনি।

default-image

মূল ভেন্যু কলম্বোর রেসকোর্স মাঠে অনুশীলনের সুযোগ হয়েছে আপনাদের?

না, ওই মাঠে অনুশীলন করা হয়নি। হবে কি না, জানি না। প্রথম দিন কলম্বোর একটা ঘাসের মাঠে অনুশীলনের পর থেকে টার্ফে অনুশীলন করছি। কারণ, বৃষ্টিতে ঘাসের মাঠের অবস্থা খারাপ।

default-image

বৃষ্টিবাধা পেরিয়ে কাল (আজ) সেশেলসের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি মাঠে গড়ালে জিততে পারবেন?

অবশ্যই জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চাই। আমরা এখানে এসেছি শিরোপা জিততে। সেই পথে প্রথম ম্যাচটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

default-image

সেশেলস সম্পর্কে কোনো ধারণা আছে?

ওদের সঙ্গে আগে খেলিনি আমরা। কলম্বোয় এসে আমাদের প্রথম দিনের অনুশীলন শেষে একই মাঠে সেশেলসও অনুশীলনে নামে। তখন দেখেছিলাম ওরা শারীরিকভাবে বেশ বড় ও লম্বা। এই জায়গায় ওরা আমাদের চেয়ে এগিয়ে। তবে স্কিলে আমরা ভালো। তা ছাড়া ওদের কিছু ম্যাচ ভিডিও দেখে মনে হয়েছে, আমাদের জেতা উচিত। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ওরা ১৯৯, আমরা ১৮৭। এই ব্যবধান মাঠেও দেখাতে চাই আমরা। তবে সব ছাপিয়ে অবশ্যই বড় চিন্তা ম্যাচ হবে কি না (হাসি)। দেখা যাক।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন