জুভেন্টাসে শেষ হয়ে এল রোনালদোর সময়?
জুভেন্টাসে শেষ হয়ে এল রোনালদোর সময়? ছবি: রয়টার্স

বার্সেলোনার সঙ্গে লিওনেল মেসির চুক্তি শেষ হয়ে যাবে জুনে। ম্যানচেস্টার সিটির সের্হিও আগুয়েরোর অবস্থাও একই। এ দুই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের মতো রিয়াল মাদ্রিদের তারকা সের্হিও রামোসেরও বর্তমান চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে জুনে। ইউরোপিয়ান ফুটবলে আসন্ন দলবদলের আগে এসব নিয়ে আলোচনা স্বাভাবিক হচ্ছে। কিন্তু হঠাৎ করেই মেসি-আগুয়েরো-রামোসকে আড়াল করে দলবদলের আলোচনার মধ্যমণি হয়ে গেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে পোর্তোর বিপক্ষে জিতেও অ্যাওয়ে গোলের হিসেবে ছিটকে পড়ে জুভেন্টাস। রিয়াল মাদ্রিদে ৯ মৌসুমে ৪টি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জেতা রোনালদো জুভেন্টাসে নাম লেখানোর পর ৩ মৌসুমে কোয়ার্টার ফাইনালের সীমানাই পেরোতে পারেননি। ২০১৮-১৯ মৌসুমে প্রথম জুভেন্টাসকে তবু কোয়ার্টার ফাইনালে তুলেছিলেন, কিন্তু গত মৌসুমের মতো এবারও শেষ ষোলোতেই আটকে থাকতে হয়েছে রোনালদোদের।

বিজ্ঞাপন
default-image

জুভেন্টাসের সমর্থকদের জন্য এটা বড় এক মনঃকষ্টের কারণ। তাহলে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের আশায় এত অর্থ ব্যয় করে রোনালদোকে কিনে কী আর লাভ হলো! এই মনঃকষ্ট তাঁদের আরও বেড়েছে পোর্তোর বিপক্ষে রোনালদোর একটি শিশুতোষ ভুলের কারণে। ম্যাচটিতে রোনালদোর ওই ভুলের জন্যই অতিরিক্ত সময়ে একটি গোল খেতে হয়েছে জুভেন্টাসকে, প্রতিপক্ষের ফ্রি-কিকের সময় দেয়ালে দাঁড়ানো রোনালদোর পায়ের নিচ দিয়েই বল চলে যায় জুভেন্টাসের জালে। ওই গোলেই ছিটকে পড়ে জুভেন্টাস।

পোর্তোর বিপক্ষে ওই ম্যাচের পরই সমালোচনার তির ছুটে যেতে থাকে রোনালদোর দিকে। কেউ কেউ তো জুভেন্টাসে তাঁর ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁদের মধ্যে জুভেন্টাসের সাবেক সভাপতি জিওভান্নি কোবল্লিও আছেন। তাঁর মতে, জুভেন্টাসের উচিত রোনালদোকে বিক্রি করে দেওয়া। রোনালদোকে নিয়ে এই আলোচনায় সর্বশেষ যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসের সাবেক ফরোয়ার্ড সালভাতর শিলাচ্চি। ইতালির সাবেক এই ফরোয়ার্ড মনে করেন, জুভেন্টাসে এ মৌসুমই শেষ রোনালদোর।

default-image

১৯৯০ বিশ্বকাপে গোল্ডেন বুট জেতা শিলাচ্চি গাজেত্তা দেল্লো স্পোর্তকে বলেছেন, ‘তুরিনে এটাই তার শেষ মৌসুম হবে। আমি জানি না ক্লাব তাকে চুক্তি নবায়নের প্রস্তাব দেবে কি না। তবে আমি একটা ব্যাপারে নিশ্চিত, নতুন ক্লাব পেতে তার খুব বেশি সময় লাগবে না।’ রোনালদোকে সময়ের সেরা ফরোয়ার্ড মনে করা শিলাচ্চি এরপর যোগ করেন, ‘সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে, চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে জুভেন্টাস ছিটকে পড়ার পর তার যে সমালোচনাটা হয়েছে। আমাদের মনে রাখতে হবে, আমরা বিশ্বের সেরা ফরোয়ার্ডকে নিয়ে কথা বলছি। যে কারোরই একটা বাজে ম্যাচ যেতে পারে। ওই ম্যাচে জুভেন্টাসই হয়তো প্রতিপক্ষকে ছোট করে দেখেছিল!’

পোর্তোর বিপক্ষে ম্যাচটি মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে রোনালদোকে তাঁর মতো করে খেলতে দেওয়ার অনুরোধ জুভেন্টাসকে জানিয়েছেন শিলাচ্চি, ‘পোর্তোর বিপক্ষে ম্যাচটি যে একটি হোঁচট ছিল, এটা দেখানোর জন্য তাকে ক্লাবের জন্য আর তার নিজের জন্য সেরা খেলাটা উপহার দিতে সুযোগ দিন।’

বিজ্ঞাপন
default-image

কে জানে জুভেন্টাস শিলাচ্চির কথা শুনে রোনালদোকে রেখে দেবে কি না, নাকি সমর্থক আর সাবেক কর্মকর্তাদের সমালোচনা শুনে তাঁকে বেচে দেওয়ারই সিদ্ধান্ত নেবে। তবে রোনালদোর জুভেন্টাস-ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা ওঠার পরই ফুটবল বিশ্বে গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে—কোথায় যেতে পারেন পর্তুগিজ তারকা! অনেকেই তাঁর রিয়াল মাদ্রিদ বা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন। বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকেরা সম্প্রতি রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদানকে প্রশ্নও করেছেন।

জিদান সেই প্রশ্নের যে উত্তর দিয়েছেন, তাতে নতুন করে গুঞ্জন তৈরি হয়েছে। রোনালদোর কি রিয়ালে প্রত্যাবর্তনের কোনো সম্ভাবনা আছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে জিদান বলেছেন—ফুটবলে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন