বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমগুলো সরব হয়েছে এ খবরে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অবস্থা এ মৌসুমে বিশেষ ভালো নয়। মাত্র দুমাস আগেও রোনালদো, রাফায়েল ভারান, জেডন সানচোদের মতো খেলোয়াড়দের আসার ফলে আশায় বুক বেঁধেছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড–সমর্থকেরা। সে আশার বেলুন চুপসে যেতে দুমাসের বেশি সময় লাগেনি। লিভারপুল, চেলসি, ম্যানচেস্টার সিটি, এমনকি আর্সেনাল ও ওয়েস্ট হামের দাপটে পয়েন্ট তালিকায় রীতিমতো খাবি খাচ্ছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা না-ও হতে পারে—এমন আশঙ্কাও দেখা যাচ্ছে। যে শঙ্কা ঢুকেছে রোনালদোর মনেও। আর সে কারণেই দুমাস আগে ইউনাইটেডে ফেরা পর্তুগিজ তারকার মন টিকছে না ওল্ড ট্রাফোর্ডে।

default-image

খবরটা দিয়েছে ব্রিটিশ দৈনিক এক্সপ্রেস। তাদের মতে, ইউনাইটেড আগামী মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নিতে না পারলে প্রিয় ক্লাবে যেকোনো মূল্যে থাকার আবেগকে প্রশ্রয় দেবেন না রোনালদো। এক্সপ্রেস জানিয়েছে, ইউরোপা লিগের মতো দ্বিতীয় শ্রেণির প্রতিযোগিতায় খেলার ইচ্ছা নেই রোনালদোর। নিজের ক্যারিয়ারে কখনো ইউরোপা লিগে খেলেননি তিনি।


চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা না পেলে রোনালদো যে ইউনাইটেডে না-ও থাকতে পারেন, সেটার ইঙ্গিত অবশ্য পাওয়া গিয়েছিল রোনালদোর সাবেক সতীর্থ রিও ফার্ডিনান্ডের এক সাক্ষাৎকারে।

default-image

কিছুদিন আগে দ্য অ্যাথলেটিককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফার্ডিনান্ড বলেছিলেন, ইউরোপা লিগে খেলাকে রোনালদো তাঁর ক্যারিয়ারের একটা কলঙ্কের দাগ হিসেবেই দেখবেন, ‘ও আগের চেয়ে আরও বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ মানসিকতার। আপনি ওর সঙ্গে বসলেই বুঝতে পারবেন, ক্যারিয়ারের এ পর্যায়ে এসে ও ছোটখাটো রেকর্ড নিয়ে আরও বেশি চিন্তাভাবনা শুরু করেছে। কারণ ও বুঝেছে, ক্যারিয়ারের শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। ও বুঝেছে, ক্যারিয়ার নিয়ে ওকে আরও বেশি যত্নশীল হতে হবে। হয়তো এটাই রোনালদোর সবচেয়ে বড় গুণ।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন