১০৩ গোল হয়ে গেল রোনালদোর।
১০৩ গোল হয়ে গেল রোনালদোর।ছবি : রয়টার্স

পৃথিবীতে লিওনেল মেসি-ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর রাজত্ব চলছে আজ থেকে না। একজনের ক্যারিয়ার শুরু ২০০৩ সাল থেকে, আরেকজনের ২০০৪ থেকে। সেই থেকে এই দুজন যে ফুটবলপ্রেমীদের জাদু দেখিয়ে চলেছেন, এই ২০২১ সালে এসেও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। প্রতিদিন একের পর এক রেকর্ড নিজের নামে লিখে নিচ্ছেন এই দুই তারকা। রোনালদোর কথাই ধরুন। গতকাল বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন লুক্সেমবার্গোর বিপক্ষে। গোলও করেছেন। আর গোল করেই আরেকটা রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন।

লুক্সেমবার্গকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে পর্তুগাল। রোনালদো তো গোল পেয়েছেনই, সঙ্গে গোল পেয়েছেন লিভারপুলের উইঙ্গার দিওগো জোতা ও স্পোর্তিং লিসবনের মিডফিল্ডার জোয়াও পালহিনিয়া। গোল করার মাধ্যমে ২০০৪ সাল থেকে প্রতি পঞ্জিকাবর্ষে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে নিজের অন্তত একটা করে গোল করা নিশ্চিত করলেন এই কিংবদন্তি। ২০০৪ সালের ইউরোর গ্রুপ পর্বে গ্রিসের বিপক্ষে ২-১ গোলে হেরেছিল পর্তুগাল। সে ম্যাচে গোল করে জাতীয় দলে নিজের গোলের খাতা খুলেছিলেন এই পর্তুগিজ। এরপর থেকে প্রতি পঞ্জিকাবর্ষে অন্তত একটা করে গোল করেছেন রোনালদো। লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে গত রাতের গোলটা ছিল ২০২১ সালে জাতীয় দলের হয়ে তাঁর প্রথম গোল। টানা ১৮ বছর ধরে এই ধারা চালিয়ে যাচ্ছেন রোনালদো, কোনো ব্যতিক্রম নেই!

বিজ্ঞাপন
default-image

জাতীয় দলের হয়ে শেষ ১৪টা গোলের মধ্যে ১০টাই রোনালদো করেছেন হয় লিথুয়ানিয়া, নয় লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে। জাতীয় দলে এই নিয়ে তাঁর গোল হয়ে গেছে ১০৩টি। আর সাতটা গোল করতে পারলেই ইরানের আলি দাইয়িকে হটিয়ে জাতীয় দলের পক্ষে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে যাবেন রোনালদো।

রোনালদোর রেকর্ড গড়ার রাতে গোল-উৎসবে মেতেছিল নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম ও জাপান। বেলারুশকে ৮-০ গোলে হারিয়েছে বেলজিয়াম। দুটি করে গোল করেছেন ব্রাইটনের উইঙ্গার লিয়ান্দ্রো ত্রসার ও ক্লাব ব্রুগের মিডফিল্ডার হান্স ভেনাকেন। একটি করে গোল করেছেন লেস্টার সিটির মিডফিল্ডার ডেনিস প্র্যাট, আন্ডারলেখটের জেরেমি ডোকু, ক্রিস্টাল প্যালেসের দুই স্ট্রাইকার ক্রিস্টিয়ান বেনটেকে ও মিচি বাতশুয়াই।

default-image

নেদারল্যান্ডস অবশ্য একটি গোল কম দিয়েছে জিব্রাল্টারকে। ৭-০ গোলে জয়ের পথে জোড়া গোল পেয়েছেন লিওঁর স্ট্রাইকার মেমফিস ডিপাই। একটি করে গোল করেছেন ফেইনুর্দের উইঙ্গার স্টিভেন বের্গুইস, পিএসভির স্ট্রাইকার দনিয়েল মালেন, লিভারপুলের জর্জিনিও ভাইনালডম, সেভিয়ার স্ট্রাইকার লুক ডি ইয়ং ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার ডনি ফন দে বিক।

ওদিকে এশিয়াতেও চলেছে গোল–উৎসব। জাপান গোল করেছে নেদারল্যান্ডসের। এশিয়ার অন্যতম সেরা এই দলটার কাছে মঙ্গোলিয়া গোল খেয়েছে ১৪টা।

বিজ্ঞাপন
default-image

গ্যারেথ বেলের সহায়তায় ইউনাইটেডের আরেক উইঙ্গার ড্যানিয়েল জেমসের গোলে চেক প্রজাতন্ত্রকে হারিয়েছে ওয়েলস। নেদারল্যান্ডস আর নরওয়েকে হারিয়ে চমক সৃষ্টি করা তুরস্ক লাটভিয়ার সঙ্গে ড্র করেছে ৩-৩ গোলে। ইভান পেরিসিচ, লুকা মদরিচ ও জোসিপ ব্রেকালোর গোলে মাল্টাকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ক্রোয়েশিয়া। মন্টিনিগ্রোকে ১-০ গোলে নরওয়ে হারালেও আবারও গোল পাননি আর্লিং হরলান্ড। নরওয়েকে জিতিয়েছেন লাইপজিগের স্ট্রাইকার আলেকসান্দার সরলথ।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন