বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এই প্রশ্নে আজ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) জাতীয় দল কমিটির প্রধান কাজী নাবিল আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘জেমি যেভাবে ছুটি কাটিয়েছেন, হাভিয়ের সেটা পারবে না। কারণ, হাভিয়েরের চুক্তির ১১ মাসে ছুটি ১০ দিন। অর্থাৎ এই সময়ে মাত্র ১০ দিন তিনি বাংলাদেশের বাইরে থাকতে পারবেন। বাকি সময়টা থাকবেন এখানেই।’

চুক্তির দুর্বলতা আর বাফুফের পরিকল্পনাহীনতায় জেমি ডে বলতে গেলে সারা বছরই ছুটিতে থাকতেন। শুধু খেলার সময়টা দলের সঙ্গে যোগ দিতেন। বেশির ভাগ সময় খেলা শেষে অন্য দেশ থেকেই চলে যেতেন ইংল্যান্ডে। তাতে দেখা যেত, বছরে ৩৬৫ দিনের মধ্যে ২৫০ দিনের ওপরে ছুটি কাটাতেন জেমি। আর চুক্তির দুর্বলতায় বাফুফে মাসে ১২ হাজার ডলার বেতন গুনত।

কাজী নাবিল জানিয়েছেন, নতুন কোচ ১০ দিনের বাইরে ব্যক্তিগত বা পারিবারিক বিশেষ প্রয়োজনে ছুটির আবেদন করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে বাফুফে সেটা বিবেচনা করতে পারে। তবে তা খুব বেশি হয়তো হবে না। কোচের ছুটিতে না হয় রাশ টানা হলো। কিন্তু জাতীয় দলের খেলা না থাকলে কোচ করবেনটা কী? এটাও বড় প্রশ্ন।

default-image

কোচকে কাজ দেওয়ার ব্যাপারে বাফুফের অতীত রেকর্ড খুব খারাপ। জেমি ডে বা তাঁর পূর্বসূরিদের সঠিকভাবে কখনো ব্যবহার করেনি বাফুফে। কাজ দেয়নি ঠিকঠাক। ফলে ছুটিতে চলে যেতেন কোচেরা। জেমির ক্ষেত্রে এটা দৃষ্টিকটু পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল। সেটা থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন কোচের ছুটিতে রাশ টেনে আজ রাতে তাঁকে বরণ করা হচ্ছে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে।

জেমির ছুটি কাটানোর ব্যাখা দিয়ে কাজী নাবিল বলেন, ‌‘জেমি তাঁর সপ্তাহান্তের ২দিন ছুটি দেশের বাইরে কাটিয়েছেন। অর্থাৎ ৫২ সপ্তাহে ২ দিন করে হলে বছরে সপ্তাহান্তের ছুটিই হয় ১০৪ দিন। এই দিনগুলো তিনি দেশের বাইরে কাটাতেন। তা ছাড়া বিভিন্ন দিবস, ঐচ্ছিক ছুটি মিলিয়ে জেমির ছুটি ছিল বেশি।’

জেমির সঙ্গে চুক্তির ফাঁক থেকে শিক্ষা নিয়ে বাফুফে এখন বলছে, নতুন কোচ সপ্তাহান্তের ছুটি এখানেই (বাংলাদেশ) কাটাবেন। ছুটির দিনে কাজ থাকলে কাজ করবেন। আগামী ক্রিসমাসের আগপর্যন্ত তাঁর সঙ্গে চুক্তি ধরা হয়েছে ১১ মাস। এরপর চুক্তি নবায়ন হলেও সেটা ক্রিসমাসের ছুটি শেষে এক মাসের বিরতি দিয়ে হবে। অর্থাৎ বাফুফে এখানে কৌশলী অবস্থান নিয়েছে।

জেমির চেয়ে হাভিয়েরের বেতন কিছুটা কম। নতুন কোচের কাছে বাফুফের চাওয়াও বেশি নয়।

নতুন কোচকে পছন্দ না হলে বিদায় দিতে যেন সমস্যা না হয়, সেটাও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। জেমির ক্ষেত্রে যা করা হয়নি। ফলে গত সেপ্টেম্বর থেকে জেমিকে কাজবিহীন অবস্থায় রাখলেও তাঁকে বেতন দিতে হয়েছে ঠিকই। এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে জেমি অধ্যায়ের সমাপ্তি টানতে পারেনি বাফুফে। কাজী নাবিল অবশ্য জানিয়েছেন, কয়েক দিনের মধ্যে জেমির সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে সবকিছু শেষ হবে।

অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন কোচের সঙ্গে চুক্তিটা নাকি এমনভাবে করা হয়েছে, যাতে এক মাসের নোটিশেই বিদায় করা যায়।

হাভিয়ের এমন এক কোচ, যিনি বাফুফের সঙ্গে দর–কষাকষির মতো অবস্থায় নেই। শীর্ষ স্তরে কোনো ক্লাব বা জাতীয় দলে আগে কোচিং করাননি। কাজ করেছেন মূলত একাডেমিতে। ফলে জাতীয় দলের কোচের চাকরি পাওয়া হাভিয়েরের জন্য বিশাল কিছু্ই। জেমিরও শীর্ষ স্তরে কোচিংয়ে কোনো অভিজ্ঞতা ছিল না। বাফুফে অভিজ্ঞ কোচ না নিয়ে অনভিজ্ঞদের ওপর ভরসা রাখছে।

default-image

নতুন কোচের সামনে খেলা নেই। জানুয়ারিতে ইন্দোনেশিয়ায় দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা থাকলেও চূড়ান্ত হোওয়া ফুটবলারদের মাত্র ১৫ জনের দুই ডোজ করোনা টিকা নেওয়া থাকায় সফর বাতিল হয়েছে। বাফুফে এখন বলছে, মার্চে প্রীতি ম্যাচ খেলার চেষ্টা করা হবে। জুনে এশিয়ান কাপের বাছাই হতে পারে। এর বাইরে এ বছর সাফ চ্যাম্পিয়ন হবে কি না, নিশ্চিত নয়। ফলে বছরে খুব বেশি ম্যাচ পাবেন না নতুন কোচ।

তাহলে তাঁর কাজ কী হবে সারা বছর? নতুন কোচের কাজের পরিধি মূলত জাতীয় দলকেন্দ্রিক। কাজী নাবিল এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘নতুন কোচ জাতীয় দল আর অনূর্ধ্ব–২৩ দল দেখভাল করবেন। জাতীয় দলের খেলা না থাকলে প্রিমিয়ার লিগের খেলা দেখবেন। নতুন খেলোয়াড় উঠে আসছে কি না, সেটা লক্ষ রাখবেন। খেলোয়াড়েরা সবাই ক্লাবের সঙ্গে থাকেন। তাই বাইরে থেকে খেলোয়াড়দের সারা বছর পর্যবেক্ষণ করবেন জাতীয় দলের কোচ। যেকোনো সময় জাতীয় দলের ক্যাম্প আয়োজনে তৈরি থাকবেন তিনি। এসবই হবে তাঁর কাজ।’

বাফুফে সূত্র জানিয়েছে, জেমির চেয়ে হাভিয়েরের বেতন কিছুটা কম। নতুন কোচের কাছে বাফুফের চাওয়াও বেশি নয়। সব চাওয়া–পাওয়া বরাবরের মতো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ঘিরেই। কাজী নাবিলও সেটাই বলেন, ‘এ বছর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হলে আমরা ফাইনালে খেলতে চাই। এই লক্ষ্যটা দেওয়া হয়েছে নতুন কোচকে। আগামী জুনে এশিয়া কাপের বাছাইয়ে ভালো ফল যেন করা যায়, সেটাও বলা হয়েছে কোচকে। এ ছাড়া ফিফার প্রীতি ম্যাচগুলোয় চাইব ভালো কিছু।’

এ বছর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ না হলে নতুন কোচের সামনে দৃশ্যত বড় কোনো চ্যালেঞ্জ থাকছে না।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন