বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্যাট্রিক আসোউমোউ এয়ি অনূর্ধ্ব-১৭ দলের অপ্রাপ্তবয়স্ক খেলোয়াড়দের ধর্ষণ করেছেন।

গার্ডিয়ানের কাছে ভুক্তভোগীদের অনেকেই অভিযোগ করেন, এখন গ্যাবনের শীর্ষ লিগে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর প্যাট্রিক আসোউমোউ এর আগে অনূর্ধ্ব-১৭ দলের দায়িত্বে থাকার সময় খেলোয়াড়দের নিজের বাসায় যাওয়ার লোভ দেখাতেন। নিজের বাসার তিনি নাম দিয়েছিলেন ‘স্বর্গোদ্যান’।

কেউ কেউ অভিযোগ করেন, অন্য ব্যক্তিদের কাছেও দল থেকে ছেলেদের পাঠাতেন। ২০১৭ সালে প্যাট্রিক আসোউমোউ অনূর্ধ্ব-১৭ দলের দায়িত্ব ছাড়েন। তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে সরাসরি কোনো মন্তব্য পায়নি গার্ডিয়ান।

গ্যাবন ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক এক কর্মকর্তা গার্ডিয়ানকে জানান, ২০১৯ সালে তিনি বোর্ড মিটিংয়ে প্যাট্রিক আসোউমোউকে ঘিরে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উত্থাপন করেছিলেন। কিন্তু ফল হয় উল্টো—সেই কর্মকর্তাকেই ছাঁটাই করা হয়।

গ্যাবন ফুটবল ফেডারেশনও (ফেগাফুট) প্যাট্রিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে। দেশের বিচারব্যবস্থায় আস্থা নেই বলেই ভুক্তভোগী খেলোয়াড়েরা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেনি বলে জানায় গার্ডিয়ান। তবে ফিফায় এ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ করেছে ফুটবলারদের আন্তর্জাতিক সংগঠন (ফিফপ্রো)।

গ্যাবন অনূর্ধ্ব-১৭ দলে ২০১৫ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত খেলা এক ভুক্তভোগী গার্ডিয়ানকে বলেন, ‘সে (প্যাট্রিক আসোউমোউ) জোর করে আমাকে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করত। এটাই ছিল দলে থাকার শর্ত। এদিকে পরিবারকে সাহায্য করতে আমাকে বাড়ি ছাড়তে হয়। রাজধানীতে (লিব্রেভিল) থেকে পেশাদার ফুটবলার হওয়ার চেষ্টা করছিলাম, জানতাম এটাই মুক্তির একমাত্র পথ। তাই পরিবারকে সাহায্য করতে আমার যা করার দরকার ছিল, সেটাই করেছি।’

default-image

প্যাট্রিক আসোউমোউ গ্যাবন ফুটবলে ‘ক্যাপেলো’ নামে পরিচিত। তাঁর অপকর্ম নিয়ে সেই ভুক্তভোগী আরও তথ্য দেন, ‘ক্যাপেলো অনেক ছেলেকেই ধর্ষণ করেছে। মাঝেমধ্যে প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেত নতুন ছেলে খুঁজতে। সে ছেলেদের দারিদ্র্যের সুযোগ নিয়েছে, অন্য কর্মকর্তাদের কাছেও ছেলেদের পাঠাত। দশকের পর দশক ধরে এটাই গ্যাবনিজ ফুটবলের বাস্তবতা। কেউ এই প্রক্রিয়া বন্ধ করতে পারেনি। পিশাচরা সংখ্যায় অনেক বেশি...আমাদের জন্য নরকযন্ত্রণা।’

গত বৃহস্পতিবার গার্ডিয়ানে এ প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার এক দিন পর সংবাদ সংস্থা এএফপিকে গ্যাবনের ক্রীড়ামন্ত্রী ফ্রাঙ্ক এনগুয়েমা জানান, দেশের প্রেসিডেন্ট আলী বঙ্গো ওনদিম্বা ‘ফুটবলে শিশু ছেলেমেয়েদের ওপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগের তদন্ত করতে বিচারবিভাগীয় মন্ত্রীকে নির্দেশ দিয়েছেন।’

দেশের সব ক্রীড়া ফেডারেশন থেকে ‘যৌন নির্যাতনকারী পিশাচদের দূর করার’ নির্দেশও করেছেন গ্যাবনের প্রেসিডেন্ট।গ্যাবন ফুটবল ফেডারেশন গতকাল শুক্রবার প্যাট্রিক আসোউমোউকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়।

জাতীয় ফুটবল লিগের নৈতিকতা কমিটিকে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ আনুষ্ঠানিকভাবে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে ফেডারেশন। এ তথ্য এএফপিকে জানিয়েছেন ফেডারেশনের মুখপাত্র মৌসোদজি এনগোমা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন