default-image
>এশিয়ান কাপ ফুটবলের ফাইনালে জাপানকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে কাতার। কাতারের হয়ে গোল করেন আলময়েজ আলি, আবদুল আজিজ হাতেম ও আকরাম আফিফ। জাপানের একমাত্র গোলটি করেন তাকুমি মিনামিনো।

কাতার এখন এশিয়ার ফুটবল চ্যাম্পিয়ন। প্রমাণ করল কেন তারা ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ। শুক্রবার আবু ধাবির শেখ জায়েদ স্পোর্টস সিটির স্টেডিয়ামের ফাইনালে প্রতিযোগিতায় চারবারের চ্যাম্পিয়ন জাপানকে ৩-১ গোলে হারায় কাতার। এবারই প্রথম এশিয়ান কাপের শিরোপা ঘরে তুলল কাতার। এর আগে কখনো কোয়ার্টার ফাইনালের গণ্ডিই পার হতে পারেনি এশিয়ান ফুটবলের নয়া চ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচের শুরু থেকেই জাপানকে চেপে ধরে খেলতে থাকে কাতার। গোল পায় ১২তম মিনিটেই। ফরোয়ার্ড আলময়েজ আলি দুর্দান্ত এক বাইসাইকেল কিকে দলকে এগিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি একটা রেকর্ডও করে ফেলেন। এশিয়ান কাপের এক আসরে সর্বোচ্চ ৯ গোলের রেকর্ডটি এখন আলির। ৮ গোল করে এর আগের রেকর্ডটি ছিল ইরানের আলি দাইয়ের।

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে জাপান থেকে ৪৩ ধাপ পিছিয়ে থাকা কাতার ব্যবধান দ্বিগুণ করে প্রথমার্ধের ২৭তম মিনিটে আবদুল আজিজ হাতেমের গোলে। ডি বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া হাতেমের বুলেটগতির শটটি সহজেই জাপানের জাল খুঁজে নেয়। দ্বিতীয়ার্ধে খেলায় ফিরে আসার আপ্রাণ চেষ্টা করতে থাকা জাপান ব্যবধান কমায় ৬৯তম মিনিটে। জাপানের হয়ে তাকুমি মিনামিনোর গোলটি ছিল এই আসরে কাতারের জালে প্রথম এবং শেষ গোল।

এরপর দুই দলই গোল দিতে মরিয়া হয়ে ওঠে। কিন্তু ভাগ্য সহায় ছিল কাতারের। ৮১তম মিনিটে ভিএআর-এর সাহায্য নিয়ে কাতারের পক্ষে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। কাতারের হয়ে শেষ গোলটি করেন আফিফ।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন