জার্মানির সঙ্গে হিসাব মেলাবেন রোনালদো?

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো জার্মানির বিপক্ষে জ্বলে উঠবেন?ছবি: রয়টার্স

আগের ম্যাচে হাঙ্গেরির বিপক্ষে দুই গোল করেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো গড়েছেন ইউরোর মূল টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ড। ইউরোতে ২২ ম্যাচে ১১ গোল হলো তাঁর।

আন্তর্জাতিক ফুটবলে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডে ইরানের আলী দাইয়িকে ছোঁয়ার আরও কাছে চলে গেছেন তিনি। পর্তুগিজ যুবরাজের গোল ১০৬টি, আলী দাইয়ির ১০৯টি। ইউরোতে আজ জার্মানির বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে আলী দাইয়িকে ছুঁয়ে ফেলবেন না রোনালদো, সে বাজি ধরার মানুষ সম্ভবত খুব বেশি পাওয়া যাবে না।

তবে প্রতিপক্ষ যখন জার্মানি, রোনালদোর গোলের বান ছোটার কল্পনায় একটু বাধও দিতে হয়। বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১০টায় ইউরোতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে যখন মিউনিখে জার্মানির বিপক্ষে নামবে পর্তুগাল, রোনালদোর মনে হয়তো ভেসে উঠবে পুরোনো কিছু হিসাব-নিকাশ। যেগুলো আজ মিলিয়ে দিতে চাইবেন পর্তুগাল অধিনায়ক।

জার্মানির বিপক্ষে এখন পর্যন্ত চার ম্যাচে রোনালদো ছিলেন রোনালদোর ছায়া হয়ে।
ছবি: রয়টার্স

কী হিসাব-নিকাশ? এই ৩৬ বছর বয়সেও রোনালদো মানে গোলের বান ঠিকই, কিন্তু ক্যারিয়ারজুড়ে কখনোই জার্মানির বিপক্ষে সে বান ছোটাতে পারেননি রোনালদো। জার্মানির বিপক্ষে রোনালদোর গোলের ধারাতেই যেন গ্রীষ্মের খরতাপ! গোলের ধারা সেখানে শুকনো, খটখটে।

এ নিয়ে জার্মানির বিপক্ষে ৪টি ম্যাচ খেলেছেন রোনালদো, ৪ ম্যাচে পুরো ৩৬০ মিনিটই মাঠে ছিলেন, সব মিলিয়ে ২৩টি শট নিয়েছেন জার্মানির গোলপোস্ট লক্ষ্য করে...কিন্তু কখনোই জার্মানির বিপক্ষে গোলের উল্লাসে মেতে ওঠার সুযোগ হয়নি তাঁর।

অকল্পনীয় লাগছে, তাই না? তাহলে পরের তথ্যটি আরও অবাক করে দেবে আপনাকে। আন্তর্জাতিক ফুটবলে আরেকটি দল আছে, যাদের বিপক্ষে এর চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেও কোনো গোল করতে পারেননি রোনালদো। দলটির নাম? ফ্রান্স—ইউরোতে এবার জার্মানি ও পর্তুগালের গ্রুপ–সঙ্গী! ফরাসিদের বিপক্ষে ৬ ম্যাচ খেলেও গোলশূন্য রোনালদো।

হাঙ্গেরির বিপক্ষে গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দুই গোল করেছেন রোনালদো।
ছবি: রয়টার্স

ফ্রান্সের বিপক্ষে পর্তুগালের ম্যাচ তো আগামী বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত একটায়, সে ম্যাচের হিসাব পরে। আপাতত জার্মানির ম্যাচের হিসাবই হোক। আজকের ম্যাচে গোল পেলে আরেকটি ছোট্ট রেকর্ডেও ভাগ বসানো হয়ে যাবে রোনালদোর।

রেকর্ডটি জার্মানির এক সাবেক স্ট্রাইকারেরই দখলে—মিরোস্লাভ ক্লোসা। ইউরোপিয়ান অঞ্চলের ফুটবলারদের মধ্যে ইউরো ও বিশ্বকাপ মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড। ক্লোসার গোল ১৯টি, রোনালদোর গোল এখন পর্যন্ত ১৮টি।

জার্মানি-পর্তুগাল ম্যাচে নজর কাড়বে আরও যে সংখ্যাগুলো—


ইউরোতে আজ পঞ্চমবারের মতো দেখা হতে যাচ্ছে জার্মানি ও পর্তুগালের। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে এর চেয়ে বেশি মুখোমুখি হয়েছে শুধু স্পেন ও ইতালি (৬ বার)।

১৭
সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে পর্তুগাল ও জার্মানির মধ্যকার সর্বশেষ ৫ ম্যাচে গোল হয়েছে ১৭টি। অর্থাৎ প্রতি ম্যাচে গড়ে ৩.৪টি গোল! এই পাঁচ ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই গোল হয়েছে তিনটি বা তার বেশি।

রোনালদোর প্রতিকৃতি নিয়ে মাঠে হাজির তাঁর এক ভক্ত।
ছবি: রয়টার্স


সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে সর্বশেষ ৩০ ম্যাচের মাত্র দুটিতে হেরেছে পর্তুগাল (জয় ১৯, ড্র ৯)। এই ৩০ ম্যাচে গোল করেছে ৬৭টি, খেয়েছে ১৯টি।


বড় টুর্নামেন্টে (ইউরো ও বিশ্বকাপ) গ্রুপ পর্বে সর্বশেষ চার ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে জার্মানি। এত ম্যাচ হারতে এর আগে জার্মানির লেগেছিল ২৪ ম্যাচ (জয় ১৬, ড্র ৫)। ২০০০ ইউরোতে ইংল্যান্ড ও পর্তুগালের কাছে হারের পর কোনো বড় টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বে টানা দুই ম্যাচে হারেনি জার্মানি।

১০০
ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচে ঠিক ১০০টি সঠিক পাস দিয়েছেন জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুস। ইউরোপিয়ান দলগুলোর জন্য সর্বশেষ তিনটি বড় টুর্নামেন্টে (২০১৬ ইউরো, ২০১৮ বিশ্বকাপ, ২০২০ ইউরো) এ নিয়ে ৬ বার কোনো জার্মান খেলোয়াড়কে ম্যাচে ১০০টি সঠিক পাস দিতে দেখা গেল। ছয়বারই খেলোয়াড়ের নাম টনি ক্রুস!