বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিজেদের বেতন-ভাতা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় দলে নতুন যোগ দেওয়া ফেরান তোরেসকে লা লিগায় নিবন্ধন করতে পারছিল না বার্সেলোনা। কুতিনিওকে ধারে পাঠানোয় বেতনের খরচ কিছুটা কমে যাবে বার্সেলোনার। আর তাতে তোরেসকে নিবন্ধন করার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে কাতালানরা।

অ্যাস্টন ভিলা কদিন আগেই নতুন কোচ নিয়োগ দিয়েছে। লিভারপুল কিংবদন্তি স্টিভেন জেরার্ড এখন ভিলার কোচ। ২০১৮ সালে লিভারপুল ছেড়ে বার্সেলোনায় যাওয়ার পর নিজেকে হারিয়ে ফেলা কুতিনিও এর আগে লিভারপুলে জেরার্ডের সঙ্গে দারুণ সময় কাটিয়েছেন।

বার্সার জন্য ‘বোঝা’ হয়ে ওঠা এই প্লেমেকারের জন্য দল বদলানো জরুরি হয়ে উঠেছিল তাঁর নিজের জন্যও। ২০২২ বিশ্বকাপের ব্রাজিল দলে সুযোগ পেতে কুতিনিওকে যে নিয়মিত খেলতে হবে, ভালো খেলতে হবে। সাবেক সতীর্থের অধীনে খেলার সুযোগ পেয়েই তাই আর ভাবেননি কুতিনিও।

আজ একটু আগে অ্যাস্টন ভিলা আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারকে দলে টানার ঘোষণা দিয়েছে, ‘অ্যাস্টন ভিলা ও বার্সেলোনা মৌসুমের বাকি সময়ের জন্য ফিলিপ কুতিনিওর ধারে ভিলা পার্কে খেলার ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছেছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উতরানো এবং কার্যানুমতি পাওয়া সাপেক্ষে এই চুক্তিতে এই দলবদল স্থায়ী করে নেওয়ার সুযোগও থাকছে। ফিলিপ আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বার্মিংহামে পৌঁছাবেন।’

default-image

কুতিনিওকে আড়াই মৌসুম ধরেই বিক্রি করার চেষ্টা চালাচ্ছে বার্সেলোনা। ফলে আগামী জুনে যদি অ্যাস্টন ভিলা তাঁকে কিনে নিতে চায়, দামে মিলে গেলে তাই আর আপত্তি থাকার কথা নয় বার্সার।

তবে কুতিনিওকে ধারে পাঠালেও বেতনের খরচের পুরোটাই বাঁচাতে পারছে না কাতালানরা। আজ ফাঁস হওয়া এক নথির সুবাদে জানা গেছে, কুতিনিওকে করসহ ১ কোটি ৬০ লাখ ইউরো বেতন দেয় বার্সেলোনা। ধারে নিলেও ভিলা নাকি পুরো বেতন দেবে না, কিছু বেতন বার্সেলোনাকেও দিতে হবে।

অ্যাস্টন ভিলার দেওয়া বিবৃতির একটু পর বার্সেলোনাও পৃথক বিবৃতিতে খবরটি জানিয়েছে, ‘অ্যাস্টন ভিলা ও বার্সেলোনা মৌসুমের বাকি সময়ের জন্য ফিলিপ কুতিনিওর ধারে ভিলা পার্কে খেলার ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছেছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উতরানো এবং কার্যানুমতি পাওয়া সাপেক্ষে এই চুক্তিতে এই দলবদল স্থায়ী করে নেওয়ার সুযোগ থাকছে। ইংলিশ ক্লাব খেলোয়াড়দের বেতনের কিছু অংশ দেবে। এই মিডফিল্ডার আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বার্মিংহামের দিকে রওনা দেবেন।’

বার্সেলোনায় কুতিনিওর পথচলার বিবরণও তুলে ধরেছে বিবৃতিতে, ‘১৯৯২ সালের ১২ জুন ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে জন্ম নেওয়া ফিলিপ কুতিনিও ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বার্সেলোনায় এসেছেন। নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী এস্পানিওলের বিপক্ষে কোপা দেল রের ম্যাচে তাঁর অভিষেক হয়েছিল। বার্সেলোনা খেলোয়াড় হিসেবে তাঁর চার মৌসুমে ২০১৯–২০ মৌসুম তিনি ধারে বায়ার্ন মিউনিখে খেলেছেন। রায়ো ভায়োকানোর বিপক্ষে এক ম্যাচে বার্সেলোনার হয়ে ১০০তম ম্যাচে খেলেছেন। ব্লগ্রানার হয়ে সব মিলিয়ে ১০৬ ম্যাচ খেলেছেন, ২৬ গোল করেছেন। এ ম্যাচগুলোয় তাঁর রেকর্ড ৬৫ ম্যাচে জয়, ২৪টি ড্র এবং ১৫টি ম্যাচে হার।’

কুতিনিওর সম্ভাব্য বিদায়ী বার্তায় বার্সেলোনায় কুতিনিওর ম্যাচের হিসাবে ক্লাবের আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতেই দুটি ম্যাচের হিসাব না মেলাই হয়তো বলে দেয়, কাতালান ক্লাবটিতে কুতিনিও কতটা ‘প্রার্থিত’ ছিলেন!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন