default-image

ক্রীড়া খাতে এবার সরকারি বরাদ্দ কমে যেতে পারে—করোনাভাইরাসের কারণেই এমন শঙ্কায় ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান। তবে হলো উল্টো। ক্রীড়ায় এবার বাজেট বেড়েছে। গতকাল যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী প্রথম আলোকে বলেন, 'ভেবেছিলাম করোনাভাইরাসের এই দুঃসময়ে আমাদের বাজেট কমবে। তবে বাজেটে আমরা যা চেয়েছি, সেটাই পেয়েছি। সংশোধিত বাজেটে গতবারের তুলনায় আমরা ২২ কোটি ৩৭ লাখ ১৬ হাজার টাকা বেশি পেয়েছি।'

গতবার সংশোধিত বাজেটে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ ছিল ১ হাজার ৪৫৬ কোটি ৫৬ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। এবার বরাদ্দ বেড়ে হয়েছে ১ হাজার ৪৭৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। কোন খাতে কত টাকা, সেটার বিবরণ দুই–এক দিনের মধ্যে জানাবেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, 'আপাতত বলতে পারি বিকেএসপি, ক্রীড়া পরিদপ্তরসহ আরও কিছু খাতে বরাদ্দ বেড়ছে। ক্রীড়া সংস্থার মঞ্জুরি গতবারের মতো ৩০ কোটিই আছে। তবে আমরা আরও টাকা পাব। শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম (১৮০টি) নির্মাণ, স্টেডিয়াম সংস্কার, ইনডোর স্টেডিয়াম, টেনিস কমপ্লেক্স, যুব উন্নয়ন কমপ্লেক্স করা হচ্ছে। এগুলোসহ আরও কিছু খাতে আলাদা বরাদ্দ পাওয়া যাবে।'

গতকাল জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। গতবার বাজেটে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের জন্য ২০ কোটি টাকা বিশেষ বরাদ্দ দেওয়া হলেও এবার সেটি নেই। বাফুফে এবার চেয়েছিল ৪০ কোটি টাকা। অবশ্য গত বাজেটে ২০ কোটি টাকা বরাদ্দ হলেও বাফুফে পেয়েছে ১০ কোটি টাকা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0