default-image

স্প্যানিশ ফুটবল বিশেষজ্ঞ ও লেখক গিয়েম বালাগ এই দাবি করেছেন। মেসি, রোনালদো ও গার্দিওলার জীবনী লেখা এই সাংবাদিক বলছেন, ২৩ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড যেন পিএসজিতে থেকে যান সেটা নিশ্চিত করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। বাজারে গুঞ্জন, আগামী মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিলে স্প্যানিশ ক্লাবটি চুক্তি স্বাক্ষরের বোনাস বাবদ এমবাপ্পেকে ৭ থেকে ৮ কোটি ইউরো দেবে। আর চুক্তিটা হবে অন্তত পাঁচ বছরের। এরই পাল্টা প্রস্তাব নাকি দিয়েছে এমবাপ্পে। মাত্র দুই বছরের চুক্তি করলেই এমবাপ্পেকে ১৮ কোটি ইউরো বোনাস দেওয়া হবে। অর্থাৎ এক স্বাক্ষরেই বছরে ৯ কোটি ইউরো নিশ্চিত হয়ে যাবে তাঁর!

শুধু তাই নয়, এমবাপ্পে এজেন্টের ভূমিকায় থাকা তাঁর বাবা-মায়ের জন্যও বড় অঙ্কের বোনাস রাখছে পিএসজি। এমবাপ্পের ক্যারিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে তাঁরা প্রভাব রাখেন। শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত এমবাপ্পে নিলেও তাঁদের ইচ্ছা-অনিচ্ছা ভূমিকা রাখবে। এমবাপ্পে যেন ‘সঠিক’ সিদ্ধান্তটা নেন, সেটা নিশ্চিত করতে পিএসজি তাঁর পরিবারকেও টোপ দিয়েছে। এমবাপ্পে ক্লাবে থেকে গেল তাঁর বাবা-মাকে আরও ৫ কোটি ইউরো দেওয়া হবে। অর্থাৎ এমবাপ্পে চুক্তি স্বাক্ষর করলেই পুরো পরিবার এক মুহূর্তে ২৩ কোটি ইউরো পেয়ে যাবে!

default-image

এ তো শুধু বোনাস, সে সঙ্গে বেতন তো থাকছেই। বর্তমানে পিএসজিতে সবচেয়ে বেশি বেতনভোগী নেইমার। তাঁর বার্ষিক বেতন ৪ কোটি ইউরো, তালিকায় এরপর আছেন মেসি (৩ কোটি)। এমবাপ্পে এদিক থেকে একটু পিছিয়ে আছেন। বর্তমানে ক্লাবে ২ কোটি ২০ লাখ ইউরোর মতো বেতন পান এমবাপ্পে। সেটা করপূর্ব বেতন। নতুন প্রস্তাবে এমবাপ্পেকে নাকি কর পরবর্তী বেতনই ২ কোটি ৫০ লাখ ইউরো দেওয়া হবে। অর্থাৎ ক্লাবের সবচেয়ে বেতনভোগী খেলোয়াড় হবেন এমবাপ্পে।

পিএসজি অবশ্য জানে, শুধু আর্থিক প্রলোভন দিয়ে তাঁকে আটকে রাখা সম্ভব নয়। তাই এমবাপ্পেকে এর বাইরেও বেশ কিছু প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে ক্লাবের অধিনায়ক ডিফেন্ডার মারকিনিওস। কিন্তু এমবাপ্পে যদি থেকে যান, তাহলে আগামী মৌসুমে অধিনায়কের বন্ধনীটা এমবাপ্পের বাহুতেই শোভা পাবে। আজ লিগ আঁতে ক্লেরমঁ ফুতের বিপক্ষেই এমবাপ্পেকে আর্মব্যান্ড দেওয়া হবে মারকিনিওসের অনুপস্থিতিতে। ইঙ্গিতটা আজই পরিষ্কার করে দিচ্ছে পিএসজি।

এর বাইরে ক্লাবের দলবদলেও নাকি হস্তক্ষেপ করার ক্ষমতা দেওয়া হবে এমবাপ্পেকে! ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপ ও নেশনস লিগজয়ী ফরোয়ার্ড সর্বশেষ ম্যাচ শেষে এসব প্রস্তাবের ব্যাপারে হালকা একটা ইঙ্গিত দিয়েছেন। গত রোববার লরিয়াঁর বিপক্ষে ম্যাচ শেষে এমবাপ্পে বলেছেন, ‘আমি এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি। এখন নতুন কিছু বিষয় এসেছে যা বিবেচনা করা দরকার। কী বিষয়? কিছু নতুন বিষয়।’

এদিকে স্প্যানিশ পত্রিকা এএস জানিয়েছে, এই ‘নতুন বিষয়’গুলোর মধ্যে নতুন আরেকটি দিক আছে, ব্র্যান্ড ইমেজ। একজন ফুটবলারের জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, ফুটবলের বাইরে আয়ের অন্যতম উৎস এটি। সে আয় রক্ষা করতে গিয়ে লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মতো ফুটবলাররা কর ফাঁকির মামলায় শাস্তি পেয়েছেন।

এমবাপ্পের আইনজীবী ডেলফাইন ভেরহেইডেন আইনের এ দিকটায় বিশেষজ্ঞ। ভেরহেইডেন খেলোয়াড়ের ইমেজ স্বত্বের শতভাগেরই অধিকার চাইছেন। এর ফলে ক্লাব বা দেশের ফুটবল ফেডারেশন খেলোয়াড়ের অনিচ্ছায় তাঁকে কোনো বিজ্ঞাপনে ব্যবহার করতে পারবেন না। কদিন আগেই ফ্রান্স ফুটবল ফেডারেশনের একটি বিজ্ঞাপনে অংশ নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন এমবাপ্পে। তাঁর দাবি, তাঁর জীবনাচরণের সঙ্গে যায় না, শিশুদের ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে—এমন কিছুতে অংশ নেবেন না তিনি।

default-image

জাতীয় দলের খেলার সময় খেলোয়াড়দের ছবি ব্যবহার করে ফেডারেশন যে আয় করে সেটারও ভাগ চান এমবাপ্পে। এমনিতে জাতীয় দলে খেলে যে অর্থ পান, সেটা দাতব্য কাজে ব্যয় করেন এমবাপ্পে। তাঁর ছবি ব্যবহার করে ফেডারেশন যে আয় করে সেটাও সে উদ্দেশ্যে দিতে চান বলে দাবি করেছে তাঁর আইনজীবী। ইমেজ স্বত্ব নিয়ে এমবাপ্পের এই আগ্রহ কাজে লাগাতে চায় পিএসজি।

নতুন চুক্তিতে নাকি এমবাপ্পেকে তাঁর ইমেজ স্বত্বের শতভাগ অধিকারই দিয়ে দেবে পিএসজি। যেটা ফুটবল দুনিয়ায় অভাবনীয়। সাধারণত, বড় তারকাদের ক্ষেত্রে এটা ৫০–৫০ অনুপাতের ভাগ থাকে। অর্থাৎ ইমেজ স্বত্বের আয়ের ৫০ ভাগ ক্লাব পায়। কিন্তু এমবাপ্পের জন্য এটাও ছেড়ে দেবে পিএসজি! ফলে পিএসজি চাইলেই আর এমবাপ্পেকে দিয়ে নিজেদের স্পনসরের বিজ্ঞাপন করাতে পারবে না। এতটা ক্ষমতা ফুটবলে কেউ পাননি এর আগে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন