সকল গুঞ্জনে পানি ঢেলে দেয় খোদ আতলেতিকোই। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে দেয়, রিয়ালকে গার্ড অব অনার দেবে না তারা। ফলে আজ গার্ড অব অনার পাবেন না, এমনটা মাথায় নিয়েই আতলেতিকোর মাঠ ওয়ান্দা মেত্রোপলিতানোতে খেলতে গিয়েছিলেন ক্রুস-মদরিচরা। গার্ড অব অনার না পাওয়া রিয়ালের কপালে শেষমেশ জয়টাও জোটেনি। লিগ হারানো আতলেতিকো ১-০ গোলে জিতে সামান্য স্বস্তি পেয়েছে। পেনাল্টি থেকে গোল করেছেন বেলজিয়ান উইঙ্গার ইয়ানিক কারাসকো।

লিগ জয় নিশ্চিত দেখেই কি না, আতলেতিকোর বিপক্ষে ডার্বি ম্যাচে বেশ খর্বশক্তির দল নামিয়েছিলেন রিয়ালের কোচ কার্লো আনচেলত্তি। করিম বেনজেমা, লুকা মদরিচ, ফেদেরিকো ভালভার্দে, ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, দানি কারভাহাল, ফারলাঁ মেন্দি, থিবো কর্তোয়া, ডেভিড আলাবা - কেউই ছিলেন না একাদশে। আন্দ্রেই লুনিন, হেসুস ভায়েহো এবং লুকা জোভিচের মতো সারা বছর বেঞ্চে বসে থাকা খেলোয়াড়দের আজ বাজিয়ে দেখতে চেয়েছিলেন আনচেলত্তি।

default-image

আর সেটারই ফায়দা তুলে নিয়েছে আতলেতিকো। ৪০ মিনিটের পেনাল্টি গোলে এগিয়ে গিয়েছে, পরে ওই গোলটাই ফলাফল-নির্ধারক হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে পেনাল্টিটা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক হচ্ছে। ডিবক্সের মধ্যে আতলেতিকোর ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ম্যাতেউস কুনিয়ার পায়ের ওপর পা দিয়ে চাপা দিয়ে বসেন হেসুস ভায়েহো, সেখান থেকে ভিএআরের সহায়তায় পেনাল্টি পেয়ে যায় আতলেতিকো।

তবে ভায়েহো যখন কুনিয়ার পায়ে চাপা দিচ্ছিলেন, তখন কুনিয়া বল নাগালে পাওয়ার মতো পরিস্থিতিতে ছিলেন কি না, সেটা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তবে যত প্রশ্নই উঠুক না কেন, তা আতলেতিকোর গোল পাওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি।

পরাজয়ে রিয়াল মাদ্রিদের কিছু ক্ষতিবৃদ্ধি না হলেও, জয়ের কারণে বেশ লাভ হয়েছে আতলেতিকোর। পরের মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে যাওয়ার স্বপ্নটা আরেকটু উজ্জ্বল হয়েছে তাদের। ৩৫ ম্যাচ শেষে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের চতুর্থ স্থানে আতলেতিকো।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন