বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ফিফার প্রস্তাবিত সম্মেলন যতই এগিয়ে আসছে, উয়েফার উদ্বেগও ততই বাড়ছে। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে সেই উদ্বেগের কথা জানিয়েছে তারা। বিবৃতিতে প্রথমেই তারা লিখেছে, ‘যে পদ্ধতিতে কাজটা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, সেটাতে উয়েফা হতাশ। বিষয়টির সঙ্গে যাদের স্বার্থ জড়িত, তাদের মতামত না নিয়েই বা তাদের সঙ্গে কোনো প্রকার আলোচনা না করেই এমন একটি আমূল পরিবর্তনের বিষয় সর্বসাধারণের সামনে নিয়ে আসা হয়েছে।’

ফিফার কাজের পদ্ধতির সমালোচনা করে উয়েফা তাদের বিবৃতিতে নিজেদের উদ্বেগের কারণগুলো ব্যাখ্যা করেছে এভাবে, ‘এই পরিকল্পনা সত্যিকার অর্থেই বিপজ্জনক। বিশেষ করে বিশ্বের শীর্ষ ফুটবল প্রতিযোগিতার মূল্যমান কমবে।’ ফিফা এর আগে বলেছে, তুলনামূলক ছোট দলগুলোর ভালোর জন্যই এমন পরিকল্পনা করেছে তারা। কিন্তু উয়েফা বলছে এর উল্টোটা, ‘নিয়মিত ম্যাচ কমিয়ে ফেললে তুলনামূলক দুর্বল জাতীয় দলগুলোর বরং ক্ষতিই হবে।’

default-image

উয়েফার বিবৃতিতে এরপর লেখা হয়েছে, ‘ফিফার পরিকল্পনায় নজর বুলিয়ে আমরা গুরুতর উদ্বেগের কয়েকটি কারণ দেখেছি। উয়েফা বিশ্বাস করে (দুই বছর পরপর বিশ্বকাপ আয়োজন করা হলে) ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক ফুটবলের সূচি কেমন হবে সেটা নিয়ে ফিফা, বিভিন্ন কনফেডারেশনস আর এতে যাদের স্বার্থ রয়েছে; সব পক্ষ মিলে অবশ্যই আলোচনা করতে হবে।’

দুই বছর পরপর বিশ্বকাপ আয়োজন করা হলে ফুটবলাররাও যে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন, তা নিয়েও উদ্বেগের কমতি নেই উয়েফার। তাদের কথা, বেশি ম্যাচ খেলার ধকলে ভবিষ্যতে ফুটবলারদের ক্যারিয়ার সংক্ষিপ্ত হয়ে যেতে পারে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন