বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নিজেদের মাঠে যথেষ্ট বার্সেলোনা সমর্থক খেলা দেখতে আসেননি বলে কষ্ট হয়েছে জাভি, 'আমরা অন্তত ৭০ থেকে ৮০ হাজার বার্সেলোনা সমর্থক আশা করেছিলাম, কিন্তু ব্যাপারটা অমন ছিল না।'

ওদিকে আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্টের অন্তত ৩০ হাজারেরও বেশি দর্শক খেলা দেখতে এসে বার্সার স্টেডিয়ামকে এক রকম নিজেদেরই বানিয়ে ফেলেছিলেন, এ নিয়েও আক্ষেপ ঝরেছে জাভির কণ্ঠে, 'মাঠের পরিস্থিতি ও পরিবেশ আমাদের সাহায্য করেনি। আমাদের মনে হয়েছে আমরা অন্যের মাঠে খেলতে গিয়েছি। ক্লাব অনুসন্ধান করে দেখবে ঠিক কোন কারণে আমাদের এত কম দর্শক খেলা দেখতে এসেছে।'

default-image

ম্যাচ শেষে জাভি নিজেদের দোষ লুকাননি অবশ্য। স্বীকার করেছেন, নিজেদের দোষেই ম্যাচ হেরেছে বার্সেলোনা।

জার্মান ক্লাবের প্রতিআক্রমণ কৌশলের সঙ্গে পেরে উঠতে পারেনি বার্সেলোনা, এটাই বড় হয়ে দেখা দিয়েছে জাভির কাছে, 'কীভাবে সবচেয়ে ভালো উপায়ে আক্রমণ করতে হয়, সেটা আমরা বের করতে পারিনি। তারা জানত, কীভাবে কার্যকরী উপায়ে প্রতিআক্রমণ কৌশল বাস্তবায়ন করা যায়। এরপর ওরা একটা পেনাল্টি পেয়ে যায়। এরপর ওদের একটা অসাধারণ গোলের পরেই আমরা ম্যাচ থেকে ছিটকে যাই। আমরা ভালো খেলিনি, আমরা পায়ে বল রাখতে পারিনি। আমরা এমন কিছু করতে পারিনি যাতে ওদের কষ্ট হয়। আমরা বেশ কিছু ভুল করেছি যার মূল্য আমাদের ইউরোপে চোকাতে হয়েছে। শেষমেশ আমাদের হতাশ হতে হয়েছে কারণ এই প্রতিযোগিতা নিয়ে অনেক আশা ছিল।'

default-image

তবে নিজেরা বাজে খেললেও এই পারফরম্যান্সকে ব্যর্থতা ভাবতে নারাজ জাভি, 'এটা আমাদের ব্যর্থতা নয়। আমরা চেষ্টা করেছি, আমাদের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে আমরা চেষ্টা করেছি। যদি ব্যর্থতা থেকেই থাকে, সেটা থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে দিন। আইনট্রাখট দুই লেগ মিলিয়েই যোগ্যতর দল হিসেবেই জিতেছে, এ জন্য তাঁদের শুভেচ্ছা প্রাপ্য।'

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন