আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার ডিয়েগো ম্যারাডোনা।
আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার ডিয়েগো ম্যারাডোনা। ছবি: রয়টার্স

আনন্দের উপলক্ষ ছিল ডিয়েগো ম্যারাডোনার সামনে। শুক্রবার ৬০তম জন্মদিনের কেক কাটবেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। কিন্তু ম্যারাডোনাকে কেক বোধ হয় একাই কাটতে হতে পারে। করোনাভাইরাসের ভয়ে নিজেকে কোয়ারেন্টিনে রেখেছেন ১৯৮৬ বিশ্বকাপ কিংবদন্তি। আর্জেন্টিনার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে এ খবর।

ম্যারাডোনার এক দেহরক্ষীর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছে। জ্বরের পাশাপাশি স্বাদ-গন্ধ হারিয়ে ফেলেছেন তিনি। এরপরই নিজেকে ঘরবন্দী রাখার সিদ্ধান্ত নেন ম্যারাডোনা। আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ‘ওলে’ জানিয়েছে, ‘দেহরক্ষীর করোনা উপসর্গ দেখা দেওয়ার পর কোভিড-১৯ পরীক্ষা না হওয়া পর্যন্ত সাবধানতা হিসেবে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন।’ আর্জেন্টিনার আরেক সংবাদমাধ্যম ‘পাহিনা/১২’ তাদের সূত্র মারফত জানিয়েছে, ‘সাবধানতা হিসেবে এবং আরও তথ্য না পাওয়া পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে থাকবেন ম্যারাডোনা।’

বিজ্ঞাপন
৫৯ বছর বয়সী ম্যারাডোনার শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস আক্রান্তের লক্ষণ এখনো দেখা যায়নি। কাল তাঁর পরীক্ষা করানোর কথা রয়েছে।

আর্জেন্টিনার প্রথম বিভাগের দল হিমনাসিয়ার কোচের দায়িত্বে রয়েছেন ম্যারাডোনা। শুক্রবার তাঁর দলের ম্যাচ রয়েছে। এর মধ্যে ম্যারাডোনা কোয়ারেন্টিনে চলে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই বিপাকে পড়বে হিমনাসিয়া। ৫৯ বছর বয়সী ম্যারাডোনার শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস আক্রান্তের লক্ষণ এখনো দেখা যায়নি। কাল তাঁর পরীক্ষা করানোর কথা রয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় নানা স্বাস্থ্যগত সমস্যায় ভুগেছেন ম্যারাডোনা। করোনার এ সময়ে তাঁকে নিয়ে ঝুঁকিটা তাই রয়েই যায়। শুধু ম্যারাডোনা নয়, রিভারপ্লেটের কোচ মার্সেলো গ্যালার্দোও কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন তিনি, পরে জানা যায় সেই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত।

default-image

জন্মদিন নিয়ে এর আগে ‘ফ্রান্স ফুটবল’-এর সঙ্গে আলাপচারিতায় বেশ মজাও করেছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এ ফুটবলার। সামনে যেহেতু জন্মদিন, তাই সাফল্যমণ্ডিত ক্যারিয়ারের আলোকে উপহার নিয়ে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল ম্যারাডোনাকে। আর্জেন্টিনার সাবেক এ অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার ইংল্যান্ডকে খোঁচা মারার সুযোগটা ছাড়েননি।

৬০তম জন্মদিনে কোনটি হতো সেরা উপহার—এ প্রসঙ্গে ম্যারাডোনা বলেন, ‘ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটি গোল করার স্বপ্ন দেখি। এবার ডান হাতে।’ ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ডান হাতে বিতর্কিত এক গোল করেছিলেন ম্যারাডোনা। রেফারির চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল গোলটি। পরে ম্যারাডোনা ভীষণ বিতর্কিত সেই গোলকে ‘হ্যান্ড অব গড’ আখ্যা দেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0