বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

২০১৯ সালে ৮ কোটি ৬০ লাখ ইউরোর বিনিময়ে আয়াক্স থেকে ডি ইয়ংকে নিয়েছিল বার্সেলোনা। আয়াক্সের হয়ে মাঝমাঠে খেলা নিয়ন্ত্রণ করা ডি ইয়ং মাঝেমধ্যেই নিজের সামর্থ্য দেখালেও পরিপূর্ণ খেলাটা কখনো দেখাতে পারেননি। জাভির অধীনে প্রথম কয়েকটি ম্যাচে আবার ঔজ্জ্বল্য ছড়াচ্ছিলেন। কিন্তু কাল তাঁর খেলা দেখে চেনার উপায়ই ছিল না। সাবেক ডাচ ডিফেন্ডার রন ভ্লার তো রীতিমতো দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছেন, ‘এখন সে এমনভাবে খেলে, দেখে মনে হয় পিঠে ৫০ কেজির আলুর বস্তা বেঁধে নেমেছে। আমরা সবাই জানি সে কী দিতে পারে, কিন্তু এই দলে সেটা দেখাতে পারছে না। সে একদম ভুল জায়গায় খেলছে।’

default-image

অ্যাস্টন ভিলার সাবেক ডিফেন্ডারের ধারণা, বার্সেলোনা ছেড়ে এখনই অন্য কোনো দলে যাওয়া উচিত ডি ইয়ংয়ের। ভ্লার বলছেন, আয়াক্স ছেড়ে বার্সেলোনা বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে নির্ঘাত অনুশোচনা হচ্ছে ২৪ বছর বয়সীর। আরটিএলসেভেনকে বলেছেন, ‘আমার মনে হয় সে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা নিয়ে এখন মাথা চুলকায়। সে তো বায়ার্ন মিউনিখেও যেতে পারত। আপনার কী মনে হয়, সে বায়ার্ন মিউনিখে অন্য রকম খেলত না? আয়াক্সে তো তাই করত। এমন এক দলে গিয়ে ভুল করেছে। বার্সেলোনায় এখন সে দল নেই এবং তারা টাকাও খরচ করতে পারবে না।’

default-image

সাবেক লিভারপুল ফরোয়ার্ড ডির্ক কাউটও হতাশ ডি ইয়ংয়ের খেলায়, ‘সে সব সময় দলের খেলা বদলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। ও আরেকটু সামনে খেললেই খুশি হতাম। গোল করার মতো অবস্থানে গেলে ভালো লাগত। কিন্তু সে শট নেওয়ার মতো জায়গাতেই যায়নি। ওর মধ্যে এটা আবার দেখতে পারলে ভালো লাগত, কারণ আগে সব সময় সে এটা করত। সে দুর্দান্ত এক খেলোয়াড়, সে ইউরোপের সেরাদের মধ্যে আছে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন