বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত বুধবার ঘরের মাঠে খেলতে নেমেছিল চেলসি। গত মৌসুমে এই রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়েই চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠেছিল চেলসি। পরে তো প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বাদও পেয়েছেন টুখেল। কিন্তু এবার ঘরের মাঠেই সর্বনাশ হয়েছে টুখেলদের। প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হেরেছে দলটি। ম্যাচের ৪৬ মিনিটের মধ্যেই খেয়েছে তিন গোল। ম্যাচের নিজের মনমতো কিছুই হয়নি চেলসি কোচের।

সেই ক্ষত এখনো তাজা। এর মধ্যেই আজ রাতে সাউদাম্পটনের বিপক্ষে খেলতে নামবে চেলসি। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে তবু রিয়াল ম্যাচ নিয়ে কথা বলেছেন টুখেল। বলেছেন, সে ম্যাচ আবার দেখতে গিয়ে কীভাবে চকলেটের ওপর নির্ভরশীল হয়ে উঠেছেন, ‘সেই ম্যাচ আবার দেখতে গিয়ে আর দুঃখ ভুলতে আমাকে বিপুল পরিমাণ চকলেট খেতে হয়েছে।’

ম্যাচ শেষ হওয়ার একটু পর বাসায় গিয়ে আবার সেটা দেখতে বসেছিলেন টুখেল। বের করার চেষ্টা করছিলেন কোথায় কোথায় ভুল হয়েছে, ‘মাঝ রাতে বসে আছেন, যা মোটেও ভালো কিছু না। এর মধ্যেই আপনি লিখছেন, লিখছেন আর লিখছেন। এবং আপনি বুঝতে পারছেন যত লিখছেন, ততই আপনি এমনভাবে বিশ্লেষণে ব্যয় করছেন, যা জীবনেও ভুলবেন না।’

default-image

কোচ হিসেবে ওই ম্যাচ বিশ্লেষণের কাজটা কত কঠিন ছিল, সেটা বোঝা গেছে টুখেলের পরের কথা, ‘একপর্যায়ে আপনি দেখছেন, দ্বিগুণ গতিতে ভিডিও চালাচ্ছেন, যাতে এটা দ্রুত শেষ হয়। তখনই বুঝবেন, মানসিকভাবে ভালো নেই আপনি। আপনাকে একসময় থামতেই হবে এবং রান্নাঘর বা হল ঘর থেকে হেঁটে আসতে হয়। এবং নিজেকে শান্ত করতে হয়। দেখার জন্য এটা মোটেও ভালো কিছু ছিল না।’

সেদিন ম্যাচ শেষে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় টুখেল বলেছিলেন, যেভাবে খেলেছে তাঁর দল, সেভাবে খেললে লিগে সাউদাম্পটনের বিপক্ষে হারবে আর মঙ্গলবারের ফিরতি লেগে রিয়ালের মাঠে নাস্তানাবুদ হবে।’ ম্যাচ আরেকবার দেখার পর টুখেলের ধারণা খুব একটা বদলায়নি, ‘দুঃখজনকভাবে, এবং এটা বেশ বিস্ময়কর যে সর্বশেষ ম্যাচে আমাদের সংগঠনের অভাব ছিল। সাধারণত আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তিই হলো, দেখেই বোঝা যায়, আমরা কী করতে চাই, কীভাবে খেলতে চাই।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন