বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তিন পেনাল্টির মধ্যে মাত্র একটিতেই গোল করতে পেরেছে সালজবুর্গ। ওদিকে সেভিয়া যে একটা পেনাল্টি পেয়েছে, কাজে লাগাতে পেরেছে। শেষমেশ সমতাতেই শেষ হয়েছে ম্যাচ। তবে এই ফলাফলে সালজবুর্গের কেউ সন্তুষ্ট হবেন না, নিশ্চিত!

কিছুদিন আগে আরমেনিয়ার বিপক্ষে জার্মানির হয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে গোল করে আলোচনায় এসেছিলেন তরুণ জার্মান স্ট্রাইকার কারিম আদেয়ামি। ম্যাচের পর জার্মান সংবাদমাধ্যম বিল্ড খবরও করেছিল, লিভারপুল-বায়ার্নের মতো ক্লাবগুলো আগ্রহী এই ১৯ বছর বয়সী স্ট্রাইকারের ওপর। কেন আগ্রহী, তার একটা প্রমাণ আজ দিলেন আদেয়ামি।

আদেয়ামিকে আজ আটকেই রাখতে পারছিলেন না সেভিয়ার ডিফেন্ডাররা। ১২ মিনিটে ডি-বক্সে আদেয়ামিকে আটকে রাখতে না পেরে ফাউল করে বসেন সেভিয়ার ব্রাজিলিয়ান সেন্টারব্যাক দিয়েগো কার্লোস। ফলাফল? পেনাল্টি পায় সালজবুর্গ। কিন্তু আদেয়ামির কপাল খারাপ। সাহস করে পেনাল্টি নিতে এসে গোল করতে পারেননি।

default-image

২১ মিনিটে আবারও আদেয়ামির কল্যাণে পেনাল্টি পায় সালজবুর্গ। আদেয়ামি আগেরবার মিস করেছিলেন দেখে কি না, এবার তাঁকে পেনাল্টি নিতে দেওয়া হলো না। দৃশ্যপটে আগমন ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা সুচিচের। গোল করে দলকে এগিয়ে দেন সুচিচ।

৩৭ মিনিটে আবারও সেভিয়ার ডি-বক্সে আদেয়ামির তাণ্ডব। তৃতীয় পেনাল্টি পেয়ে যায় সালজবুর্গ। আবারও পেনাল্টি নিতে আসেন সুচিচ। কিন্তু বিধি বাম। এবার আর গোল করতে পারেননি এই ক্রোয়েশিয়ান। তিন পেনাল্টি থেকে তিন গোল হবে কি, একটা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো অস্ট্রিয়ার ক্লাবটাকে।

ওদিকে ৪২ মিনিটে মরোক্কান স্ট্রাইকার ইউসুফ এন-নেসেরির কল্যাণে এবার পেনাল্টি পায় সেভিয়া। পেনাল্টি নিতে আসেন সাবেক বার্সা তারকা ইভান রাকিতিচ। পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান তিনি। কিন্তু তা সত্বেও আলোচনা হচ্ছে শুধু আদেয়ামিকে নিয়েই।

আর হবে নাই–বা কেন? প্রথমার্ধে একটা খেলোয়াড় তিন-তিনটা পেনাল্টি এনে দিয়েছেন দলকে, চ্যাম্পিয়নস লিগে এমন ঘটনা কে দেখেছে কবে? রেকর্ড বইয়ে ঘাঁটাঘাঁটি শুরু হয়ে গেল। ফুটবলের পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট অপটা জানাল, যে সময় থেকে তারা ফুটবলের পরিসংখ্যান রাখছে, সেই ২০০৩-০৪ মৌসুম থেকে এমন ঘটনা কখনো দেখেনি ফুটবল। এমনকি, গোটা ম্যাচে চার পেনাল্টি হয়েছে, এমনও কখনো দেখা যায়নি আগে!

এক মৌসুমে সর্বোচ্চ পেনাল্টি আদায় করার কথা বায়ার্ন মিউনিখের সাবেক ডাচ্‌ উইঙ্গার আরিয়ান রোবেনের। ২০১৩-১৪ মৌসুমে গোটা টুর্নামেন্ট খেলে চারটা পেনাল্টি আদায় করেছিলেন তিনি। আর এদিকে আদেয়ামি এক ম্যাচেই আদায় করেছেন তিনটা। রোবেনের রেকর্ডের অস্তিত্ব থাকে কি না, কে জানে! ম্যাচসেরাও হয়েছেন আদেয়ামি।

বর্তমানে বিশ্ব কাঁপানো স্ট্রাইকার আর্লিং ব্রট হরলান্ডের শুরুটা কিন্তু এই সালজবুর্গ থেকেই হয়েছিল। হরলান্ড ডর্টমুন্ডে যাওয়ার পর ২২ বছর বয়সী জাম্বিয়ান স্ট্রাইকার প্যাটসন ডাকা আলো ছড়িয়েছিলেন দলটার হয়ে। যার ফলাফল, গত দলবদলে ইংলিশ ক্লাব লেস্টার সিটিতে নাম লিখিয়েছেন তিনি।

আদেয়ামি যা শুরু করেছেন, তাতে শিগগিরই যে হরলান্ড-ডাকার পথ ধরে আরও বড় ক্লাবে চলে যাবেন, এ কথা বলার আর অপেক্ষা রাখে না!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন