default-image
>ফ্লুমিনেন্স করোনাভাইরাসের এই প্রকোপের মধ্যে ফুটবল না ফেরানোর পক্ষে ছিল। এই সময়ে ফুটবল না খেলার আবেদনও করেছিল তারা। সেই লড়াইটি অবশ্য জিততে পারেনি

করোনাভাইরাস হাসপাতালের পাশে ম্যাচ খেলবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছিল ফ্লুমিনেন্সে। এটা নিয়ে আইনি লড়াই পর্যন্ত করতে হয়েছে ব্রাজিলের অন্যতম শীর্ষ ক্লাবটিকে। কাল সেই লড়াই জিতেছে ফ্লুমিনেন্সে।

ব্রাজিলে ভয়ংকর রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। হু-হু করে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। হাসপাতালে নেই পর্যাপ্ত শয্যা। সব রোগিকে তাই সেবা দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না। সংকট কাটিয়ে উঠতে রিও ডি জেনিরোর বিখ্যাত স্টেডিয়াম মারাকানাতে গড়ে তোলা হয়েছে অস্থায়ী করোনা হাসপাতাল।

কিন্তু হাসপাতাল গড়ার কিছুদিন পরই রিও ডি জেনিরোতে প্রায় তিন মাসের বিরতির পর ফুটবল চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে রিও ডি জেনিরোর প্রাদেশিক প্রতিযোগিতার কয়েকটি ম্যাচ হয়েছে। খেলাগুলো হচ্ছে মারকানা স্টেডিয়ামে, দর্শক ছাড়াই। কিন্তু করোনা হাসপাতালের পাশে ম্যাচ খেলতে রাজি হয়নি ফ্লুমিনেন্স।

এ নিয়ে আইনি লড়াই জয়ের পর ক্লাবটির সভাপতি মারিও বিত্তেনকুর্ত বলেছেন, ‌'মারাকানায় (কোভিড-১৯) হাসপাতালের পাশে ম্যাচ হওয়া উচিত নয় বলেই মনে করি আমি।' রিও ডি জেনিরোর ফুটবল ফেডারেশন প্রাদেশিক টুর্নামেন্টে ভোলতা রেদোনদার বিপক্ষে ফ্লুমিনেন্সের ম্যাচটি এখন নিল্টন সান্তোস অলিম্পিক স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হবে বলে। ম্যাচটি হবে আগামীকাল।

ফ্লুমিনেন্স করোনার এই প্রকোপের মধ্যে ফুটবলই না ফেরানোর পক্ষে ছিল। এই সময়ে ফুটবল না খেলার আবেদনও করেছিল তারা। সেই লড়াইটি অবশ্য জিততে পারেনি। তাই আগামীকালের ম্যাচটি তাদের খেলতেই হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0