বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত এক দশকে 'নতুন রোনালদো' যে কত বের হয়েছে, তার কোনো ইয়ত্তা নেই। গুগলে 'নিউ রোনালদো' লিখে খুঁজুন, একরাশ তারকার আবির্ভাব হবে নিমেষে। এদের মধ্যে কেউ প্রত্যাশা পূরণ করেছেন, কেউ প্রত্যাশা পূরণের অপেক্ষায় আছেন, আবার কেউ হারিয়ে গেছেন কালের অতল গহ্বরে। এই নতুন রোনালদো পর্তুগিজই যে হতে হবে, তার কোনো মানে নেই। পর্তুগালে জন্ম নেওয়া বা না নেওয়া, অনেকের গায়েই সেঁটেছে নতুন রোনালদোর তকমা। রোনালদোর দেশের ব্রুমা থেকে শুরু করে উলভসের দিওগো জোতা, ভ্যালেন্সিয়ার গনকালো গেদেস, এসি মিলানের রাফায়েল লিয়াও - সবাইকেই নিয়েই ভক্তরা স্বপ্ন দেখেছেন, দেখছেন।

এখন আবার মাতামাতি হচ্ছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জোয়াও ফেলিক্সকে নিয়ে। বিদেশিদের মধ্যে এই তকমা জুটেছে ফ্রান্সের গ্যাব্রিয়েল ওবেরতান, স্পেনের আলভারো ভাদিয়ো, ইতালির ফেদেরিকো মাচেদার কপালে। এই তালিকার সর্বশেষ সংযোজন— ফাবিও সিলভা।

নাম অপরিচিত ঠেকছে? সমস্যা নেই। অন্তত গতকালের আগ পর্যন্ত সিলভার দেশের মানুষ ছাড়া তাঁকে কেউ চিনতেন বলে মনে হয় না। কিন্তু গতকাল ইংলিশ ক্লাব উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স যা করেছে, তাতে সবার দৃষ্টি খুঁজছে ফাবিও সিলভাকে। ১৮ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডকে ক্লাবের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ট্রান্সফার ফি দিয়ে দলে ভিড়িয়েছে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স। সাড়ে তিন কোটি পাউন্ড দিয়ে এর আগে কাউকে দলে নেয়নি উলভসরা। এই দলবদলের কারণে ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে দামি টিন-এজারদের তালিকায় সপ্তম স্থানে চলে এলেন এই সিলভা। অথচ পর্তুগিজ ক্লাব পোর্তোর হয়ে ২০১৯ সালের আগস্টে অভিষিক্ত এই তারকা লিগ ম্যাচ খেলেছেনই মেরেকেটে এক ডজন!

তবে এর মধ্যেই পোর্তোর রেকর্ড বইয়ের অনেক পাতায় উঠে গেছে তাঁর নাম। পোর্তোর ইতিহাসে তাঁর থেকে কম বয়সে (১৭ বছর ২ মাস ৬ দিন) কোনো খেলোয়াড় ম্যাচ শুরু করেননি। পোর্তোর হয়ে লিগ ম্যাচ খেলা সর্বকনিষ্ঠ তারকাও তিনি। পোর্তোর হয়ে সবচেয়ে কম বয়সে উয়েফা আয়োজিত কোনো প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া খেলোয়াড়ও এই সিলভা। পোর্তোর ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতার তালিকায়ও তাঁর নাম সবার ওপরে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে পোর্তোকে উয়েফা যুব লীগ জেতাতে সাহায্য করেছেন এই তারকা। ওই মৌসুমে পোর্তোর যুবদলের হয়ে ২৬ ম্যাচে ২০ গোল করেছিলেন।

গত কয়েক বছর ধরেই পর্তুগিজ প্রতিভাদের দলে আনার ব্যাপারে বেশ উদ্যোগী ভূমিকা পালন করছে উলভস। দলে এর মধ্যেই আছেন দিওগো জোতা, রুবেন নেভেস, জোয়াও মুতিনহো, রুই পাত্রিসিও, ড্যানিয়েল পডেঞ্চে, রোদেরিক মিরান্দা, পেদ্রো নেতো, ব্রুনো জোর্দাও, রুবেন ভিনাগ্রে। কারণ একটাই, উলভারহ্যাম্পটনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে সুপার এজেন্ট হোর্হে মেন্দেস, যিনি রোনালদোরও দেখভাল করেন। এমনকি উলভসের কোচও পর্তুগিজ - নুনো এস্পিরিতো সান্তো।
একরাশ পরিচিত 'দেশি ভাই' দের মধ্যে সিলভা তাঁর প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারবেন, 'নতুন রোনালদো' তকমার যথার্থতা প্রমাণ করতে পারবেন, এটাই আশা উলভসের হয়তো!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন