বিজ্ঞাপন

তবে এই মৌসুমের জমাট গল্প এখনো শেষ হয়নি। গ্রানাদার মাঠে আজ ৪-১ গোলের জয়ে নিজেদের কাজ সেরে রাখার পথে এগিয়ে গেল রিয়াল। ৩৬ ম্যাচে ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে উঠে এল গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।

তাদের সমান ম্যাচে ৮০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আতলেতিকো মাদ্রিদ। বার্সেলোনাও সমান ম্যাচে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে। তিন দলের হাতেই রয়েছে আর ২টি করে ম্যাচ। আতলেতিকো বাকি দুই ম্যাচ জিতলেই চ্যাম্পিয়ন। কিন্তু দিয়েগো সিমিওনের দল পয়েন্ট হারালে নাটক আরও জমবে।

default-image

রক্ষণ নিয়ে জিদানের কপালে ঘাম ছুটলেও অবশ্য গ্রানাদার মাঠে আজ কোনো নাটক জমেনি। তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মিশেলে প্রথম গোলটি পাওয়ার পর করিম বেনজেমা ও রদ্রিগোর খেলার ধার বেড়েছে। গোল পেয়েছেন দুজনেই।

গ্রানাদা ডিফেন্ডারের ভুলের সুযোগ নিয়ে ডান প্রান্ত দিয়ে বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে রদ্রিগো গোলের দেখা পান প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে। গ্রানাদা তখনো রিয়ালের গোলপোস্ট তাক করে একটি শট নিতে পারেনি! ২৭ মিনিটে গ্রানাদা ফরোয়ার্ড মলিনা সুযোগ পেলেও গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়ার কল্যাণে বেঁচে যায় রিয়াল।

রদ্রিগোর কোনাকুনি শট থেকে ফিনিশিংয়ের শিক্ষা নিতে পারেন ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গারের গোলের মিনিটখানেক আগে প্রতি আক্রমণ থেকে গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করেন ভিনিসিয়ুস।

মাত্র চার ডিফেন্ডার নিয়ে এই ম্যাচে জয়ের ছক কষেছিলেন জিদান। মাঝমাঠে ছিলেন না টনি ক্রুস। কাসেমিরো, মদরিচ ও ফেদে ভালভার্দের সমন্বয়ে মাঝমাঠ সামলেছে রিয়াল। রক্ষণ থেকে উঠে বল কাড়ার সঙ্গে গ্রানাদার প্রতি আক্রমণ ঠেকাতেও দারুণ ছিলেন নাচো। গতি ও মাঝ মাঠে খেলা তৈরি করে দুই প্রান্ত দিয়ে আক্রমণ করেছে রিয়াল।

default-image

এর মাঝে দুটো পরিষ্কার সুযোগ পেয়েছিলেন রিয়ালের গোলের ভরসা বেনজেমা। প্রথমার্ধে তাঁর হেড অবিশ্বাস্য দক্ষতায় রুখে দেন গ্রানাদা গোলরক্ষক। কিন্তু ৭৬ মিনিটে তাঁর ভুলে বেনজেমার কাছ থেকে গোলও হজম করে গ্রানাদা। বক্সের বাইরে এসে পাস ঠিকমতো দিতে পারেননি সিলভা। বেনজেমা বল পেয়ে ৪০ গজ দূর থেকে বল পাঠান ফাঁকা জালে।

ফরাসি স্ট্রাইকারের গোল থেকে তার আগের ৬ মিনিটের মধ্যে মোট তিন গোলের দেখা পাইয়ে দেয় দুই দল। বিরতির পর খানিকটা গা ঝাড়া দিয়ে ওঠা গ্রানাদার হয়ে খেলার ধার বাড়ান বদলি হয়ে মাঠে নামা সুয়ারেজ। ৭১ মিনিটে তাঁর শট কোর্তোয়া রুখে দিলেও ফিরতি বলে গোল করেন মলিনা।

বদলি হয়ে মাঠে নামা ওদ্রিওসোলা এর ৪ মিনিট পর যে গোলটি করেন, সেটি ভবিষ্যৎতে রিয়ালের হয়ে রাইটব্যাক হিসেবে তাঁর খেলার সুপারিশ করবে। বাঁ প্রান্ত দিয়ে গড়া আক্রমণে বল পাবেন ভেবে ওপরে উঠে এসেছিলেন ওদ্রিওসোলা। বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের শটে গোল করেন।

default-image

মিগুয়েলের সঙ্গে ২০ বছর বয়সী মারভিন পার্ককেও আজ শুরু থেকে খেলান জিদান। দুই তরুণই প্রতিশ্রুতির সৌরভ ছড়ান। লা লিগায় শেষ দুই ম্যাচে অ্যাথলেটিক বিলবাও ও ভিয়ারিয়ালের মুখোমুখি হবে রিয়াল।

রোববার বিলবাওকে রিয়াল যদি হারাতে না পারে এবং ওসাসুনার বিপক্ষে আতলেতিকো জিতলে শিরোপা মাদ্রিদেই যাবে, তবে সেটি হাতে তুলবেন সিমিওনে ; আতলেতিকোর কোচ। সেদিন সেল্তা ভিগোর মুখোমুখি হবে বার্সা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন