‘থেকে যাও মেসি’—বার্সা সমর্থকদের আরজি

মেসিকে নিয়ে ক্যাম্প ন্যূর বাইরে বার্সা সমর্থকদের বিক্ষোভ
মেসিকে নিয়ে ক্যাম্প ন্যূর বাইরে বার্সা সমর্থকদের বিক্ষোভছবি: এএফপি
বিজ্ঞাপন

গতকাল বাকি আর দশ দিনের মতো রুটিনমাফিক নিজেদের কাজ করছিলেন হয়তো বার্সা সমর্থকেরা। মন হয়তো একটু খারাপ ছিল, প্রিয় দলের কথা ভেবে। বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ৮-২ গোলের হারের ব্যথাটা যে এখনো দগদগে। সে ব্যথা কমবে কী, গতকাল এমন এক খবর বেরোল, চিন্তায় মাথার ঘাম ছুটে যাওয়ার জোগাড়!

আইনজীবীর সাহায্য নিয়ে ফ্যাক্সের মাধ্যমে মেসি বার্সেলোনাকে জানিয়ে দিয়েছেন, ক্লাবে থাকার ইচ্ছে নেই তাঁর। তাঁর চুক্তি যেন বাতিল করা হয়। এই এক খবর নিয়েই সরগরম ফুটবলপাড়া। ওদিকে নির্ভরযোগ্য সাংবাদিক মার্সেলো বেকলার জানিয়েছেন, সিটিতে যাওয়ার জন্য মেসি প্রস্তুত। সাবেক কোচ গার্দিওলার অধীনে আবারও খেলতে তর সইছে না আর্জেন্টাইন তারকার। ওদিকে রেডিও কাতালুনিয়ার সাংবাদিক জাভি কাম্পোস আরও এক কাঠি সরেস। তিনি জানিয়েছেন, সিটিতে যাওয়ার ব্যাপারে এর মধ্যেই গার্দিওলার সঙ্গে ফোনালাপ করেছেন মেসি।

default-image

কিন্তু মেসি চলে গেলে বার্সেলোনার কী হবে? মেসি ছাড়া কী বার্সেলোনা কল্পনা করা যায়? না বার্সেলোনা ছাড়া মেসিকে? ব্যাপারটা একদম মানতেই পারছেন না কাতালান দলটার সমর্থকেরা। অবুঝ মন কিছুতেই মানতে চাইছে না তাঁদের, যে মেসিকে অন্য দলের জার্সিতে দেখতে হবে, ক্যাম্প ন্যু এর ১০ নম্বর জার্সিতে পাঁচ অক্ষরের ওই নামটা জ্বলজ্বল করবে না। তাই তাঁরা খবর বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জমায়েত হয়েছে ন্যু ক্যাম্পের বাইরে। চলছে বিক্ষোভ, আন্দোলন। ‘মেসি তুমি চলে যেও না’, ‘মেসি তুমি থেকে যাও’, ‘বার্তোমেউয়ের পদত্যাগ চাই’, এমনও হাজারো স্লোগানে মুখরিত ক্যাম্প ন্যু প্রাঙ্গণ। প্রিয় তারকাকে যেকোনোভাবেই হোক, ক্লাবে ধরে রাখতেই হবে যে!

সংবাদ সংস্থা এএফপিকে রুবেন তেরেহো নামের এক ২৮ বছর বয়সী সমর্থক জানিয়েছেন,আমি ওকে অন্য ক্লাবের হয়ে দেখতে পারব না। এটা সম্ভবই না। আমি এটা বিশ্বাস করতে পারছি না। আমার মনে হচ্ছে মেসি এটা করেছে বর্তমান কর্তাব্যক্তিদের একটা আলটিমেটাম দেওয়ার জন্য।

সেটা হলেই বরং ভালো বার্সা সমর্থকদের জন্য!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন