default-image

দু-একবার ছন্দপতন হয়েছে বটে, তবে দুই মৌসুম ধরে দুর্দান্ত খেলছে ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুল। অন্যদিকে গত মৌসুমে আশা অনুযায়ী পারফরম্যান্সে করতে না পারা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চলতি মৌসুমের শুরুটাও ভালো ছিল না। তবে মৌসুমের শুরুর দিকের ধাক্কা কাটিয়ে ছন্দে ফিরেছে তারাও। এ মুহূর্তে প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে আছে উলে গুনার সুলশারের দল। এমন অবস্থায় তারা মুখোমুখি হচ্ছে তিন পয়েন্ট পিছিয়ে দুইয়ে থাকা লিভারপুলের।

আগামীকালের মহাগুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচের আগে চলছে কথার লড়াই। মনস্তাত্ত্বিক লড়াইয়ে যোগ দিয়েছেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ, ইউনাইটেড কোচ সুলশারসহ অনেকেই। এরই ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ লিভারপুল-ইউনাইটেড ম্যাচ নিয়ে কথা বলেছেন ইউনাইটেডের সাবেক কোচ স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন। নিজেকে তিনি ভাগ্যবান মনে করছেন যে দুর্দান্ত ছন্দে থাকা ক্লপের লিভারপুলের মুখোমুখি হতে হচ্ছে না তাঁকে!

বিজ্ঞাপন
default-image

একটা সময় ছিল, ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগে আধিপত্য ছিল লিভারপুলের। সেই সময়ে ধুঁকত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। কিন্তু ১৯৮৬ সালে ইউনাইটেডের কোচের দায়িত্ব নিয়ে ফার্গুসন ধীরে ধীরে গড়ে তোলেন দুর্দান্ত একটি দল। সেই দল নিয়ে তিনি ২৭ বছরের ইউনাইটেড-ক্যারিয়ারে একে একে জিতেছেন ৩৮টি শিরোপা। ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে লিভারপুলকে পেছনে ফেলে ইউনাইটেডকে এনে দিয়েছেন সবচেয়ে বেশি শিরোপাজয়ী ক্লাবের সম্মান।

স্কটিশ এই কিংবদন্তি কোচ ২০১৩ সালে অবসরে চলে যান। সেই থেকে ইউনাইটেড আর প্রিমিয়ার লিগের কোনো শিরোপা জিততে পারেনি। অন্যদিকে গত মৌসুমেই লিভারপুল ক্লপের অধীনে কাটিয়েছে তিন দশকের প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা-খরা। এর আগের মৌসুমে জিতেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা। সব মিলিয়ে ক্লপের লিভারপুলকে এখন সমীহ করছে বিশ্বের সব বড় দলই।

default-image

ক্লপ বিশ্বের সব বড় বড় কোচ আর ফুটবল পণ্ডিতদের প্রশংসায় ভাসছেন কয়েক মৌসুম ধরেই। ফার্গুসনও এর বাইরে নন। তাই তো আরেকটি লিভারপুল-ইউনাইটেড লড়াইয়ের আগে তিনি যেন ইউনাইটেডের বর্তমান কোচ সুলশারকে একটু সতর্কই করে দিলেন, ‘এটা নিশ্চিত যে আমাদের কিছু জিততে হলে লিভারপুলকে হারিয়ে জিততে হবে।’

কিন্তু লিভারপুলকে হারানোর কাজটা যে কত কঠিন, সেটাও বুঝিয়ে দিলেন পরের কথায়, ‘লিভারপুলকে হারানোর কাজটা করতে আমাকে লম্বা পথ পাড়ি দিতে হয়েছে। আমাকে ভালো একটি দল গড়ার জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে। এই দল গড়ার বিষয়টি অবশ্য বেশ কাজে লেগেছিল।’ এরপরই বললেন সুলশারকে সতর্ক করে দেওয়া কথাটা, ‘এখন আমি অবসরে। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ যে আমি অবসর নিয়ে ফেলেছি। দুই মৌসুম ধরে লিভারপুলের যে পারফরম্যান্স দেখছি, তা এককথায় অনন্য। লিভারপুলের প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা আমার।’

বিজ্ঞাপন
default-image

আগামীকালের লিভারপুল-ইউনাইটেড ম্যাচকে অনেকেই দেখছেন প্রিমিয়ার লিগের এ মৌসুমের সবচেয়ে বড় ম্যাচ হিসেবে। এমনিতে ম্যাচটি পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠার লড়াই, অনেকের কাছে এটি শিরোপার ভাগ্য গড়ে দেওয়া ম্যাচও। মহাগুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচের জন্য সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। ফার্গুসনও এর বাইরে নন, ‌‘আমি সব সময়ই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল ডার্বিকে মৌসুমের সেরা ম্যাচ বলে মনে করি। আর এর কারণটা সহজ, এ দুটি দল ব্রিটেনের ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে সফল।’

কয়েক মৌসুম ধরে লিভারপুলের সাফল্যের অন্যতম কারিগর জর্ডান হেন্ডারসন। অথচ ইংলিশ এই মিডফিল্ডার হতে পারতেন ইউনাইটেডের খেলোয়াড়। ৭৯ বছর বয়সী ফার্গুসন বলেছেন, ‘তাকে নেওয়ার জন্য প্রস্তাব দিতে তৈরি ছিলাম আমরা। ব্রেন্ডন রজার্স এর সমালোচনা করেছিল। এ ছাড়া আমাদের স্কাউট ও চিকিৎসক দল বলেছিল যে তার দৌড়ের ধরনে একটু সমস্যা আছে। তারা বলেছিল, হেন্ডারসন যেভাবে দৌড়ায়, তাতে চোটে পড়ার আশঙ্কা বেশি থাকে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন