আজই প্রথম অনুশীলন করেছে নেপাল দল।
আজই প্রথম অনুশীলন করেছে নেপাল দল।ছবি: প্রথম আলো

কলকাতা মোহামেডানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন জামাল ভূঁইয়া। ভারতের আই লিগের দলে অবশ্য এখনই যাওয়া হচ্ছে না তাঁর। জাতীয় দলের ক্যাম্পে আছেন, আগামী সপ্তাহেই নেপালের সঙ্গে দুটি প্রীতি ম্যাচ আছে বাংলাদেশের। মোহামেডানে যোগ দেওয়ার আগেই বাংলাদেশের অধিনায়ককে স্বাগত জানিয়ে রাখলেন নেপাল দলের অধিনায়ক কিরণ চেমজং। এই গোলরক্ষক নিজেও দুই মৌসুম ধরে আই লিগে খেলছেন।

দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলে বড় নাম গোলরক্ষক কিরণ। ২০০৮ সাল থেকে নেপাল জাতীয় দলের গোলপোস্ট সামলাচ্ছেন। ২০১৭ সাল থেকেই খেলছেন দেশের বাইরের লিগ। মালদ্বীপের বড় ক্লাব টিসি স্পোর্টস দিয়ে শুরু, বর্তমানে খেলছেন ভারতের রাউন্ড গ্লাস পাঞ্জাব ক্লাবে (আগের নাম মিনার্ভা পাঞ্জাব)। আই লিগে গত কয়েক বছরে বিদেশি কোটায় খুব বেশি দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবলার দেখা যায়নি। কিরণের সঙ্গে ছিলেন ভুটানের চেনচো গেইলশেন। আসন্ন মৌসুমে কিরণ ও চেনচো খেলবেন একই ক্লাবে।

বিজ্ঞাপন

১৩ ও ১৭ নভেম্বর বাংলাদেশের বিপক্ষে দুটি ম্যাচ খেলবে নেপাল। বৃহস্পতিবার ঢাকায় পা রাখার পর আজই প্রথম অনুশীলন করেছে নেপাল দল। সকালে শেখ জামাল ধানমন্ডির মাঠে ঘাম ঝরিয়েছেন তাঁরা। অনুশীলন শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে জামালের প্রশংসা করেছেন নেপাল অধিনায়ক, ‘বাংলাদেশের জন্য এটা ভালো সংবাদ। আইলিগ বা আইএসএলে দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলারদের সুযোগ পাওয়াটা ইতিবাচক। আমি মনে করি, প্রথম মৌসুমেই জামাল দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করবেন। ভারতে আমি তাঁকে স্বাগত জানাচ্ছি।’

পাঞ্জাবের জার্সিতে ৩০ বছর বয়সী গোলরক্ষক কিরণের এটা দ্বিতীয় মৌসুম। সুযোগ থাকলে জামালকে পাঞ্জাব দলেই নিতেন, ‘জামাল ভালো খেলোয়াড়। আমাদের সম্পর্কটাও খুব ভালো। ব্যক্তিগতভাবে সুযোগ থাকলে আমিই তাঁকে পাঞ্জাবে নিতাম।’ নেপালের বিপক্ষে ম্যাচ দুটি শেষে ২০ তারিখে কলকাতায় যোগ দেওয়ার কথা জামালের।

default-image

ঘণ্টাখানেক পরই বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকেও কথা বলতে হয়েছে জামালের কলকাতা মোহামেডানে যোগ দেওয়ার ব্যাপারে। বাংলাদেশ-নেপাল ম্যাচকে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে উঠেছিল জামাল প্রসঙ্গ। কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমাদের দেশের খেলোয়াড়েরা বাইরে খেলবে এটা আমার স্বপ্ন। বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা এশিয়ার সব জায়গায় খেলুক, এটাই আমার চাওয়া।’ ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশের প্রথম ফুটবলার হিসেবে বিদেশের লিগে (হংকং) খেলেছিলেন সালাউদ্দিন।
২০১৪ সালে মামুনুল ইসলামের পর প্রায় ছয় বছর বাদে বিদেশের কোনো লিগে নাম লিখিয়েছেন জাতীয় দলের কেউ। আইএসএলের দল অ্যাটলেটিকো ডি কলকাতা নিয়েছিল মামুনুলকে। কিন্তু তখনকার বাংলাদেশ অধিনায়ক কলকাতার হয়ে একটি ম্যাচেও মাঠে নামার সুযোগ পাননি।

আইএসএল ভারতীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ স্তর। আই লিগকে বর্তমানে ভারতের দ্বিতীয় স্তর বলে ধরা হয়। সে লিগের দল মোহামেডানে যোগ দিয়ে ভারতে বাংলাদেশের ফুটবলের দূত হওয়ার প্রত্যাশার কথা শুনিয়েছেন জামাল, ‘আমি আই লিগে খেলব। ভালোভাবে যদি নিজের কাজটা করতে পারি, তাহলে আমার পর বাংলাদেশের আরও খেলোয়াড় সেখানে যেতে পারে। তরুণদের সামনে দরজা খুলতে পারে। এতে দেশের ফুটবল উপকৃত হবে। আমি বাংলাদেশের ফুটবলের দূত হতে চাই।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0