বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ রাতে লা লিগায় খেলতে নামবে বার্সেলোনা। ক্যাম্প ন্যুতে অবনমন অঞ্চলের ঠিক ওপরে থাকা এলচের বিপক্ষে আজ জয়টা বেশ দরকার বার্সেলোনার। আজ জিতলেই দুই ধাপ এগিয়ে ছয়ে চলে যাবে বার্সেলোনা। আর এ অবস্থানে থাকা মানে আগামী মৌসুমে কনফারেন্স লিগের প্লে-অফ খেলার সুযোগ পাবে বার্সেলোনা। জাভি অবশ্য কনফারেন্স বা ইউরোপা লিগ নয়, চোখ রাখছেন চ্যাম্পিয়নস লিগে।

এ মৌসুমেই বড় এক ধাক্কা খেয়েছে বার্সেলোনা। ১৭ বছর পর ইউরোপিয়ান ফুটবলের শীর্ষ লিগের শেষ ষোলো খেলা হচ্ছে না তাদের। বরং ইউরোপা লিগের শেষ ষোলোতে জায়গা করার জন্য খেলতে হবে প্লে–অফ। আগামী মৌসুমে যেন সমর্থকদের এমন কিছু দেখতে না হয়, সেটা নিশ্চিত করতে চান জাভি।

default-image

গতকাল এলচে ম্যাচ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন জাভি। সেখানে এ মৌসুমে তাঁর কী লক্ষ্য, সেটা জানিয়ে দিয়েছেন বার্সা কিংবদন্তি, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য হলো প্রথম চারে থাকা ও শিরোপা জেতা। এখনই হাল ছেড়ে দেওয়ার মতো কিছু হয়নি। শীর্ষ স্থানের (রিয়াল মাদ্রিদ) চেয়ে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি, কিন্তু দলের ওপর আমার আস্থা আছে। আকাঙ্ক্ষিত ফল আসছে না, কিন্তু আমি আত্মবিশ্বাসী। ফল না এলেও সবাই বেশ ইতিবাচক, আগের চেয়ে ভালো বোধ করছে। আগামীকাল (আজ) আরেকটা কঠিন পরীক্ষা।’

default-image

এ মৌসুমে বার্সেলোনাকে ভোগাচ্ছে গোল স্কোরারের অভাব। এ কারণেই একের পর এক ফরোয়ার্ডের সঙ্গে নাম জড়াচ্ছে। ম্যানচেস্টার সিটির ফেরান তোরেস, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এদিনসন কাভানির নাম শোনা যাচ্ছে। তবে বার্সেলোনার সভাপতি আরলিং হরলান্ডকে নিয়ে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন বার্সেলোনার সমর্থকদের।

জাভি কিন্তু আশার বেলুন ফোলাতে মানা করে দিয়েছেন, ‘এই মুহূর্তে আমরা খুবই কঠিন আর্থিক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। আমাদের বাস্তববাদী হতে হবে এবং দলকে শক্তিশালী করাটা কঠিন হবে। বেতনের সীমা নিয়ে একটু সমস্যায় আছি, কী ঘটে দেখতে হবে। আমি হরলান্ডের ব্যাপারে কিছু জানি না। সবাই ওর ব্যাপারে আগ্রহী হবে। দুঃখজনক হলো মৌসুমের মাঝপথে আসতে হলো এবং মৌসুম নিয়ে পরিকল্পনা আগেই সেরে ফেলার পর এলাম। এক মাসের একটু বেশি হয়ে গেছে এবং কিছু জিনিস বদলানো দরকার। শুধু খেলোয়াড় নয়, খেলার গতি, পজিশনাল খেলা ও রক্ষণও। এটার জন্য সময় লাগবে এবং দুঃখজনক হলো এখন প্রাক্‌-মৌসুম নেই। আমাদের দলের শক্তি বাড়াতে হবে, এটা পরিষ্কার।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন