বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সিটি কোচের সেই মন্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছিলেন দলটির সমর্থক গোষ্ঠীর মহাপরিচালক কেভিন পার্কার। তিনি বলেছিলেন, কোথায় কতজন খেলা দেখতে এসেছে সেদিকে নজর না দিয়ে গার্দিওলার উচিত কোচিংয়ে মনোযোগ দেওয়া। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও গার্দিওলার অমন মন্তব্যের সমালোচনা করেছিলেন ম্যানচেস্টার সিটির সমর্থকেরা।

তবে কোচের সমালোচনা যতই করুক সিটির সমর্থকেরা, কাল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সাউদাম্পটনের বিপক্ষে ম্যাচে সমর্থন দিতে ঠিকই দল বেঁধে মাঠে গিয়েছিল তারা। ইতিহাদে কাল প্রিয় দলের খেলা দেখতে মাঠে গিয়েছিল ৫২ হাজার ৬৯৮ জন দর্শক। এ মৌসুমে এখন পর্যন্ত যেটা সর্বোচ্চ উপস্থিতি।

default-image

সমর্থকেরা দলের জন্য এতটা করেছে, প্রিয় দলকে সমর্থন জোগাতে করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়েও দল বেঁধে মাঠে এসেছে, কিন্তু এরপরও সিটি কাল জিততে পারেনি। সাউদাম্পটনের সঙ্গে গোলশূন্য ড্রয়ের হতাশা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে তারা। এটা ভালো লাগেনি সিটির কোচ গার্দিওলার। সমর্থকদের ভালোকিছু দিতে না পারায় খারাপ লাগছে তাঁর। এমনকি নিজেকে অপরাধীও মনে হচ্ছে গার্দিওলার।

ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে নিজের হতাশা লুকাননি গার্দিওলা। সাউদাম্পটনের জালে পুরো ম্যাচে একটি মাত্র শট নেওয়া ম্যানচেস্টার সিটির কোচ বলেছেন, ‘এটা সব সময়ের ব্যাপার যে কোনো ম্যাচ ভালো না কাটলে আমার কাছে খারাপ লাগে। সমর্থকেরা মাঠে আসে দলের কাছ থেকে ভালো কিছু পাওয়ার আশায়, ভালো একটি ম্যাচ দেখতে। যখন তাদের ভালো কিছু উপহার দিতে পারি না নিজেকে কিছুটা হলেও অপরাধী মনে হয়।’

default-image

গার্দিওলা এরপর লাইপজিগ ম্যাচ শেষে নিজের করা মন্তব্য নিয়েও কথা বলেছেন। তাঁর কথা ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে বলেই দাবি করেছেন গার্দিওলা, ‘লাইপজিগ ম্যাচ শেষে আমি ভুল কিছু বলিনি। আমি শুধু বলেছি যে সমর্থকদের কাছ থেকে আমাদের আরও বেশি সমর্থন দরকার।’

কী বলেছিলেন বা বলতে চেয়েছিলেন সেটা আরও ভালোভাবে ব্যাখ্যা করেছেন গার্দিওলা এভাবে, ‘আমি কখনোই এমনটা বলিনি যে কতজন মাঠে এসেছে বা কতজন আসেনি। এমন জিনিস আমি আমার জীবনে কখনোই ভাবিনি। আমি বুঝতে পারছি না এটা নিয়ে কেন আমাকে প্রশ্ন করা হচ্ছে। এমনকি ৮৫ থেকে ১০০ জন সমর্থক মাঠে এলেও আমি কৃতজ্ঞ থাকি বা থাকব।’

সাউদাম্পটন প্রতিপক্ষ হিসেবে খুব কঠিন বলেই মনে করেন গার্দিওলা। আর কঠিন এই প্রতিপক্ষের সঙ্গে ম্যাচের দিন আরও বেশি সমর্থন প্রয়োজন বলে মনে হয়েছিল সিটির স্প্যানিশ কোচের। লাইপজিগ ম্যাচের পর নাকি সেটাই তিনি বলতে চেয়েছিলেন, ‘আমি বোঝাতে চেয়েছি আমরা সাউদাম্পটনের মতো শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলব...যাক এখন আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন