এত বাজে সময় পেপ গার্দিওলার কোচিং ক্যারিয়ারে আগে কখনো আসেনি।
এত বাজে সময় পেপ গার্দিওলার কোচিং ক্যারিয়ারে আগে কখনো আসেনি। ছবি: রয়টার্স

প্রিমিয়ার লিগে পাঁচটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে ম্যানচেস্টার সিটি। এই পাঁচ ম্যাচে একটি হার, লেস্টার সিটির কাছে সেই হারও আবার ৫-২ গোলে। দুটি ম্যাচ করেছে ড্র। লিডসের মাঠে ১-১ গোলে। এই স্কোরলাইনে গতকাল তারা ড্র করেছে এসেছে ওয়েস্ট হামের মাঠ থেকে। বাকি দুটি ম্যাচে জয় নিয়ে প্রথম ৫ ম্যাচে সিটির পয়েন্ট এখন ৮। ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির অধীনে ২০১৪-১৫ মৌসুমের পর সিটির সবচেয়ে বাজে শুরু এটা।

শুধু কি সিটির, পেপ গার্দিওলার জন্যও খুব বাজে সময় এটা। স্প্যানিশ কোচ তাঁর কোচিং ক্যারিয়ারে এত বাজে শুরু এর আগে কখনোই করেননি। এটা নিয়ে গার্দিওলার মন খারাপ থাকাটাই স্বাভাবিকই। তবে এটাও সত্য এ মৌসুমের শুরুতে ম্যান সিটি আর গার্দিওলার ভাগ্যটাও খুব একটা ভালো নয়। চোট যেন আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ধরেছে ইতিহাদের দলটিকে।

বিজ্ঞাপন
default-image

মৌসুমের শুরুর কয়েকটি ম্যাচে খেলতে পারেননি সের্হিও আগুয়েরো। হাঁটুর চোটে ভুগছিলেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। এরপর চোট নিয়ে মাঠের বাইরে ছিটকে গেছেন আরেক স্ট্রাইকার গাব্রিয়েল জেসুস। চোট এক ম্যাচের জন্য বাইরে রেখেছিল বেলজিয়ান কেভিন ডি ব্রুইনাকে। সব মিলিয়ে মৌসুমের শুরু থেকেই সিটির অবস্থা একটু এলোমেলো। আরও কিছুদিন হয়তো এ অবস্থা থাকবে তাদের। জেসুস তো এখনো ফেরেনইনি, উল্টো ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে ম্যাচে আবার চোটে পড়েছেন আগুয়েরো। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন তিনি।

গার্দিওলাও তাঁর কোচিং ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বাজে শুরুর দায় এসবের ওপরে চাপাচ্ছেন। কাল ওয়েস্ট হামের সঙ্গে ড্র ম্যাচের পর বলেছেন, ‘আমি ভালো ফল পেতে চাই। কিন্তু আমাকে শুরুটা আবার বিশ্লেষণ করতে হবে এবং দেখতে হবে আমরা আসলে কী অবস্থায় আর কোথায় আছি।’ এরপরই তিনি কথা বলেছেন চোট নিয়ে, ‘আমরা অনেকগুলো চোট নিয়ে লড়াই করছি।’ নতুন মৌসুম শুরুর আগে পর্যাপ্ত অনুশীলন করতে না পারাটাকেও একটা কারণ হিসেবে দেখছেন গার্দিওলা, ‘প্রস্তুতিতে ঘাটতি ছিল। আর ছিল পরের ম্যাচ খেলতে নামার আগে পূর্ববর্তী ম্যাচের ধকল কাটিয়ে ওঠার জন্য সময় স্বল্পতা।’

default-image

এত সমস্যার মধ্যেও যাঁরা এখন শুরুর একাদশে খেলছেন তাঁদের আত্মনিবেদনে খুশি গার্দিওলা, ‘খেলোয়াড়েরা মাঠে তাদের সর্বস্ব দিচ্ছে। তারা আজও (কাল ওয়েস্ট হাম ম্যাচ) সর্বাত্মক লড়াই করেছে।’ সিটি তাদের পরের ম্যাচটা খেলবে চ্যাম্পিয়নস লিগে আগামী পরশু। নিজেদের মাঠে এই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ অলিম্পিয়াকোস। এ ম্যাচের আগেও একটি বিষয় নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে হচ্ছে গার্দিওলাকে, ‘আমরা এখন পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবছি, যেটা চ্যাম্পিয়নস লিগে। কিন্তু খেলোয়াড়েরা খুব ক্লান্ত।’

জোড়াতালি দিয়ে দল চালানো নিয়ে সরাসরি কোনো সমস্যার কথা বলেননি গার্দিওলা। তবে এটাই যে এমন বাজে ফলের কারণ সেটা ঠিকই বুঝিয়ে দিয়েছেন সিটির স্প্যানিশ কোচ, ‘বেঞ্চের খেলোয়াড় আর একাডেমি থেকে দুই-একজন এনেও আমরা খেলাচ্ছি। এ নিয়ে আমার কোনো সমস্যার কথা বলছি না। বেঞ্চ আর একাডেমির খেলোয়াড়েরাও মান সম্মত। তিন দিন বিরতি দিয়ে এবং এক সঙ্গে চারটি প্রতিযোগিতায় খেললে পুরো স্কোয়াডই দরকার। পুরো স্কোয়াড না পেলে কাজটা তো কঠিন হবেই।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0