default-image

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কথাটা অন্তত চিকিৎসাব্যবস্থার সঙ্গে জড়িত কারও ভালো লাগার কথা না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করোনা পরীক্ষাকে ‘ভুয়া’ বলেছিলেন রোনালদো। পরে মন্তব্যটি ইনস্টাগ্রাম থেকে মুছেও ফেলেন। ততক্ষণে অবশ্য যা হওয়ার হয়ে গেছে।

রোনালদোর মন্তব্যটি ভাইরাল হয়, সংবাদমাধ্যমও লুফে নেয়—   সে কারণে জুভেন্টাস তারকার মন্তব্য ইতালিয়ান ভাইরাসবিদ রবার্তো বুরিওনির চোখ এড়ায়নি। রোনালদোর সমালোচনাই করেছেন ‘ইতালির সবচেয়ে বিখ্যাত ভাইরাসবিদ।’

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা নিয়ে বুরিওনি-ই প্রথম সতর্ক করেছিলেন ইতালিকে। যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছিলেন তিনি। করোনা পরীক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে রোনালদোর সমালোচনা কানে আসার পর একটু অন্যভাবে পর্তুগিজ তারকার সমালোচনা করেছেন বুরিওনি। কথায় শ্লেষাত্মক রস মিশিয়ে বুরিওনির টুইট, ‘ভাইরাসবিদদের বিশাল বহরে সহকর্মী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে স্বাগত জানাই। চক্ষু বিশেষজ্ঞদের বিপক্ষে পরের ম্যাচে তাকে ভীষণ দরকার হবে।’

অর্থাৎ বুরিওনি বোঝাতে চেয়েছেন, করোনা পরীক্ষার ব্যাপারে রোনালদো এতটাই জেনে ফেলেছেন যে, বিশেষজ্ঞ মতামত দিয়ে এ ব্যবস্থাকে ভুয়া বলেছেন। বুরিওনি তাই শ্লেষ মিশিয়েই রোনালদোকে ‘ভাইরাসবিদ’দের কাতারে ফেলেছেন।

এদিকে রোনালদো ভুগছেন মনঃকষ্টে। মাঠে নামতে পারছেন না, জুভেন্টাস ওদিকে তাঁকে ছাড়া ভালো করতে পারছে না। চ্যাম্পিয়নস লিগে কাল রাতে বার্সেলোনার কাছে ২-০ গোলে হারে জুভেন্টাস। এ ম্যাচের ২৪ ঘণ্টা আগে রোনালদো করোনা পরীক্ষায় ‘নেগেটিভ’ হলে সম্ভবত খেলতে পারতেন। কিন্তু সেটি ঘটেনি। দুই সপ্তাহ আগে নেশনস কাপে দেশের দায়িত্ব পালনের সময় করোনা পজিটিভ হন রোনালদো।

পর্তুগাল থেকে ইতালিতে ফেরার পর কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এ তারকা। এর মধ্যে পর্তুগিজ টিভি চ্যানেল ‘টিভি১’ জানিয়েছে পাঁচবার ব্যালন ডি’অর জয়ী রোনালদো নাকি ১৮ বার করোনা পজিটিভ হয়েছেন। অর্থাৎ করোনার পিসিআর পরীক্ষা নিয়ে ভালোই ধারণা পেয়ে যাওয়ার কথা রোনালদোর।

বিজ্ঞাপন

কোয়ারেন্টিনে থাকাকালীন অবশ্য রোনালদোর শরীরে করোনার কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি। ঘরেই চুটিয়ে নিজের ফিটনেস ঝালাই করে যাচ্ছেন জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি নিজেই জানিয়েছেন, সুস্থ আছেন এবং ভালো বোধ করছেন। কিন্তু মাঠে নামায় বাধ সাধছে শুধু করোনা পরীক্ষা, যা করালেই পজিটিভ আসছে! রোনালদো তাই সম্ভবত বিরক্তি থেকেই ইনস্টাগ্রামে করোনা পরীক্ষাকে ‘ভুয়া’ বলেছিলেন।

ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে তিনি নিজের সুস্থতার কথা জানিয়ে লেখেন, ‘সুস্থ ও ভালো অনুভব করছি। এগিয়ে যাও জুভেন্টাস।’ এ পোস্টেরই মন্তব্যে রোনালদো লেখেন, ‘পিসিআর পরীক্ষা ভুয়া।’ করোনা শনাক্তের জন্য পিসিআর টেস্ট (পলিমেরাস চেইন রি-অ্যাকশন) করা হয়। বিশ্বব্যাপী এটি স্বীকৃত পদ্ধতি। গলনালি শ্লেষ্মা কিংবা থুতু নিয়ে এ পরীক্ষা করা হয়। রোনালদো এ পরীক্ষার ফল কতটা নির্ভুল তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। যদিও দেড় ঘণ্টা পর পিসিআর পরীক্ষা নিয়ে করা মন্তব্যটি মুছে ফেলেন তিনি। ইনস্টাগ্রামে রোনালদোর অনুসারী ২৪ কোটি ১০ লাখ।

রোনালদো কবে মাঠে নামতে পারবেন তা এখনো নিশ্চিত নয়। লিওনেল মেসির বার্সেলোনার মুখোমুখি হতে তাঁকে এখন ফিরতি লেগের অপেক্ষায় থাকতে হবে। তার আগে অবশ্যই করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হতে হবে রোনালদোকে। কিন্তু পর্তুগিজ তারকার তো পরীক্ষা-পদ্ধতিতেই বিশ্বাস নেই—এটি সম্ভবত মাঠে নামার তর সইছে না বলে!

মন্তব্য পড়ুন 0