default-image

কাল ঢাকায় ফিরে আজ সকালেই সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন জামাল ভূঁইয়া। ঘরের ছেলে যেন ঘরে ফিরে এসেছে। বাংলাদেশের অধিনায়ককে কীভাবে বরণ করে নিতে হয়, তা ভালো করেই জানা আছে তাঁর ক্লাব সাইফের। সকালের অনুশীলনে জামালকে কেক কেটে বরণ করে নিয়েছেন ক্লাবের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাসিরউদ্দিন চৌধুরী। দুপুরে ক্লাব অফিসে তাঁর সঙ্গে সেরে ফেলেছেন আনুষ্ঠানিক চুক্তিও।

দলে ফিরে অধিনায়কত্বের দায়িত্বও ফিরে পেয়েছেন জামাল। কলকাতা মোহামেডানের জার্সিতে আই লিগে খেলার জন্য গত ২৪ ডিসেম্বর থেকে কাল পর্যন্ত কলকাতায় ছিলেন জামাল। প্রায় তিন মাস পর ঢাকায় ফিরে আজই প্রথম অনুশীলন করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

বিজ্ঞাপন
default-image

বাংলাদেশে বহু দিন পর অনুশীলন করছেন। ফেরার অনুভূতি কেমন, তা জিজ্ঞেস করতেই জাতীয় দলের অধিনায়কের উত্তর, ‘কলকাতার চেয়ে ঢাকায় গরম বেশি।’ কলকাতার কথা মনে পড়ছে কি না, এমন প্রশ্নে জামালের উত্তর, ‘এখনই না। তবে এক-দুই মাস পর থেকে টান অনুভব করতে শুরু করব।’

কলকাতা মোহামেডানের হয়ে খেলা শেষ করে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় পর্বে জামাল তাঁর পুরোনো ক্লাব সাইফের হয়ে খেলবেন, তা আগে থেকেই চূড়ান্ত ছিল। সেটির আনুষ্ঠানিকতা সেরে নিয়েছে দুই পক্ষ। লিগের প্রথম পর্ব শেষে ২২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থানে সাইফ। ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে প্রায় ধরাছোঁয়ার বাইরে শীর্ষে থাকা বসুন্ধরা। টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকা শেখ জামালের পয়েন্ট ২৬ ও তৃতীয় স্থানে থাকা আবাহনীর পয়েন্ট ২৫।

দ্বিতীয় পর্বে এখনো অনেক কিছু সম্ভব। লিগ শেষে সাইফকে কোথায় দেখতে চান জামাল? দ্বিতীয় স্থানেই চোখ জামালের, ‘বসুন্ধরা এরই মধ্যে অনেক ওপরে চলে গিয়েছে। এখন দ্বিতীয় হওয়াটাই আমাদের লক্ষ্য এবং এটা সম্ভব। দ্বিতীয় পর্বে আমাদের ভালো খেলতে হবে।’

default-image

সাইফ থেকে আগের মতোই পারিশ্রমিক পাবেন জামাল। বাফুফের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবারের মৌসুমে সর্বশেষ বাতিল হওয়া মৌসুমের ৩৫ শতাংশ পারিশ্রমিক পাবেন স্থানীয় ফুটবলাররা। কিন্তু জামালের ক্ষেত্রে এ ধরনের শর্ত রাখেনি সাইফ। ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাসিরউদ্দিন বলেন, ‘জামাল আগের মতোই পারিশ্রমিক পাবেন। আগের মৌসুমের চুক্তির কোনো প্রভাব পড়বে না। আমাদের নতুন চুক্তি আজ শুরু হয়ে প্রায় ২০২২ সালের শেষ পর্যন্ত। আমাদের দলের বেশির ভাগ ফুটবলারই তরুণ। তরুণ খেলোয়াড়দের অনুপ্রেরণা দেওয়ার জন্য জামালের মতো একজন রোল মডেলই আমাদের পছন্দ। যার কাছে থেকে তরুণ খেলোয়াড়েরা শিখতে পারবেন।’

নেপালের আমন্ত্রণমূলক টুর্নামেন্ট খেলতে ২২ মার্চ দলের সঙ্গে যোগ দেবেন জামাল। কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠেয় এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ আছে বলেও মনে করেন দলের নিয়মিত অধিনায়ক। ২৩ মার্চ কিরগিজস্তান অলিম্পিক দলের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করবে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচ স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে ২৭ মার্চ। তিন দল একে অপরের বিপক্ষে খেলে সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জনকারী দুটি দল ফাইনালে খেলবে ২৯ মার্চ।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন