default-image
গতকাল হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে জাপান ও সেনেগালের ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়। ম্যাচ শেষে জাপান ফুটবল দলের প্রশংসা করেছেন সেনেগালের ফুটবলার।


নিজেদের প্রথম ম্যাচে কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে চমক উপহার দেয় জাপান। ফলে জাপানিজদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে বেশ চাপে ছিল সেনেগাল। মাঠের খেলায় যা পরিণত হয়েছে সত্যে। ম্যাচে দুবার এগিয়ে গিয়েও ২-২ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে সেনেগালকে। আর পয়েন্ট ভাগাভাগি হওয়া ম্যাচে মন জয় করে নিয়েছে জাপানিজরাই। ম্যাচ শেষে স্বয়ং সেনেগালের ফুটবলাররাই এশিয়ান প্রতিনিধিদের বুদ্ধির প্রশংসা করেছেন।

গতকাল ম্যাচের প্রথম দিকে অবশ্য সাদিও মানেদের আধিপত্যই বেশি ছিল। কিন্তু ম্যাচের সময় যতই গড়িয়েছে, উল্টো ততই চাপে পড়ে যাচ্ছিল তাঁরা। ম্যাচ–পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ব্যাপারটি স্বীকারও করে নিয়েছেন সেনেগাল মিডফিল্ডার আলফ্রেড এনদিয়ে, ‘আমরা যখনই ওদেরকে খেলার জায়গা করে দিচ্ছিলাম, তখনই আমাদের জন্য সময়টা কঠিন হয়ে উঠছিল। জাপান খুব টেকনিক্যাল টিম, তা ছাড়া ওদের খেলার মানও অনেক ভালো।’

প্রতিপক্ষদের প্রশংসা যেমন ঝরেছে আলফ্রেডের কণ্ঠে, ঠিক তেমনি নিজেদের সমালোচনাও করেছেন এই মিডফিল্ডার, ‘পোল্যান্ডের বিপক্ষে আমরা যেভাবে খেলেছিলাম, জাপানের সঙ্গে সে রকম খেলতে পারিনি। তবে জাপানিজদের প্রশংসা করতেই হবে, ওরা মাঠে অনেক পরিশ্রম করেছে। এক জায়গায় স্থির ছিল না। সে সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা অনেকটাই কঠিন ছিল আমাদের জন্য। ওদের প্রশংসা করতেই হচ্ছে। তবে এটা সত্যিই একটা অসাধারণ ম্যাচ ছিল।’

গ্রুপ এইচ থেকে এখনো কোনো দলের দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত নয়। শুধু বিদায় নিশ্চিত হয়েছে পোল্যান্ডের। ১ জয় ও ১ ড্র নিয়ে সর্বোচ্চ ৪ পয়েন্ট জাপান ও সেনেগালের। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে কলম্বিয়া। ফলে এ তিন দলের থেকে যে কারোরই সুযোগ থাকছে দ্বিতীয় পর্বে পা রাখার। শেষ ম্যাচে কলম্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে সেনেগাল ও পোল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে জাপান।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন