নিজেদের কাজটা নিজেরাই কঠিন করেছে পর্তুগাল। বাছাইপর্বে নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৯০ মিনিটে গোল খেয়ে হেরে বসে দলটি। সে হারই সরাসরি বিশ্বকাপে যেতে দেয়নি পর্তুগালকে। ফেবারিট হয়েও এখন বাছাইপর্বে প্লে-অফ খেলতে হচ্ছে পর্তুগালকে। প্লে-অফে পথ ‘সি’তে খেলা পর্তুগাল কাল সেমিফাইনালে ৩-১ গোলে হারিয়েছে তুরস্ককে।

প্রথমার্ধেই দুই গোল পেয়েছে পর্তুগাল
ছবি: রয়টার্স

তুরস্ককে হারিয়ে ফাইনালে উত্তর মেসিডোনিয়াকে পাচ্ছে পর্তুগাল। কারণ, পর্তুগালের মতোই সহজ কাজকে কঠিন বানানো ইতালি প্লে-অফের সেমিফাইনালে হেরে বসেছে। ২৯ মার্চ তাই বর্তমান ইউরো চ্যাম্পিয়ন নয়, চমক জাগানো উত্তর মেসিডোনিয়ার বিপক্ষে খেলবে পর্তুগাল। এখনই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিচ্ছেন না ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। কিন্তু তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ম্যাচের আগে কাতার বিশ্বকাপে যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ শুনিয়েছেন পর্তুগিজ তারকা।

ইলমাজ পেনাল্টি মিস করেছেন
ছবি: রয়টার্স

গতকাল ঘরের মাঠে ৩-১ গোলের জয়টাও সহজে আসেনি রোনালদোদের। প্রথমার্ধে ওটাভিও এবং ডিয়েগো জোতার গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েছিল দলটি। বহুদিন পর রোনালদোর ওপর নির্ভর না করেই বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে চলে যায় পর্তুগাল। কিন্তু গ্রুপ পর্বের ম্যাচের মতোই আবার নিজেদের পায়ে নিজেরা কুড়াল মারতে বসেছিল। ৬৫ মিনিটে তুরস্কের আশা জাগান বুরাক ইলমাজ। ২০ মিনিটে তো ম্যাচে সমতা ফেরানোরও সুযোগ এসেছিল ইলমাজের সামনে। কিন্তু পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন এই স্ট্রাইকার। যোগ করা সময়ে ম্যাথুস নুনেসের গোলে স্বস্তি পান রোনালদো।

যোগ করা সময়ে স্বস্তি এনে দিয়েছেন নুনেস
ছবি: রয়টার্স

ম্যাচ শেষে তাই ইনস্টাগ্রামে উল্লাসের বার্তা ছড়াতে পেরেছেন রোনালদো। দেশের হয়ে ১৮৫তম ম্যাচ খেলা রোনালদো লিখেছেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য ২০২২ বিশ্বকাপের দিকে প্রথম ধাপ এগিয়েছি। কিছুই এখনো জেতা হয়নি, কিছুই অর্জন হয়নি। আমাদের এখন গুরুত্ব দিয়ে ও মনোযোগ রেখে কাজ করা চালিয়ে যেতে হবে। প্রতিপক্ষকে সম্মান দিয়েই নিজেদের দক্ষতায় বিশ্বাস রাখতে হবে। পর্তুগালের শক্তি! চলো কাতারে!’