বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

৩৫ মিনিটে প্রতি–আক্রমণ থেকে উইলিয়াম টোয়ালার বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিতে যান সতীর্থ কৌশিক বড়ুয়া। তখন পোস্ট ছেড়ে বের হয়ে বক্সের বাইরে এসে বিপদ–মুক্ত করতে গিয়ে হাত দিয়ে বল ঠেকান মোহামেডানের গোলকিপার সুজন। হলুদ কার্ড দেখানো হয় তাঁকে।

লাল কার্ডের দাবি তুলেছিলেন চট্টগ্রাম চট্টগ্রাম আবাহনীর খেলোয়াড়েরা। প্রেস বক্সে বসে থাকা ম্যাচ কমিশনার সুজিত কুমার ব্যানার্জির কাছে এসেও লাল কার্ডের ব্যাপারে প্রশ্ন তোলেন চট্টগ্রাম আবাহনীর ম্যানেজার আরমান আজিজ। তখন সুজিত ব্যানার্জিকে বলতে শোনা যায়, ‘খেলা শেষে ভিডিও দেখে রেফারির সঙ্গে কথা বলব।’
ম্যাচের তিনটি গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। মোহামেডানের একটি গোল আত্মঘাতী ও অন্য গোলটি করেছেন শাহরিয়ার ইমন। চট্টগ্রাম আবাহনীর ব্যবধান কমিয়েছেন বদলি পিটার থ্যাঙ্কগড।

default-image

দুই বিদেশি ছাড়াই একাদশ সাজিয়েছিলেন চট্টগ্রাম আবাহনী কোচ মারুফুল হক। তবু দাপট দেখাতে পারেনি মোহামেডান। প্রথমার্ধে কোনো দলই গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে কয়েক মিনিটের ব্যবধানে বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ তৈরি করে চট্টগ্রাম আবাহনী। ৫৫ মিনিটে মোহামেডান গোলকিপারকে সুজনকে একা পেয়েছিলেন শাখওয়াত হোসেন। কিন্তু তাঁর শট ঠেকাতে সুজনকে কোনো পরীক্ষা দিতে হয়নি।

৬৫ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় ফেডারেশন কাপের ১০ বারের চ্যাম্পিয়ন মোহামেডান। বাঁ প্রান্ত থেকে ওবি মোনেকের ক্রসে পা ছোঁয়াতে পারেননি সুলেমান দিয়াবাতে। বল চলে যায় মোহামেডান মিডফিল্ডার অনিক হোসেনের পায়ে। অনিকের পাস থেকে বক্সের মধ্যে থেকে শাহেদের শট চট্টগ্রাম আবাহনী মিডফিল্ডার আরাফাত হোসেনের পা ছুঁয়ে জালে জড়িয়ে যায়।

default-image

৮ মিনিটের ব্যবধানে মোহামেডানের দ্বিতীয় গোল। চট্টগ্রাম আবাহনী ডিফেন্ডার কামরুল ইসলাম বল ক্লিয়ার করলে মোহামেডান মিডফিল্ডার ইমন সেখানে বাধা দেন, তাঁর পায়ে লেগে বল পোস্টে চলে যায়।

দুই গোল খেয়ে ম্যাচে ফেরার জন্য বদলি হিসেবে জোড়া ফরোয়ার্ড নামান চট্টগ্রাম আবাহনী কোচ মারুফুল হক। যোগ করা সময়ে ব্যবধান কমান বদলি থ্যাঙ্কগড। কামরুলের কর্নার মোনেকে হেডে ক্লিয়ার করতে গেলে দূরের পোস্টে চলে যায় বল। সেখান থেকে হেডে বল জালে জড়ান নাইজেরিয়ান এই স্ট্রাইকার।

২০১৯-২০ মৌসুমের পর আবারও সেমিফাইনালে উঠল শন লেনের দল। গত মৌসুমের ফেডারেশন কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছিল মোহামেডান। অন্যদিকে গতবার সেমিফাইনাল খেলা চট্টগ্রাম আবাহনী এবার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিল।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন